শুক্রবার, ৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিরাপত্তাব্যবস্থা ছাড়াই ভবন নির্মাণ, ঘটছে মৃত্যু

buildingব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় নির্মাণ হচ্ছে বিভিন্ন বহুতল ভবন। নির্মাণকাজের সময় নিরাপত্তাব্যবস্থা না থাকায় বেশ কয়েকটি নিহত ও আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের পুনিয়াউটে।  নির্মাণকাজের সময় পাশের বিদ্যুতের তারে স্পৃষ্ট হয়ে চার তলার ওপর থেকে পড়ে ঘটনাস্থলে মারা যান পৈরতলা গ্রামের সামসু মিয়া (৩৭)।সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় ভয়ংকর হয়ে উঠেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকায় নির্মাণাধীন ভবন। ওই সব ভবন নির্মাণে আইনের তোয়াক্কা করা হচ্ছে না।ভবন নির্মাণে নিরাপত্তাব্যবস্থা না থাকায় গত দুই বছরে অন্তত তিনজন মারা গেছে। আহত হয়েছেআরো ২০ জন।নির্মাণশ্রমিকরা বলছেন, এ জন্য মালিকরা দায়ী। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তারা সংশ্লিষ্টদের প্রতি দাবি জানান।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, পৌর এলাকার পাইকপাড়া, সড়ক বাজার, ভাদুঘর, হালদার পাড়া, মধ্যপাড়া, মেড্ডা,  খৈয়াসার এলাকায় নতুন নতুন ভবন নির্মাণ হচ্ছে। এসব ভবনের বেশির ভাগেরই অবস্থান এলাকার মানুষের চলাচলের প্রধান সড়কের পাশে। নেই নিরাপত্তাবেষ্টনী। বেশ কয়েকটি ভবন সড়কের পাশে থাকা বিদ্যুতের তার ঘেঁষেই তোলা হচ্ছে।

২০১২ সালের ৪ জুন পৌর এলাকার হালদারপাড়ায় প্রবাসী লুৎফুর রহমানের নির্মাণাধীণ ভবন থেকে ইট পড়ে গভ. মডেল গার্লস হাই স্কুলের শিক্ষক জীবন কুমার শীল মারা যান। এ ছাড়া চলতি বছরের ১৪ মে একই এলাকায় শিক্ষক আব্দুল করিমের বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কে পড়ে মারা যায় চার বছরের শিশু সিনহা।

 বৃহস্পতিবার  (২৮ আগস্ট) দুপুরে শহরের পুনিয়াউটে ভবন নির্মাণকাজের সময় খুব কাছে থাকা বিদ্যুতের তারে স্পৃষ্ট হয়ে পৈরতলা গ্রামের সামসু মিয়া (৩৭) চার তলার ওপর থেকে নিচে পড়ে ঘটনাস্থলে মারা যান। পুনিয়াউটে মীর মো. শান্তর ভবনে কাজ করার সময় এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, ১ থেকে আধা ফুট দূরে এসটি মূল লাইনের বৈদ্যুতিক তারের পাশে খোলা অবস্থায় হচ্ছে ভবন নির্মাণ। ভবনের সামনেই ব্যস্ততম সড়ক। ভবনের নির্মাণকাজে নেই নিরাপত্তা-জাল। রাস্তায় পড়ে আছে নির্মাণশ্রমিক সামসু মিয়ার রক্তাক্ত লাশ।   আশপাশে মানুষ ভিড় করে আছে।

এ সময় বাড়ির মালিক মীর শান্তকে পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় লোকজন নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা ছাড়াই ভবন নির্মাণ এবং বৈদ্যুতিক মূল তারের পাশে কাজ করায় ক্ষোভ প্রকাশ করে অনিয়মের জন্য দোষী ব্যক্তির শাস্তি দাবি করেন।

সেখানে বিক্ষুব্ধ নির্মাণশ্রমিকরা জড়ো হয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।পুলিশের এসআই কামরুল জানান, খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা নির্মাণশ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. আলাউদ্দিন আলাল ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, “মালিকদের গাফিলতিতেই এসব দুর্ঘটনা ঘটছে। তারাই এ জন্য দায়ী। অনেক প্রভাবশালী মালিক সড়ক ঘেঁষেই ভবন বানাচ্ছেন। বৈদ্যুতিক তার পাশে রেখেই হচ্ছে কাজ। এ ছাড়া তারা নিরাপত্তাবেষ্টনী দেয়ারও কোনো চিন্তা করেন না। শ্রমিকরা এসব কথা বললেও কোনো লাভ হচ্ছে না। ”

এ ব্যাপারে পৌরসভার প্রকৌশল বিভাগের এক কর্মকর্তা  নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, ভবনের মালিকরা নকশার বাইরে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় নির্মাণকাজ করেন। বৈদ্যুতিক তার এবং রাস্তার জন্য যতটুকু জায়গা ছেড়ে নির্মাণকাজ করার কথা, তা অনেকে মানেন না।”

পৌরসভার মেয়র মো. হেলাল উদ্দিন জানান, ভবন নির্মাণের সময় নিরাপত্তাব্যবস্থার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়। এই নিদের্শনা যারা অমান্য করছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

 

এ জাতীয় আরও খবর

নজরুল পুরস্কার পেলেন চার গুণী

জামানত হারিয়েছেন ওবায়দুল কাদেরের ভাই শাহাদাত

ভিসা হয়নি ২৯২ হজযাত্রীর, ৯ এজেন্সির ব্যাখ্যা তলব

শাকিবের জীবনে প্রথম প্রেমিকা আমি : অপু বিশ্বাস

সাকিবের দলে খেলবেন মিলার

র‍্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম কুমারের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

বেনজীরের বিরুদ্ধে টাকা সরানোর প্রমাণ পেয়েছে দুদক

ঈদযাত্রায় একদিন একটু কষ্ট হলে কী আসে-যায়: কাদের

ফরিদপুর-১ আসনের সাবেক এমপি মনজুর হোসেন আর নেই

দস্যুতা না ছাড়লে দুঃসংবাদের খবর দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

‘দেশের সবচেয়ে লাভজনক’ কক্সবাজার স্পেশাল ট্রেন বন্ধ

সরকারের স্বার্থ নয়, জনগণের অধিকার নিশ্চিতে কাজ করব : ইসির নতুন সচিব