সোমবার, ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকায় আসছেন মালয়েশিয়ার মানব সম্পদ মন্ত্রী

malasiaডেস্ক রির্পোট : দুই দিনের সফরে ঢাকায় আসছেন মালয়েশিয়ার মানব সম্পদ মন্ত্রী। সোমবার বাংলাদেশের বৈদেশিক কর্মসংস্থা ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন তিনি। মন্ত্রণালয় কর্মকর্তারা জানান, বৈঠকে মালয়শিয়ায় আরো শ্রমিক পাঠানো এবং তাদের নিরাপদ কাজের পরিবেশ নিয়ে আলোচনা হবে।

 
বৈঠকে আরো কি কি থাকবে সে বিষয়ে বৈদেশিক কর্মসংস্থা ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. খন্দকার শওকত হোসেন বলেন, আমাদের প্রধান আলোচ্য বিষয় হচ্ছে ২০১২ সালে আমরা সমঝোতা সাক্ষর করি; যার ভিত্তিতে এদেশ থেকে লোক যাওয়ার কথা। মালয়শিয়ায় লোক যাওয়াটা যেন আরো বর্ধিত সংখ্যায় যেতে পারে একই এমওইউ এর আওতায়। এখন পর্যন্ত বেশীরভাগ লোক প্ল্যান্টেশনে যাচ্ছে। মালয়শিয়ায় অন্যান্য সেক্টরে আমাদের লোকেরা আছে সেখানে তাদের চাহিদা আছে। এছাড়া আরো সেক্টর আছে কন্সট্রাকশন সেক্টরে, সার্বিক সেক্টরেযেন আরো বেশী সংখ্যক লোক যেতে পারে সেটাও আমাদের আলোচ্য বিষয়। এখন পর্যন্ত কোয়ালালামপুর বেইজড বিভিন্ন কর্মক্ষেত্রে আমাদের লোক যাচ্ছে। সে ক্ষেত্রে আমাদের লোকদের প্রেরণ বৃদ্ধি করা যায় কি না দ্ধএবং নারীকর্মী প্রেরণ করা যায় কিনা সেটাও আমাদের আলোচনায় আছে।
 
মালয়েশিয়া এই সংক্রান্ত কোনো প্রস্তাব দিয়েছে কিনা সে বিষয়ে তিনি বলেন, এসব ব্যাপারে প্রস্তাবনায় উল্লেখ আছে। নারীদেরকে সেখানে গৃহকর্মী হিসেবে পাঠানো হবে। যেহেতু আমরা আগে নারীকর্মী পাঠাইনি সেক্ষেত্রে তাদের কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা, কাজের পরিধি, কাজের পরিবেশ কেমন এই বিষয় গুলো যাচাই করে আমরা দেখতে চাই।
 
ট্রিপ্ল্যান্টেশনে লোক যাচ্ছেন তাদের মাঝে মাঝে অভিযোগ রয়েছে যে তারা ২০১৩ সালে রেজিস্ট্রেশন করেছেন কিন্তু এখনও তারা এর কোনো তদারকি দেখতে পাননি তাছাড়া জনশক্তি প্রেরণের গতি খুব ধীর এর কারণ কি এই বিষয়ে সচিব বলেন, এমইউএ এর আওতায় ২০১৩ সালের জুলাই মাসে দুইটি কমিটি ছিল সেখানে কতগুলো নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছিল কিভাবে কর্মী প্রেরণ বর্ধিত সংখ্যায় করা যায় এর ফিরতি মিটিংএ সেক্ষেত্রে আরো অগ্রগতি করা হবে।
 
কম খরচে এদেশী শ্রমিকরা সেদেশে যাচ্ছেন কিন্তু যাওয়ার পর কাজ পাচ্ছেন না এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি বলেন, শুধু মালয়শিয়ায় কেন পৃথিবীর যে কোনো দেশে শ্রমিকদের অভিবাসন সম্পর্কে এবং সুনির্দিষ্ট কাজের বিপরীতে যায় এমন সঙ্গত পর্যায় থাকে যেন তারা দুই তিন মাসের বেতনের মধ্য দিয়ে ব্যয়টা ওঠে আসে। সুতরাং আমরা এই বিষয়টি দেখছি যাতে অভিবাসন ব্যয়টা আয়ত্তের মধ্যে আসে এবং কাজের সুযোগ সুবিধার ব্যাপারেও কার্যক্রম নেয়া হবে। বিবিসি

এ জাতীয় আরও খবর

উপজেলা নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে ১১৬ কোটিপতি প্রার্থী : টিআইবি

পাওয়া গেছে ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার

হেলিকপ্টার বিধ্বস্তে ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুর শঙ্কা

কোভ্যাক্সিনের টিকায়ও হচ্ছে ভয়ঙ্কর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া!

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের স্থায়ী সমাধান জরুরি : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

এক পা জেলে রেখেই রাজনীতি করি আমরা, প্রিজন ভ্যান থেকে ইশরাক

সারা দেশে টানা ৩ দিন হতে পারে বৃষ্টি

কালশীর সড়কে যান চলাচল শুরু

ব্যবসায়ীকে হত্যার দায়ে সাতজনের মৃত্যুদণ্ড, সাতজনের যাবজ্জীবন

সোনার ভ‌রি এক লাখ সাড়ে ১৯ হাজার ছাড়াল

আছড়ে পড়ল ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার

নববধূর সাজে ইধিকা, বিয়ে করেছেন শাকিবের প্রিয়তমা?