শুক্রবার, ১লা জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নূর হোসেনের বান্ধবী আটকের পর মুক্ত (ভিডিও)

Nilaডেস্ক রির্পোট : নারায়ণগঞ্জে সেভেন মার্ডারের এক নম্বর আসামি নূর হোসেনের বান্ধবী ওয়ার্ড কাউন্সিলর জান্নাতুল ফেরদৌসী নীলাকে গতকাল রবিবার গোয়েন্দা পুলিশ আটক করে দুই ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দিয়েছে। এসময় তার কাছে নূর হোসেন সম্পর্কে নানা তথ্য জানতে চায় গোয়েন্দা পুলিশ। সেভেন মার্ডারের সঙ্গে নূর হোসেনের সংশ্লিষ্টতা সম্পর্কেও জিজ্ঞাসাবাদ করে ডিবি। কাউন্সিলর নীলা অপরাধ জগতের ডন নূর হোসেনের প্রায় সকল অপকর্ম কাছ থেকে দেখেছেন। তাই নীলার কাছে নূর হোসেনের অপরাধ জগতের না জানা অনেক ঘটনার বিষয় জানতে চায় পুলিশ। সেভেন মার্ডারের পরদিন ২৮ এপ্রিল দুপুর পৌনে ১২টায় নূর হোসেন নীলাকে ফোন করে বলে, তুই আমাকে না বলে ভারতে গিয়েছিস। আমি ভারতে আসছি। তোকে এবার শেষ করবো। হত্যাকা-ের ঘটনার আগে থেকেই নীলা তার বাবা আব্দুল মোতালেবের চিকিৎসার জন্য ভারতে ছিলেন বলে জানান। নূর হোসেন ফোনে হুমকি দেয়ায় ভারতে নীলা তার অবস্থান পরিবর্তন করেন।


গতকাল রবিবার নজরুলসহ সেভেন মার্ডারের ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ সার্কিট হাউজে গণশুনানিতে নীলা অংশ নেন। জন প্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শাহজাহান আলী মোল্লার নেতৃত্বে গঠিত ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি এই গণশুনানি পরিচালনা করছে। কাউন্সিলর নীলা গণশুনানিতে অংশ নিয়ে তার মাইক্রোবাসযোগে সিদ্ধিরগঞ্জের বাসায় ফিরছিলেন। নারায়ণগঞ্জ শহরের হাজীগঞ্জ এলাকার ফায়ার স্টেশনের সামনে ডিবি পুলিশ কর্মকর্তারা সন্ধ্যায় নীলাকে আটক করে। পরে জেলা ডিবির কার্যালয়ে নিয়ে নীলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে রাত পৌনে ৯ টায় ছেড়ে দেয়। ২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে নীলা সিদ্ধিরগঞ্জ ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা আসন থেকে কাউন্সিলর প্রার্থী হন। নীলা সিদ্ধিরগঞ্জ মহিলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। কাউন্সিলর প্রার্থী হওয়ার পর নীলা সিদ্ধিরগঞ্জ আওয়ামী লীগের সকল স্তরের নেতাদের সঙ্গে নির্বাচনে সহযোগিতার বিষয়ে দেখা করেন। সিদ্ধিরগঞ্জ আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও কাউন্সিলর নূর হোসেনের সঙ্গে তার কাঁচপুর সিমরাইলের বাসায়ও দেখা করেন। ওই সময় নূর হোসেন সুন্দরী নীলাকে টার্গেট করেন বলে তার এক ঘনিষ্ঠ সহযোগী জানান। নির্বাচনে নীলাকে অর্থসহ বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেন নূর হোসেন। নীলা তখন বুঝতে পারেনি নূর হোসেন তাকে পাওয়ার জন্য এই সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে। নির্বাচনে নীলা কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। এরপর থেকে আন্ডার ওয়ার্ল্ডের ডন নূর হোসেনের আসল চরিত্র নীলার সামনে ফুটে উঠে। নীলার স্বামী আবু সায়েম সোবহানের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, নীলার বাবা আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মোতালেবের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখল করে নেয় নূর হোসেন। নিজের জীবন ও একমাত্র কন্যার জীবন, পিতা- মাতা এবং স্বামীর জীবন রক্ষার্থে নীলা নূর হোসেনের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েন। নূর হোসেনের সঙ্গে দৈহিক মেলামেশা থেকে শুরু করে তার সব কিছুই নীলা নিরবে সহ্য করেন। জানা যায়, যাত্রাবাড়ী এলাকার একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া করে নীলা ও নূর হোসেন থাকতেন। নূর হোসেন মাদক, অস্ত্র ব্যবসা, পরিবহন সেক্টরে চাঁদাবাজি, দখল ও সন্ত্রাসসহ অপরাধ জগতের সকল অপকর্ম বিনা বাধায় সম্পন্ন করে কোটি কোটি টাকা কামায়। পুলিশ, র‌্যাব, দলীয় নেতা, সাংবাদিকসহ প্রশাসনের একশ্রেণির কর্মকর্তা প্রতিদিন নূর হোসেনের বাসা কিংবা সিমরাইল ট্রাক স্ট্যান্ডের অফিসে এসে টাকার প্যাকেট নিয়ে যেত। নীলা বলেন, তিনি এদের অনেককে চিনেন। জানান, প্রশাসনের সহযোগিতায় কিভাবে একজন ট্রাক হেলপার থেকে অপরাধ জগতের ডন হন নূর হোসেন। এগুলো কাছ থেকে নীলা নিরবে দেখেছেন। তিনি আরো বলেন, নারায়ণগঞ্জে এমন কোন নেতা নেই যার পকেটে নূর হোসেনের টাকা যায়নি। ইত্তেফাক

 

এ জাতীয় আরও খবর

ঈদের আগে ফ্রিজ পরিষ্কারের দারুণ কিছু টিপস

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ২২

পদ্মা সেতু হওয়ায় দুশ্চিন্তায় দৌলতদিয়ার ১৪০০ হকার

বাসার নিচতলায় হাঁটুপানি, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ২ জনের মৃত্যু

‘সোনার চর’ দিয়ে কাজে ফিরলেন মৌসুমী

কিশোরীকে ‘আই লাভ ইউ’ বলায় যুবকের কারাদণ্ড

কোক স্টুডিও বাংলায় গান গাইবেন ওস্তাদ রশিদ খান

সেই জিতুকে স্কুল থেকে আজীবন বহিষ্কার

জাতির কাছে নূপুর শর্মার ক্ষমা চাওয়া উচিত : ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট

যাত্রীর চাপে এক্সপ্রেসওয়ের টোল প্লাজায় বাড়ল বুথ

‘আমরা শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্তে অটল থাকতে পারলে আ.লীগ সরকার থাকবে না’

ভাইয়ের জানাজায় অংশ নিতে প্যারোলে মুক্তি পেলেন হাজী সেলিম