সোমবার, ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সালমানকে নিয়ে ডেইজি-ইলুলিয়ার দ্বন্দ্বযুদ্ধ

‘জয় হো’ ছবির সহ-অভিনেত্রী ডেইজি শাহ ও রোমানীয় টিভি তারকা ইলুলিয়া ভেঞ্চুর—দুজনের সঙ্গেই ‘বিগহার্ট লাভারবয়’ সালমান খানের সখ্যের খবর চাউর হয়েছে বলিউডে। সম্প্রতি সালমানের বাড়িতে আয়োজিত এক পার্টিতে হাজির হন ডেইজি ও ইলুলিয়া। একপর্যায়ে তাঁদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয় এবং রেগেমেগে পার্টি থেকে বের হয়ে যান ডেইজি। কিন্তু তাঁকে শান্ত করার কোনো রকম চেষ্টাই করেননি খান সাহেব। এর পরিপ্রেক্ষিতে গুঞ্জন উঠেছে, তবে কি ইলুলিয়াকে বশে রাখতেই এমনটা করেছেন সালমান!

সালমান খানের হাত ধরেই বলিউডের ছবিতে প্রথমবারের মতো কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পান মডেল, নৃত্যশিল্পী ও অভিনেত্রী ডেইজি শাহ। গত বছর ‘জয় হো’ ছবির সহ-অভিনেত্রী ডেইজির শরীরের বাড়তি চর্বি ঝরানোর জন্য অস্ত্রোপচারের পেছনে দেড় লাখ রুপি খরচ করেন সালমান। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাঁদের সখ্যের খবর চাউর হয় বলিউডে।

অন্যদিকে রোমানীয় টিভি তারকা ইলুলিয়া ভেঞ্চুরের সঙ্গে সালমানের সখ্যের খবর নিয়ে তো রীতিমতো তোলপাড়ই পড়ে গিয়েছিল। তাঁরা বিয়ে করতে যাচ্ছেন বলেও খবর রটেছিল। কিন্তু পরিবারের সদস্যদের বাধার কারণে সালমান-ইলুলিয়ার সম্পর্কে দেয়াল তৈরি হয়। অবশ্য চলতি বছরের মার্চ মাসে বিদেশিনী বউ ঘরে আনবেন বলে ঘোষণা দেন সালমান। কাকে বিয়ে করবেন তা স্পষ্ট না করলেও খবর চাউর হয়, ইলুলিয়াকে ইঙ্গিত করেই কথাটি বলেছেন খান সাহেব।

সহ-অভিনেত্রী থেকে শুরু করে একাধিক বিদেশিনীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে বহুবার মুখরোচক খবরের জোগান দিয়েছেন সালমান। গত জানুয়ারি মাসে মুক্তি পাওয়া ‘জয় হো’ ছবিতে সালমানের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করতে গিয়ে সালমানের প্রতি দুর্বল হয়ে পড়েন ডেইজি। তিনি জনসমক্ষে সেই দুর্বলতার কথা প্রকাশও করেন। জানিয়েছে ওয়ান ইন্ডিয়া।

‘জয় হো’ ছবির শুটিং চলাকালে এক সাক্ষাত্কারে ডেইজি বলেছিলেন, ‘যে কারও জীবনে সালমানের উপস্থিতি নিঃসন্দেহে বিশাল একটি ব্যাপার। আমি তাঁকে খুবই পছন্দ করি। তাঁকে পর্দার এবং বাস্তবের হিরো বলেই মনে হয় আমার কাছে। তাঁর চোখের দিকে তাকালে কোথায় যেন হারিয়ে যাই আমি। আমি তাঁর সঙ্গে প্রেম করছি। তবে বাস্তবে নয়, পর্দায়।’ কারও প্রতি বিশেষ দুর্বলতা রয়েছে কি না—সরাসরি এমন প্রশ্নের জবাবে ডেইজি অকপটেই উল্লেখ করেছিলেন সালমানের নাম। তিনি বলেছিলেন, ‘আমি আমার প্রথম ভালোবাসার মানুষটির সঙ্গে কাজ করছি।’

ডেইজি-সালমান (মাঝে)-ইলুলিয়া‘জয় হো’ ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ করে দেওয়ার পর বলিউডে প্রতিষ্ঠিত করতে ডেইজির প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন সালমান। প্রখ্যাত নির্মাতা সুরজ বরজাতিয়ার পরবর্তী ছবিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে সালমানের অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত হওয়ার পর তাঁর বিপরীতে ‘রাম-লীলা’ তারকা দীপিকা পাড়ুকোনকে নিতে চেয়েছিলেন সুরজ। কিন্তু শিডিউল জটিলতার কারণে সময় দিতে পারেননি দীপিকা। তখন ছবিটিতে সালমান তাঁর বিপরীতে ডেইজি শাহকে অন্তর্ভুক্ত করার অনুরোধ জানান সুরজকে। অবশ্য ছবিটিতে সালমান-ডেইজি জুটি বেঁধে অভিনয় করবেন কি না, তা এখন পর্যন্ত চূড়ান্ত হয়নি।

সালমানের এমন সহূদয় আচরণে বেচারা ডেইজি হয়তো মনে করেছিলেন তাঁর প্রতিও সালমানের দুর্বলতা রয়েছে। কিন্তু সম্প্রতি সালমানের বাড়িতে আয়োজিত পার্টিতে এক রকম অপমানিত হয়েই ফিরে যেতে হয়েছে তাঁকে। ইলুলিয়া ও ডেইজির মধ্যে কথা কাটাকাটি হওয়ার পর সালমান চাইলেই তাঁদের মধ্যে সমঝোতার উদ্যোগ নিতে পারতেন। কিন্তু তিনি তা করেননি। অনেকের মতে, বিষয়টি ইলুলিয়ার প্রতি সালমানের বিশেষ দুর্বলতারই ইঙ্গিত বহন করে।

প্রসঙ্গত, ৪৮ বছর পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত বিয়ের পথ মাড়াননি সালমান খান। বরাবরই বিয়ের প্রতি অনীহা প্রকাশ করলেও গত মার্চ মাসের শুরুর দিকে হঠাত্ করেই সুর পাল্টান এই ‘মুঝছে শাদি কারোগে’ তারকা। মিডিয়ার সঙ্গে নিজের বিয়ে নিয়ে আলাপচারিতার সময় খুব শিগগির চূড়ান্ত একটি পদক্ষেপ নেবেন বলেই আভাস দেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে সালমানের ভাষ্য ছিল, ‘বর্তমানে আমার জীবনে একপর্যায় থেকে আরেক পর্যায়ে উত্তরণের মধ্যবর্তী সময় চলছে। বিষয়টিকে আমি দারুণ উপভোগ করছি। ১৫ বছর বয়স থেকে শুরু করে আজ অবধি আমার জীবনে কখনোই এমন সময় আসেনি। জীবনে প্রথমবারের মতো এত বেশি দীর্ঘশ্বাস ফেলছি আমি। আড়াই বছর আগেও আমার দীর্ঘশ্বাস ফেলার মাত্রা এতটা প্রবল ছিল না। কিন্তু দীর্ঘশ্বাস ফেলা বন্ধ করার সময় এসে গেছে। কারণ খুব শিগগির আমার জীবনে কিছু একটা ঘটতে যাচ্ছে।’

সালমান আরও বলেন, ‘আমার বাবা একজন পাঠান, আর মা হিন্দু। দ্বিতীয় মা বার্মিজ ক্যাথলিক। ভাবি পাঞ্জাবি। আমি নিজের জন্য দেশের বাইরে থেকেই বউ আনার চিন্তাভাবনা করছি।’

দেরিতে হলেও বিয়ে নিয়ে সালমানের অনীহা কেটে যাওয়ার বিষয়টি নিঃসন্দেহে সালমান-ভক্তদের জন্য অনেক বেশি আনন্দের। হুট করে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত বাতিল করে ভক্তদের আনন্দকে তিনি মাটি করে দেবেন না—এমনটাই প্রত্যাশা সবার।