বুধবার, ২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শেষ হয়েছে সপ্তাহ্যব্যাপী বৈশাখী উৎসব

প্রতিনিধি :: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাহিত্য একাডেমি আয়োজিত ২৮ তম বৈশাখী উৎসব গত রবিবার শেষ হয়েছে। 



শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষাচত্ত্বরে আয়োজিত বৈশাখী উৎসবের সমাপনী দিনে বিপ্লবী ললিত মোহন বর্মণ, মহর্ষি মনোমোহন দত্ত  দিবস ও ভাঙলো মিলন মেলা ভাঙলো শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রিয় ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা। 



বৈশাখী উৎসব উর্যাপন পরিষদের সদস্য সচিব উপাধ্যক্ষ এ কে এম শিবলীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিজিএফসিএল এর কোম্পানী সচিব সঞ্জীব কুমার দেবনাথ, নবীনগর সাতমোড়া আনন্দ আশ্রম এর সাধারণ সম্পাদক জয়দেব বর্মন। 



আলোচনা করেন, সাহিত্য একাডেমির পরিচালক অধ্যাপক কৃপাল নারায়ন চৌধুরী, নবীনগর সাতমোড়া আনন্দ আশ্রম এর যুগ্মসম্পাদক দেবাশীষ দাস সোহেল, নবীনগর সাতমোড়া আনন্দ আশ্রম এর কোষাধ্যক্ষ ডাঃ দীপক মজুমদার, কমিনিষ্ট পার্টির জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাজিদুল ইসলাম, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম স্বপন, স্বাগত বক্তব্য রাখেন, কবি ও কথাসাহিত্যিক মানিক রতন শর্মা। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শেখ জাহাঙ্গীর। দিবস পরিচিতি পর্বে বিপ্লবী ললিত মোহন বর্মণ এর সংক্ষিপ্ত জীবনী পাঠকরেন সাহিত্য একাডেমির নির্বহী সদস্য তাসলিমা আক্তার রোমা।





প্রধান অতিথির বক্তব্যে এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা এমপি বলেন, বৈশাখী উৎসব বাঙালির প্রাণের উৎসব। দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে আমরা বৈশাখী উৎসব পালন করি। তিনি বৈশাখী উৎসবের উদারতা ও অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে ধারন করার জন্য তরুন প্রজন্ম ও রাজনৈতিক কর্মীদের প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন, রাজনৈতিক, সামাজিক ও পারিবারিক জীবনে দেশপ্রেমে উদ্ধুদ্ধ হয়ে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করে দেশকে একটি সুখি সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে বিশ্বের দরবারে প্রতিষ্ঠিত করতে সকলের প্রতি আহবান জানান।



তিনি ২৮ বছর যাবৎ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বৈশাখী উৎসব উযাপন করার জন্য সাহিত্য একাডেমিকে ধন্যবাদ জানান।

এর আগে সূচনা পর্বে সঙ্গীত পরিবেশন করেন ত্রিতাল সঙ্গীত নিকেতন সরাইর ব্রাহ্মণবাড়িয়া। পরে বাউল সঙ্গীত পরিবেশন করেন, অঞ্জন দাস, দুর্গাচরন বাউল, মাহফুজা বেগম, রবিতা বনিক, শাহরিয়ার শুভ প্রমূখ। সমাপনী দিনেও মেলার ষ্টলগুলোতে ছিল দর্শনাথীদের উপচেপড়া ভিড়।