শনিবার, ২৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শর্ত মানলে জামায়াতকে বাদ দিয়ে নির্বাচনে যাবে বিএনপি

fakrul-2নির্বাচনকালীন সরকারের বিষয়ে বিএনপির দেয়া শর্ত মানলে ১৮ দল থেকে জামায়াতকে বাদ দিয়ে বিএনপি আগামী জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেবে। তখন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের মহাজোটেও জামায়াতকে নেয়া যাবে না বলে বিএনপির শর্ত। গতকাল শনিবার রাতে রাজধানীর বনানীর একটি বাড়িতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকে অন্যান্য শর্তের সঙ্গে এসব কথা জানান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বৈঠক সূত্র এসব তথ্য জানায় প্রিয় দেশকে।

সূত্র জানায়, বৈঠকে বিএনপির কয়েকটি শর্ত, দাবি সৈয়দ আশরাফের কাছে তুলে ধরেন মির্জা ফখরুল। তার দাবিগুলোর মধ্যে আছে নির্বাচনকালীন সরকার প্রধান হিসেবে নির্দলীয় কাউকে দায়িত্ব দেয়া, নির্বাচন কমিশনের পুর্নগঠন, বিএনপির নেতাদের মুক্তি ও তাদের বিরুদ্ধে দায়ের থাকা ‘রাজনৈতিক হয়রানিমূলক মামলাগুলো প্রত্যাহার’, প্রধান দুই দলের জন্য সমানভাবে নির্বাচনী মাঠ প্রস্তুত করা ইত্যাদি।

এর আগে গত ১৬ নভেম্বর লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর আইটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মধ্যে বৈঠক হয় বলে দেশি, বিদেশি গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই বৈঠকে জয় তারেককে ‘যুদ্ধাপরাধীদের দল জামায়াতকে’ বাদ দিয়ে সমঝোতার ভিত্তিতে জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিতে আহবান জানান। বিএনপির শর্ত মানলে জামায়াতকে বাদ নির্বাচনে দলটি অংশ নিতে রাজী বলে তারেক জানান জয়কে। উল্লেখ্য, জয়, তারেকের মধ্যকার ওই বৈঠকের পরদিন তারেক রহমান বিদেশে টাকা পাচারের বহুল আলোচিত মামলায় খালাস পান।

সূত্র জানায়, গতকাল শনিবার রাতের বৈঠকে আশরাফ ও ফখরুল দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। বিএনপির পক্ষ থেকে দলের দাবিগুলো লিখিতভাবে সৈয়দ আশরাফকে দেয়া হয়। তিনি দাবিগুলো নিয়ে আলোচনা করেন। পরে সৈয়দ আশরাফ এসব দাবি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে আবার বৈঠক হবে বলে মির্জা ফখরুলকে জানান।

যোগাযোগ করলে তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু প্রিয় দেশকে বলেন,  ‘সৈয়দ আশরাফ, মির্জা ফখরুলের মধ্যে বৈঠক আরো হবে। এসব বৈঠক সুস্থ পরিবেশ ফিরিয়ে আনবে।’

উল্লেখ্য, বিএনপির নেতৃ্ত্বাধীন ১৮ দলের জোটের অন্যতম শরীক জামায়াত। ২০০০ সালে জামায়াতের সঙ্গে দলটির জোট হয়। এরপর ২০০১ সালে ক্ষমতায়ও আসে জোট। মহাজোট সরকার গঠন করে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের জন্য গঠন করে আর্ন্তজাতিক ট্রাইব্যুনাল। ট্রাইব্যুনালের রায়ে জামায়াতের কয়েক নেতা একাত্তরে যুদ্ধাপরাধের দায়ে দণ্ডিত হন। চলতি বছর জামায়াতে নিবন্ধন অবৈধ বলে রায় দেন আদালত।

এ জাতীয় আরও খবর