শুক্রবার, ২১শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৭ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নবীনগরে র‌্যাবের নির্যাতনে ব্যবসায়ী মৃত্যুর প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল- প্রতিবাদ সমাবেশ

Rab anti michilব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে র‌্যাবের নির্যাতনে ব্যবসায়ী শাহীনূর আলম হত্যার প্রতিবাদে নবীনগরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে এলাকাবাসী। স্থানীয় নাগরিক সমাজের নেতৃত্বে গতকাল শনিবার এই বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করা হয়। 

সকাল ১১টায় নবীনগর পূর্ব ইউনিয়ন পরিষদ চত্বর থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়ে উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে স্থানীয় প্রেসক্লাবের সামনে এসে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। 
নবীনগর পূর্ব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা এম.এ. খায়ের বারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা নাছির উদ্দিন, মাহাবুবুর রহমান, কৃষকলীগ নেতা আব্দুস ছালাম, বিএনপি নেতা হেলাল উদ্দিন, যুবদল নেতা মফিজুর রহমান মুকুল, আশরাফ হোসেন রাজু, নিহতের ভাই ও মামলার বাদি মাওলানা মেহেদী হাসান, ছাত্রদল নেতা মোঃ শুক্কুর খান, মনিরুল ইসলাম মিন্টু। 
সমাবেশে মাওলানা মেহেদী হাসান বলেন, অবিলম্বে থানায় মামলা গ্রহণসহ দোষীদের গ্রেপ্তার না করা হলে কঠোর কর্মসূচী দেয়া হবে। র‌্যাবকে চ্যালেঞ্জ করে তিনি বলেন, আমার ভাইয়ের বিরুদ্ধে যদি একটি অভিযোগ দেখাতে পারে র‌্যাব তাহলে আমি এই মামলা তুলে নিব। 
সমাবেশে অন্যান্য বক্তারা অবিলম্বে শাহীনূর হত্যায় জড়িত র‌্যাব-১৪-এর ভৈরব ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর সাকিব সিদ্দিকীসহ ১১ জনকে গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবি জানান। 
উল্লেখ্য র‌্যাব-১৪-এর ভৈরব ক্যাম্পের একটি দল গত ২৯ এপ্রিল রাতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার বগডহর গ্রামের মহিউদ্দিন ওরফে মদন (৪১) কে গ্রেপ্তার করে। পরে মদনের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বগডহর গ্রামের রহিছ মেম্বারের ছেলে শাহীনুর আলম-(৪৩) কে গ্রেপ্তার করে। পরদিন বুধবার দুপুরে তাদেরকে নবীনগর থানায় হস্তান্তর করা হয়। বৃহস্পতিবার নবীনগর থানার পুলিশ গ্রেপ্তারকৃতদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায়।
জেল হাজতে শাহীনূর আলম অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে গত ৪ মে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে, ওইদিনই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শাহীনূর ৬ মে রাত ৮টার দিকে মারা যান।
এ ঘটনায় নিহতের ভাই মেহেদী হাসান বাদী হয়ে গত ১ জুন রবিবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ( নবীনগর আদালতে) নাজমুন নাহারের আদালতে র‌্যাব-১৪-এর ভৈরব ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর এ.জেড.এম সাকিব সিদ্দিকী, ক্যাম্পের ৯ জন সদস্যসহ মোট ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।
এদিকে গত ৩০ এপ্রিল সাংবাদিকদের কাছে পাঠানো র‌্যাবের প্রেসনোটে বলা হয়, নবীনগর উপজেলা সদরে চিরকুট পাঠিয়ে একাধিক বাড়িতে চাঁদা দাবি ও বিভিন্ন বাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গত ২৯ এপ্রিল রাতে র‌্যাব-১৪-এর ভৈরব ক্যাম্পের একটি দল অভিযান চালিয়ে নবীনগর উপজেলার বগডহর গ্রামের মহিউদ্দিন ওরফে মদন (৪১) কে গ্রেপ্তার করে। পরে মদনের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে বগডহর গ্রামের রহিছ মেম্বারের ছেলে শাহীনুর আলম-(৪৩) কে গ্রেপ্তার করে।