বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সরাইলে সন্ধ্যা রাতেই ডাকাতি আহত -২

dakat=======মাহবুব খান বাবুল : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে সন্ধ্যা রাতেই দূর্ধর্ষ ডাকাতি হয়েছে। ডাকাতদের অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছে অটোরিক্সা চালক মো: জাকির মিয়া (২৬) ও যাত্রী মোবারক মিয়া (৩৫)। গত সোমবার সন্ধ্যার পর উচালিয়া পাড়া ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন পাশের সড়কে এ ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতের কবলে পড়া লোকদের স্বজন ও স্থানীয় লোকজন জানায়, তেরকান্দা গ্রামের হাজী বাড়ির মিয়া হোসেনের পুত্র ইট মিলের সর্দার জাকির (৪০) দুই লাখ টাকা নিয়ে উচালিয়াপাড়া-তেরকান্দা সড়ক দিয়ে বাড়ি ফেরার কথা। ওই জাকিরকে ধরার জন্য ১০/১২ জনের একদল ডাকাত সন্ধ্যার ঠিক পর থেকেই ওতপেতে বসেছিল ওই সড়কে। কিন্তু মিল সর্দার জাকির সন্ধ্যার আগেই বাড়িতে চলে যায়। সন্ধ্যার পর উচালিয়াপাড়া গ্রামের শুক্কুর আলীর পুত্র হালে তেরকান্দা চান্দের হাটির বাসিন্ধা টং দোকানদার ও অটোরিক্সা চালক জাকির মিয়া তার মামাত ভাই একই গ্রামের বাসিন্ধা মোবারক মিয়াকে নিয়ে বাড়ি ফিরছিল। উচালিয়াপাড়া ঈদগাহ মাঠ পার হওয়ার পর মিল সর্দার জাকির মনে করে সংঘবদ্ধ ডাকাত দল দেশীয় অস্ত্রের মুখে তাদের গতিরোধ করে। পরে ওই দুইজনের কাছ থেকে নগদ ১২ হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন সেট ছিনিয়ে নিয়ে যায়। জাকির ডাকাত দলের ৩/৪ জনকে চিনে ফেলেছে ভেবে তারা জাকিরকে হত্যার উদ্যেশ্যে পেছনের দিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে গুরুতর আহত করে। অন্যরা জাকির ও মোবারককে এলোপাতাড়ি রড লাঠি দিয়ে আঘাত করতে থাকে। তাদের আর্তচিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তাদের উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় জেলা সদর হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে তাদের অবস্থার অবনতি দেখে তাদেরকে দ্রুত ঢাকা রেফার করা হয়। বর্তমানে জাকির ঢাকার আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতালের আইসিও তে মৃত্যুর সংঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।

প্রসঙ্গত: গত শনিবার রাত দশটার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বিশ্বরোড মোড় থেকে যাত্রী বেশে চার ছিনতাইকারী উঠে একটি সিএনজি অটোরিক্সায় (নং- হবিগঞ্জ-থ-১১-৪৪৪৯)। চান্দুরার উদ্যেশ্যে ছেড়ে যাওয়া সিএনজিটি ইসলামাবাদ নামক স্থানটি পার হওয়ার পরই এক ছিনতাইকারী চালককে ধাক্কা মেরে চলন্ত গাড়ি থেকে মহাসড়কের পাশে ফেলে দেয়। একজন সিএনজিটি নিয়ে চম্পট দেয়। অপর তিন জন চালককে কূপিয়ে গুরুতর আহত করে। চালক বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকার উত্তরায় একটি প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। সিএনজিটি উদ্ধার হয়নি আদৌ। অটোরিক্সা চালক ও মালিক সেলিমের (২৫) বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার রাজাপুর গ্রামে।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আলী আরশাদ মুঠোফোনে বলেন, এ বিষয়টি আমাদেরকে এখনো কেউ জানায়নি। খোজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নিব। সিএনজি ছিনতাইয়ের ঘটনায় এখনো তারা কোন অভিযোগ করেনি।