শুক্রবার, ২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা মধ্যে দিয়ে সরস্বতী পূজা অনুষ্টিত

searchবিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা আর ধর্মীয় ভাব গাম্ভিজ্যের মধ্যে দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিদ্যা দেবী সরস্বতী পূজা অনুষ্টিত হচ্ছে। ওঁ সরস্বত্যৈ নমঃ বিদ্যার দেবী শ্রী শ্রী সরস্বতী পূজা আজ। ‘সরস্বতী মহাভাগে বিদ্যে কমললোচনে/ বিশ্বরূপে বিশালাক্ষী বিদ্যংদেহী নমোহ্স্তুতে’ সনাতন ধর্মাবলম্বীরা এই মন্ত্র উচ্চারণ করে বিদ্যা ও জ্ঞান অর্জনের জন্য দেবী সরস্বতীর অর্চনা করবেন। গতকাল সোমবার রাতেই সারাদেশের ন্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলার বিভিন্ন মন্ডপে মন্ডপে দেবীর প্রতিমা স্থাপন করা হয়েছে। আজ সকালে দেয়া হয়েছে মায়ের চরণে পুষ্পাঞ্জলী। পূজা শেষে প্রসাদ বিতরণ করা হচ্ছে। সন্ধ্যায় আরতি ছাড়াও রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। শ্রী পঞ্চমীর দিন ভোরে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ছাত্রছাত্রীদের গৃহ ও সর্বজনীন পূজামন্ডপে দেবী সরস্বতীর পূজা করা হয়। ধর্মপ্রাণ হিন্দু পরিবারে এই দিন শিশুদের হাতেখড়ি, ব্রাহ্মণভোজন ও পিতৃতর্পণের প্রথাও প্রচলিত। পূজার পরের দিনটি শীতলষষ্ঠী নামে পরিচিত। সরস্বতী বৈদিক দেবী হলেও সরস্বতী পূজার বর্তমান রূপটি আধুনিককালে প্রচলিত হয়েছে। এই পূজায় আমের মুকুল, দোয়াত- কলম, যবের শিষ, বাসন্তী রঙের গাঁদা ফুলসহ কয়েকটি বিশেষ সামগ্রীর প্রয়োজন হয়। লোকাচার অনুসারে, ছাত্রছাত্রীরা পূজার পূর্বে উপবাস করেন। পূজান্তে পুষ্পাঞ্জলি দেওয়ার প্রথাটি অত্যন্ত জনপ্রিয়। বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছাত্রছাত্রীদের দল বেঁধে অঞ্জলি দিতে দেখা যায়। এ উৎসবটি পালনের জন্য ইতিমধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অন্নদা সরকারী উচ্চ বিদ্যলয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, গভঃ মডেল হাই স্কুল, সাবেরা সোবহান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, রামকানাই হাই একাডেমী, আনন্দময়ী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, আইডিয়াল রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারী মহিলা কলেজ, পৌরডিগ্রি মহাবিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। তাছাড়া শহরে মন্দিরে মন্দিরে সরস্বতী পূজা অনুষ্টিত হয়।