রবিবার, ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সুন্দরবনের পানিতে মিশে গেল সার

news-image

ডেস্ক রির্পোট : ফার্নেস ওয়েলের কার্গো ডোবার পর শঙ্কার মধ্যে ছিল সুন্দরবনের সাধারণ জৌববৈচিত্র। সেই শঙ্কা কাটতে না কাটতেই এবার সুন্দরবনে ডুবে গেল সার বোঝাই কার্গো। কার্গোতে থাকা সার মিশে গেছে পূর্ব সুন্দরবনের মরা ভোলা নদীতে। ফার্নেস ওয়েল বিভিন্নভাবে সংগ্রহ করা হলেও পানিতে মিশে যাওয়া এই সার পানি থেকে আলাদা করা সম্ভব নয়।
ঘটনা তদন্তে দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। একই সঙ্গে পরিবেশের ক্ষতির আশঙ্কায় সুন্দরবন পূর্ব বিভাগ শরণখোলা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।
৩ মে মংলা বন্দর থেকে কার্গোটি অন্তত ৩০০ টন সার নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। কার্গোটি ওই দিন বিকেল পাঁচটার দিকে মরাভোলার ডুবো চরে আটকা পড়ে। গত সোমবার কার্গোর সার সরিয়ে নিতে এবং আটকে পড়া কার্গোটি উদ্ধারের জন্য মালিক পক্ষ অন্য দুটি কার্গো ঘটনাস্থলে পাঠায়। মঙ্গলবার দুপুরে উদ্ধার কাজ শুরু হয়। সন্ধ্যার দিকে আটকা পড়া কার্গোটির তলা ফেটে এক দিকে হেলে পড়লে এর আএক অংশ পানিতে ডুবে যায়। বুধবার কার্গোটির আশপাশে কাউকে দেখা যায়নি।
বুধবার সকালে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মুহা. জাহাংগীর আলম, সুন্দরবন বিভাগের বন সংরক্ষক সুনীল কুমার কুণ্ডু, সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আমীর হুসাইন চৌধুরী ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের বাগেরহাট কার্যালয়ের উপ-পরিচালক জয়নুল আবেদীন সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
সাংবাদিকদের সুনীল কুমার কুণ্ডু জানান, কার্গোডুবির ঘটনায় বনের পরিবেশের ক্ষতির আশঙ্কায় শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক কামাল উদ্দিন আহমেদ মঙ্গলবার সংশ্লিষ্ট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আমীর হুসাইন চৌধুরীকে প্রধান করে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
সুনীল জানান, বনকর্মীরা ওই কার্গো থেকে নিজস্ব তত্ত্বাবধানে বেশ কিছু সার অপসারণ করেছেন।
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক দিলীপ দত্ত বলেন, এমওপি একটি রাসায়নিক সার। এটি পানিতে সহজে গলে যায়। বিপুল পরিমাণ এই সার একটি ছোট এলাকায় একসঙ্গে দ্রবীভূত হলে জলজ প্রাণী সম্পদের ওপর মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। সুন্দরবন একটি স্পর্শকাতর এলাকা। তাই বিষয়টি মাথায় রেখে নিবিড় পর্যবেক্ষণ ও প্রতিরোধ ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।

এ জাতীয় আরও খবর

দুদকের মামলা স্থগিতে বদির আবেদন খারিজ

সকালে তীব্র, দুপুরে সহনীয় যানজট

অর্থ আত্মসাৎ: নর্থ সাউথের চার ট্রাস্টিকে গ্রেফতারের নির্দেশ

‘মুজিব’ সিনেমার ট্রেলার দেখে সবাই কেন হতাশ তার কারণ পাচ্ছেনা পরিচালক

হয়রানির শিকার বলিউড অভিনেত্রী দিয়া মির্জা

অ্যান্থনি নরম্যান আলবানিজকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

উত্তরায় নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আজ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু

কাশিমপুর কারাগারে নারী হাজতির মৃত্যু

সিঙ্গাপুরের হেড কোচ হলেন সালমান বাট

ধানুশের আসল বাবা-মা নাকি তারাই! মানতে নারাজ অভিনেতা

পাকিস্তানি নারীর ‘প্রেমের ফাঁদে’ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচার, ভারতীয় সেনা গ্রেপ্তার