শুক্রবার, ১৯শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঢাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ও যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত সাগর সরাইলে গ্রেপ্তার

sarail pic-08.10.14নিজস্বপ্রতিবেদক:ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে দেশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী অস্ত্র মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত সাগর ওরফে উত্তম কুমার (৪২) ও সড়ক ডাকাত আহাদ মিয়াকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার পৃথক অভিযান চালিয়ে চুন্টা থেকে সাগরকে ও কুট্রাপাড়া মোড় থেকে আহাদকে গ্রেপ্তার করা হয়। পৃুলিশ জানায়, মঙ্গলবার সকাল ১১টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সরাইল থানার এ এস আই মো: কবিরুলের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে চুন্টা বাজার থেকে সাগরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সাগর উপজেলার চুন্টা গ্রামের শ্যামল ওরফে ধনেশ চন্দ্র শীলের পুত্র। তালিকাভুক্ত ২৩ সন্ত্রাসীর একজন সাগর। সে পিচ্ছি হান্নান, সুব্রত বাইন, প্রকাশ, বিকাশ, যোশেফ ও কালা জাহাঙ্গীর গ্রুপের অন্যতম সদস্য। সরাইলের চুন্টায় জন্ম গ্রহন করলেও কিশোরকাল থেকে বেড়ে উঠেছে ঢাকায়। ঢাকার নিউ মার্কেট এভারেষ্ট হেয়ার ড্রেসারে কাজ করতো সাগর। সেখান থেকেই সে আস্তে আস্তে অপরাধ জগতে প্রবেশ করে। এক সময় সাগরের নাম দেশের শীর্ষ সন্ত্রাসীর তালিকায় উঠে আসে। আজিমপুর, নিউমার্কেট থেকে মিরপুর পর্যন্ত ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করতো সাগর। ছিনতাই ডাকাতি ও চাঁদাবাজি ছিল তার মূল পেশা। সাগরের নামের উপর এখনো অনেক ব্যবসায়ি লাখ লাখ টাকা চাঁদা দিয়ে যাচ্ছেন। ১/১১ এর সময়ে ঘা ঢাকা দিয়েছিল সাগর বাহিনীর সদস্যরা। হিন্দু পরিবারে জন্ম গ্রহন করে সে প্রশাসনকে ফাঁকি দেওয়ার জন্য প্রকৃত নাম গোপন করে রেখেছিল। চুন্টার লোকজন তার মূল নাম উত্তম কুমার বলেই জানেন। কিন্তু অপরাধ জগতে প্রবেশ করে কৌশলে উত্তম কুমার তার নাম পাল্টে ফেলেন। নিজেকে সব জায়গায় সাগর বলে জাহির করে। নামের মাধ্যমে সে নিজেকে মুসলমান বুঝানোর চেষ্টা করে। এক সময় সে মুসলমান মেয়েকে বিয়ে করে। ১৯৯০ সালে অস্ত্রসহ পুলিশের হাতে ধরা পড়ে সাগর। পরে ঢাকার রমনা থানায় তার বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়। ১৯৯২ সালের ১ জুন অতিরিক্ত দায়রা জজ চতুর্থ আদালত, ঢাকা সাগরকে যাবত জীবন কারাদন্ড প্রদান করেন। রায়ের পর থেকেই সে ছিল পলাতক। তার বিরুদ্ধে ঢাকার ক্যান্টনম্যান্ট সহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। সরাইল থানা পুলিশ গত একমাস ধরে সাগরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করে আসছিল। সাগর গ্রেপ্তারের খবর পেয়ে এ এস আই কবিরুলকে দশ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়ার ঘোষনা দিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান পিপিএম (বার)। অপরদিকে একই দিন দুপুর ১২টায় অভিযান চালিয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের কুট্রাপাড়া এলাকা থেকে সড়ক ডাকাত আহাদ মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছেন এস আই আবদুল আলীম। আহাদের বাড়ি বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের গোয়াল খোলা গ্রামে। তার বিরুদ্ধে সরাইল সহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আলী আরশাদ বলেন, সাজাপ্রাপ্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী সাগর ও ডাকাত আহাদকে গ্রেপ্তারের জন্য দীর্ঘদিন ধরে চেষ্টা করে আসছিলাম।