সোমবার, ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাহারি যত পর্দার খোঁজে

life----------------গৃহশৈলিতে পর্দার ভূমিকা অনেক বেশি। আধুনিক জীবনে গৃহসজ্জায় পর্দা না থাকাটা খুবই বেমানান। পর্দা যেমন গৃহের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে তেমনি নিজের রুচির পরিচয়ও তুলে ধরে। একবার চোখ বন্ধ করে ভেবে দেখুন তো, আপনি দাঁড়িয়ে আছেন আনমনে খোলা জানালার পাশে। আর চোখ বুলাচ্ছেন প্রকৃতিতে। হালকা বাতাস এসে দোলা দিচ্ছে আপনার চুলে আর সেই সঙ্গে দুলছে আপনার জানালার পর্দাগুলো। তাহলে আনন্দে মনটা তো দুলবেই! 



আপনার বাড়ি কিম্বা ফ্ল্যাট ছোট হলেও সেটাকে সাজানো যেতে পারে নানারকম জিনিস দিয়ে। তারমধ্যে গুরত্বপূর্ণ একটি হলো পর্দা। নিজের গৃহটি সুন্দর করে সাজিয়ে তোলার আগে কথা বলতে পারেন এক্সপার্ট কোনো অ্যাডভাইজারের সঙ্গে। অথবা নিজের পছন্দমতো পর্দা দিয়ে সাজিয়েও নিতে পারেন নিজের ঘরটি। 



তবে অবশ্যই মনে রাখবেন, পর্দার রঙ এবং ডিজাইনটা যেন হয় রুচিসম্মত এবং মানানসই। অযথাই এমন কোনো রঙ কিম্বা ডিজাইন পছন্দ করবেন না, যা কিনা ঘরের সৌন্দর্য নষ্ট করে। কারণ আপনি চাইলেই পেতে পারেন আপনার হাতের কাছে নানারকমের পর্দা। একটু মাথা খাটিয়ে এবং ধীরস্থিরভাবে চিন্তা করে বেছে নিন নিজের পছন্দের পর্দাগুলো।



পর্দা দিয়ে ঘর সাজানোর কৌশল :

আপনার বেডরুমটি যদি থাকে মিনিমাল ফার্নিচার কিংবা হালকা স্নিগ্ধ কোনো রংয়ের ব্যবহার, সেক্ষেত্রে আপনি ব্যবহার করতে পারেন গাঢ় লাল কিংবা মেরুন কোনো কুচিদার পর্দা। তাতে আপনার ঘরটিকে অনেক উজ্জ্বল দেখাবে। আপনার ড্রইং রুমটা যদি হয়, গর্জিয়াস কোনো ফার্নিচারে সাজানো, তাহলে আপনি ওয়েভিং গর্জিয়াস পর্দা বা সিল্ক পর্দা লাগাতে পারেন।



যদি খাবার ঘর সাজানো হয়, কাঠের বা লোহার কোনো ফার্নিচার দিয়ে, তাহলে তাতে ব্যবহার করতে পারেন গারো খয়েরি বা চকলেট রংয়ের পর্দা। আর আপনার বারান্দায় যদি থাকে কোনো ফুলের টব, সেক্ষেত্রে আপনি লাগাতে পারেন গাঢ় সবুজ বা কমলা রংয়ের পর্দা। তাতে প্রকৃতির ছোঁয়া পাবেন।



আপনার ঘরের ছাদ যদি হয় আনেক উঁচু তাহলে আপনি লাগাতে পারেন আড়া আড়ি চেকের পর্দা। তাতে ঘরের ছাদটি অনেক নিচু দেখাবে। আপনার ঘরের ছাদ যদি হয় আনেক নিচু তাহলে আপনি লম্বা চেকের পর্দা লাগাতে পারেন। তাহলে ঘরের ছাদ অনেকটা উঁচু দেখাবে। পর্দা লাগানোর বিষয়টি নির্ভর করে এক এক জনের রুচির উপর। তাই আপনি আপনার রুচি মতো পর্দাও লাগাতে পারেন।    



ঘর সাজাতে বাজারে রয়েছে যেসব পর্দা : 

বর্তমানে ঘর সাজানো জন্য বাজারে রয়েছে রকমারি পর্দার সমাহার, এরমধ্যে- জ্যাকেট পর্দা, গ্রামীণ চেক পর্দা, থাইকটন, ওয়েভিং পর্দা, কোরিয়ান পর্দা, সিল্ক পর্দা। এছাড়াও আপনার পছন্দ মতো কাপড় কিনে তৈরি করে নিতে পারেন পছন্দসই পর্দাটি। 



রাজধানীর বড় বড় শপিং মল থেকে শুরু করে আড়ং, গাওছিয়া, চাঁদনিচক, নিউমার্কেট, ইসলামপুরসহ ছোট বড় প্রায় সব মার্কেটে পেতে পারেন আপনার পছন্দের পর্দাগুলো। তবে বেশি ভালো হয়, যদি ঠিক দামটি জেনে মার্কেটে যান। তাহলে ক্রেতারা হয়রানি থেকে মুক্তি পেতে পারেন। এবং বাজেট ঠিক রেখে পর্দাও  কিনতে পারবেন।



দরদাম :

তার আগে ক্রেতা সাধারণের বাজেট নির্ধারন ও সুবিধার জন্য জানিয়ে দিচ্ছি, কিছু পর্দার মূল্য। পর্দার কোয়ালিটির উপর নির্ভর করে প্রতি পিচ পর্দার মূল্য। যেমন- জ্যাকেট পর্দা – ২৫০, চায়না পর্দা ৫৫০ – ১০৫০, গ্রামীন চেক পর্দা৯০-১৮০,  কোরিয়ান পর্দা ৬০০-১০০০, কটন পর্দা প্রতি পিচ ২৫০ টাকা। এছাড়া ওয়েভিং পর্দার মূল্য জানালার মাপ অনুযায়ী। আর থাই কটন পর্দার দাম কোয়ালিটি অনুযায়ী পড়বে। তাছাড়া আপনার পছন্দ আর পর্দার কোয়ালিটির ভিন্নতায় এ মূল্যের তারতম্য হতে পারে।  



– See more at: http://www.risingbd.com/detailsnews.php?nssl=f16faf5d680d7b88e2e157c1c137c497#sthash.p1jBXCsz.dpuf