মঙ্গলবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

৬৭তম কান চলচ্চিত্র উৎসব বৃষ্টিভেজা তারার মেলা

প্রথম প্রশ্নটাই খুব বিপদে ফেলে দেওয়ার মতো। ‘জুলিয়ান মুরের সঙ্গে শয্যাদৃশ্যে অভিনয় করার অভিজ্ঞতাটি কেমন ছিল?’ হাত দুয়েক দূরে বসে পরিষ্কার দেখতে পাচ্ছি, চোখের যদি ভুল না হয়, লালচে হয়ে উঠছে রবার্ট প্যাটিনসনের চেহারা। মুহূর্তের জন্য লাজুক ভঙ্গিতে মাথা নিচু করলেন হালের ব্রিটিশ বংশোদ্ভূত এই হলিউড হার্টথ্রব। পাশেই বসা সহ-অভিনেত্রী জুলিয়ান মুরের দিকে তাকিয়ে হাসলেন অপ্রস্তুত ভঙ্গিতে। 

কী আশ্চর্য, হলিউডের অভি–নেতাদেরও তাহলে লজ্জা থাকে! 

অবশ্য মুহূর্তের মধ্যেই রবার্ট ফিরে পেলেন নিজেকে। আত্মবিশ্বাসী ভঙ্গিতে জবাব দিলেন, ‘দারুণ’। হাসিতে ফেটে পড়ল পুরো হলঘর। সেই হাসিতে যোগ দিলেন ছবির কানাডীয় পরিচালক ডেভিড ক্রনেনবার্গ, অভিনেতা জন ক্যুজেক, এমনকি জুলিয়ান মুরও।

আকাশে কালো মেঘের আনাগোনা ছিল আগে থেকেই। গতকাল সোমবার সেই মেঘ নামল বৃষ্টি হয়ে। প্রথমবারের মতো বৃষ্টিতে ভিজল কানসৈকতে বিশ্ব-সিনেমার অন্যতম বৃহৎ মিলনমেলা।

গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি আর হালকা শৈত্যপ্রবাহের মাঝখানে সকালটা ছিল খানিক বিষণ্ন। দুপুরে সূর্য উঁকি দিতেই স্রেফ হাওয়ায় মিলিয়ে গেল সেই মন খারাপ করা ভাব। বৃষ্টির হানা বা বাস-বিমান ধর্মঘট—কোনোটাই দাগ ফেলতে পারেনি ৬৭তম কান চলচ্চিত্র উৎসবের জৌলুশে।

কানাডীয় পরিচালক ডেভিড ক্রনেনবার্গের ম্যাপস টু দ্য স্টারস নিয়ে উচ্ছ্বাস ছিল এমনিতেই। কাল উদ্বোধনী প্রদর্শনীর পর প্রতিযোগিতা বিভাগের এই ছবিকে ঘিরে সে উচ্ছ্বাস পাখা মেলল হাওয়ায়। আগের দিন এলেও কালই প্রথম সংবাদ সম্মেলনে পাওয়া গেল হালের রবার্ট প্যাটিনসনকে। সঙ্গে ছিলেন ম্যাপস টু দ্য স্টারস ছবির মুখ্য কলাকুশলীরা।

ম্যাপস টু দ্য স্টারস ছবিতে হলিউডের রহস্যময় এক লিমুজিন চালকের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন রবার্ট প্যাটিনসন। জুলিয়ান মুরের চরিত্রটি একজন হলিউড অভিনেত্রীর। যেকোনো মূল্যে তিনি আগামী সিনেমায় তাঁর কাঙ্ক্ষিত চরিত্রটি পেতে চান।

কাল গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে প্রদর্শনী হয়েছে প্রতিযোগিতা বিভাগের আরেক ছবি বেনেট মিলার পরিচালিত ফক্সক্যাচার-এর। ভ্রাতৃহত্যার সুবিচার পেতে মরিয়া এক কুস্তিগিরের জীবন নিয়ে তৈরি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের এই ছবি। ছবির সংবাদ সম্মেলন এবং ফটোকলে এসেছিলেন পরিচালক বেনেট মিলার, অভিনেতা স্টিভ ক্যারেল এবং মার্ক রাফেলো। 

প্রতিযোগিতা বিভাগের বাইরে প্রদর্শিত ছবির মধ্যে ছিল জুলি জুং পরিচালিত দোহি-ইয়া (কোরিয়া), পানোস কুত্রাস পরিচালিত জেনিয়া (গ্রিস) এবং পাস্কাল ফেরঁ৵া পরিচালিত বার্ড পিপল (ফ্রান্স)। ‘কানস ক্লাসিকস’ বিভাগে দেখানো হয়েছে স্টিভ জেমসের লাইফ ইটসেলফ ও স্টুয়ার্ট কুপারের ওভারলর্ড।