মঙ্গলবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ঝাঁপিয়ে পড়তে প্রস্তুত মাশরাফি

bd cr-2ক্রীড়া প্রতবিদেক : বাংলাদেশের ক্রিকেটে মাশরাফি বিন মুর্তজা মানে অনেক কিছু। মাশরাফি মানে কলার উঁচিয়ে বোলিং রানআপে ছুটে যাওয়া, মাশরাফি মানে শেবাগের স্টাম্প উপড়ে আঙুল নাড়িয়ে সেই গর্বিত উদ্যাপন, মাশরাফি মানে বাংলাদেশের বড় সব জয়ের ভিত গড়ে দেওয়া, ব্যাটিংয়ে নেমে ছোট্ট ঝড়, মাশরাফি মানে অনুশীলনের ফাঁকে দুষ্টুমি, মাশরাফি মানে মাঠের ভরসা, মাঠের বাইরে দলের প্রাণভোমরা, ড্রেসিংরুমের অক্সিজেন, মাশরাফি মানে সবার অনুমানকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে চোট-আঘাতকে বারবার হারিয়ে ফিরে আসা, দুই হাঁটুতে ছয়টি অপারেশন নিয়েও তুমুল গতিতে ছুটে চলা, মাশরাফি মানে হূদয়ের বিশালতায় জোড়া লাগা সাত আসমান, মাশরাফি মানে…১৯ জানুয়ারির সেই যন্ত্রণাক্লিষ্ট মুখ!


হ্যাঁ, ১৯ জানুয়ারি ২০১১। মাশরাফি নিজে কখনোই দিনটি ভুলবেন না, ভুলবে না সেদিন একাডেমি মাঠে উপস্থিত কেউই। বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করা হলো মিরপুরের একাডেমি বিল্ডিংয়ে, চোট পুরোপুরি কাটিয়ে উঠতে না পারায় জায়গা হয়নি মাশরাফির। পাশেই একাডেমি মাঠে ছিলেন মাশরাফি। সংবাদ সম্মেলন শেষে সংবাদকর্মীরা সবাই ছুটে গেলেন মাশরাফির প্রতিক্রিয়া জানতে। মুখ খুলেই যেন গলা ধরে এল মাশরাফির। কথা বলতে পারছিলেন না, একপর্যায়ে কেঁদেই ফেললেন। তাঁর চোখের জলে মেঘ জমল সেখানে থাকা সবার হূদয়েই। মাশরাফির হূদয়ে হতাশা, আক্ষেপ, অভিমান। দেশের মাটিতে বিশ্বকাপ খেলা হলো না!


সেই আক্ষেপ তাঁর কখনোই যাবে না। তবে আক্ষেপের ক্ষতে খানিকটা প্রলেপ এবার পড়তে পারে। নাছোড়বান্দার মতো পেছনে লেগে থাকা চোট এবারও মাশরাফির হূদয় ভাঙার আয়োজন সেরে নিয়েছিল। ১৩ বছর আগে চোটের সঙ্গে প্রথম পরিচয় করিয়ে দিয়েছিল যে ‘সাইড স্ট্রেইন’ (শরীরের এক পাশের পেশিতে টান), অনাহূত অতিথির মতো সেটি ফিরে এসেছিল আবার। আবারও লড়াই এবং সেটিতে মাশরাফি জিতে গেলেন বলেই মনে হচ্ছে। দেশের মাটিতে একটা বিশ্ব আসরে খেলার তাই স্বাদ পেতে যাচ্ছেন বহু যুদ্ধের অভিজ্ঞ যোদ্ধা। ২০১১-কে ভুলতে পারছেন না, তবে এখনকার তৃপ্তিটাও কম নয়, ‘সত্যি কথা বলতে, ২০১১ বিশ্বকাপ খেলতে পারিনি, সেই দুঃখটা আমার এখনো আছে। ওটা অনেক বড় টুর্নামেন্ট, ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ। এবার খেলতে পারার অনুভূতি পুরোই আলাদা। তবে এবারও দেশের কোটি কোটি মানুষের প্রত্যাশা জড়িয়ে আছে। ২০১১-তে পাওয়া না-পাওয়ার হিসাব এখন মেলাতে চাই না। যদি খেলি, অবশ্যই আমার সর্বস্ব দিয়েই খেলব। যদি তুলনার কথা বলি, অবশ্যই বলব ওটা ছিল অনেক বেশি কষ্টদায়ক।’


কষ্টকর একটা প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে এবারও। প্রতিটি ম্যাচের আগেই নিতে হবে ইনজেকশন। এই ইনজেকশনও জীবনের একটা অংশই হয়ে গেছে অনেক দিন। এতবার অস্ত্রোপচার হয়েছে বলে হাঁটুতে কিছুদিন পরপরই একধরনের তরল জমে ফুলে যায় সেটি। কয়েক দিন পরপর বিশাল এক সিরিঞ্জের মোটা সুচ ঢুকিয়ে টেনে বের করে নিতে হয় সেই তরল। এই পুরো প্রক্রিয়াটার অনেকগুলো ভিডিও মাশরাফি রেখে দিয়েছেন মুঠোফোনে। মাঝেমধ্যে নিজেই দেখেন, দেখান অনেককে। সেগুলোর একটি ভিডিওই বুঝিয়ে দেয় মাশরাফির কষ্টের তীব্রতা। সুচ ঢুকিয়ে তরল বের করার সময় যন্ত্রণায় যেভাবে চিৎকার করেন মাশরাফি, সেটি দেখলে সহ্য করা কঠিন। এত যন্ত্রণা সয়ে কিসের তাড়না এখনো তাঁকে টেনে আনে মাঠে? এবারের চোটটা পাওয়ার পরই প্রশ্নটা শুনে মাশরাফি হেসে বলেছিলেন, ‘ক্রিকেটের প্রতি মায়াটা ছাড়তে পারি না যে! আর দেশের জন্য কিছু করার কত বড় সুযোগ এটা। দেশের হয়ে আর খেলব না, এটা ভাবতেই পারি না। দেশকে প্রতিনিধিত্ব করছি—এই ভাবনাটাই প্রতিবার চোট থেকে ফিরে আসার মূল অনুপ্রেরণা আমার।’


কদিন আগে প্রথম আলোয় লেখা কলামেই লিখেছিলেন, নিজেকে ফিট রাখতে দেড়-দুই বছর ধরে কত ঘাম ঝরাচ্ছেন, কতটা ত্যাগ স্বীকার করেছেন, প্রিয় কত কিছুকে পরিত্যাজ্য তালিকায় ফেলে দিয়েছেন। এবার অনেক পুরোনো চোট আবার মাথাচাড়া দেওয়ায় শুরুতে খানিকটা ভেঙে পড়েছিলেন। তবে সামলে নিয়েছেন দ্রুতই, ‘আগের চেয়ে অনেক ভালো অনুভব করছি এখন। শেষ তিন দিনে ১০ ওভার বোলিং করেছি। প্রথম দিনের চেয়ে ব্যথা এখন অনেকটা কমেছে। আজ ৮০ ভাগ দিয়ে বোলিং করেছি। কালকে আবার করব।’ কিন্তু সময় তো বেশি নেই, যদি শতভাগ ফিট হতে না পারেন? মাশরাফির জবাব, ‘আমার কথা হলো যে অবস্থায়ই থাকি না কেন, মাঠে শতভাগ ঢেলে দেব। বাদবাকি কিছুই আমার মাথায় নেই।’


আর কিছু বলার প্রয়োজন আছে? এটাই মাশরাফি।

এ জাতীয় আরও খবর

অভিযান-১০ লঞ্চে অগ্নিকাণ্ড : ‘মায় মোর আজও আইলোনা’

আ.লীগকে ব্যঙ্গ করায় শিবির নেতার ১০ বছরের জেল

বিএসএমএমইউয়ের আগুন নিয়ন্ত্রণে

দুই ক্যাম্পে ৪০ হাজার রোহিঙ্গার ঝুঁকিপূর্ণ বসবাস

সাকিবের মতো ‘ভুল’ করে নিষিদ্ধ হচ্ছেন টেলর

মহামারিকালে স্কুল বন্ধ, দেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ শিশুর পড়াশোনা ব্যাহত : ইউনিসেফ

শাবি উপাচার্যের পদত্যাগের দাবি দ্রুত মেনে নেওয়ার আহ্বান সিলেটের নাগরিকদের

প্রেমের টানে ঝিনাইদহ থেকে রংপুরে তরুণী, অত:পর থানার ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা

অর্ধেক জনবলে চলবে ব্যাংক

করোনা : ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বেড়ে ১৪৮২৮, মৃত্যু ১৫

রাসেল ঝড়ে ঢাকার প্রথম জয়

মাদারীপুরে হত্যা মামলায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড