মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জেমস বন্ড ক্রেইগের বাস্তবের প্রেমিকা

52f9b62f4d2d8-Siennaজেমস বন্ড তারকা ড্যানিয়েল ক্রেইগের সঙ্গে ব্রিটিশ অভিনেত্রী সিয়েনা মিলারের প্রেমের খবর চাউর হয়েছিল ২০০৫ সালে। বিষয়টি তাঁরা কখনো স্বীকার না করলেও সম্প্রতি ক্রেইগের সঙ্গে প্রেমের বিষয়টি স্বীকার করেছেন মিলার। অবশ্য খুব অল্প সময়ের জন্যই তাঁরা একে অন্যের প্রেমে মজেছিলেন বলে দাবি করেছেন ‘দ্য এজ অব লাভ’ খ্যাত ৩২ বছর বয়সী এ তারকা অভিনেত্রী।

সম্প্রতি ‘সানডে মিরর’-এর সাবেক সাংবাদিক ড্যান ইভানসকে ফোন হ্যাকিংয়ের জন্য দোষী সাব্যস্ত করেছেন আদালত। ব্রিটিশ মডেল কেট মস, অভিনেতা ড্যানিয়েল ক্রেইগসহ অন্তত ২০০ মানুষের ফোন হ্যাক করেছিলেন তিনি। ফোন হ্যাকিং মামলার বিচারকাজ চলার সময় জানা গেছে, কেট মসের মোবাইল ফোনে ভয়েস মেইলের মাধ্যমে তিনবার ‘আই লাভ ইউ’ বলে প্রেম নিবেদন করেছিলেন ক্রেইগ।

কেবল কেট মসই নয়, মিলারের সঙ্গেও ক্রেইগের প্রেমের খবর ফাঁস করেছেন ড্যান ইভানস। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের মিরর ডটকমের এক খবরে বলা হয়েছে, ফোন হ্যাকিং মামলার বিচারকাজ চলার সময় আদালতকে ড্যান ইভানস জানান, ‘একদিন ক্রেইগের মোবাইল ফোনের ভয়েস মেইলে একটি নারী কণ্ঠ শুনতে পেলাম। তিনি বলছিলেন, ‘‘হাই, এখন কথা বলতে পারব না। কারণ, আমার সঙ্গে জুড রয়েছে। ক্রেইগ, আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসি।’’ পরে নম্বর মিলিয়ে দেখলাম সেটি মিলারের নম্বর।’

প্রসঙ্গত, ২০০৪ সালের ডিসেম্বরে ব্রিটিশ অভিনেতা জুড ল’র সঙ্গে মিলারের বাগদান সম্পন্ন হয়েছিল। পরের বছরের জুলাই মাসে মিলারের সঙ্গে প্রতারণার দায় স্বীকার করে প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা করেন জুড। অন্যদিকে প্রায় একই সময়ে ক্রেইগের সঙ্গে মিলারের প্রেমের খবর চাউর হয়। শেষ পর্যন্ত ২০০৬ সালের নভেম্বরে সম্পর্কের ইতি টানেন জুড ল ও মিলার।

এদিকে সম্প্রতি মিলার দাবি করেছেন, ক্রেইগের সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে অতিরঞ্জিত সব খবর প্রকাশ করা হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে তাঁর ভাষ্য, ‘একটা সময়ে আমার সবচেয়ে কাছের বন্ধু ছিল ক্রেইগ। ভালোবাসার কথা তাঁর কাছে প্রকাশও করেছিলাম। অল্প কিছুদিনের জন্য আমরা প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়েছিলাম।’

মিলার আরও বলেন, ‘এত বছর পর ক্রেইগ আর আমার প্রেম নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটির কারণে আমি খুবই বিব্রত। রীতিমতো গবেষণা চালিয়ে আমাদের প্রেমের খুঁটিনাটি নানা তথ্য বের করার চেষ্টা চলছে। আমাদের নিয়ে আজেবাজে অনেক কিছুই রটানো হচ্ছে যার কোনো ভিত্তি নেই। যেখানেই যাচ্ছি সেখানেই ব্যক্তিগত জীবনের একান্ত এমন একটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে হচ্ছে। বিষয়টি আমার জন্য খুবই অস্বস্তিকর। জীবনে কখনো এমন কঠিন পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হয়নি আমাকে।’