মঙ্গলবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মন্ত্রীর মহিষের খোঁজে হয়রান পুলিশ

52efa4abe6614-indexভারতের উত্তর প্রদেশে প্রভাবশালী মন্ত্রী আজম খানের খামারবাড়ি থেকে গত শনিবার ভোরে চুরি হয় সাতটি মহিষ। চুরি হয়ে যাওয়া মহিষের পাল উদ্ধারে রাজ্যের পুলিশ ব্যাপক তল্লাশি চালায়।



রাজ্যের রামপুর জেলার পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে দিনভর অভিযানের পর গতকাল রোববার বিকেলে হারানো চারটি মহিষ পাওয়া গেছে। তবে এখনো বেপাত্তা আরও তিনটি মহিষ।



আজম খান উত্তর প্রদেশের ক্ষমতাসীন সমাজবাদী পার্টির নগর উন্নয়নবিষয়ক মন্ত্রী। তিনি দলটির প্রভাবশালী নেতাও। প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব আজম খানকে নাকি বেশ সমীহ করে চলেন। খবর বিবিসি বাংলা।



বিতর্ক যেন আজম খানের পিছু ছাড়ে না। এর আগে মুজফফরপুরের দাঙ্গা, বিধায়কদের নিয়ে ইউরোপ-আমেরিকায় প্রমোদ ভ্রমণসহ নানা বিষয়েই আজম খানের মন্তব্য সব সময় সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। কিন্তু এগুলো নিয়ে তিনি এতটুকু বিচলিত নন।



মহিষ চুরির পর থেকেই নাটকের শুরু। দাঙ্গা দমন থেকে শুরু করে নারী নির্যাতন রোধ কোনোও ব্যাপারেই উত্তর প্রদেশ পুলিশ কোনো তত্পরতা দেখায় না বলে অভিযোগ আছে। চুরির খবর পাওয়া মাত্রই পুলিশ বিশাল বাহিনী, গাড়ির বহর আর গোয়েন্দা কুকুর নিয়ে সঙ্গে সঙ্গে হাজির হয়ে যায় মন্ত্রীর খামারবাড়িতে। মহিষের পালের সন্ধানে অন্তত তিনটি থানার পুলিশ দিনরাত এক করে খোঁজা শুরু করে।



এই দলের নেতৃত্বে ছিলেন রামপুর জেলা পুলিশ সুপার সাধনা গোস্বামী। তিনি জানান, ‘এই খামারবাড়ি আর মহিষের পাল সবই মন্ত্রীর। এই পাসিয়াপুরা গ্রামে খামারবাড়ির পেছনে যে চাষের খেত আর জঙ্গল আছে, সে দিক থেকে চোরেরা এসে মহিষগুলোকে ভাগিয়ে নিয়ে গেছে বলে আমরা সন্দেহ করছি।’

এসপি আরও বলেন, ‘এখন মহিষের পায়ের ছাপ ধরে ধরে আমরা এগোচ্ছি। আশা করছি, চুরির কিনারা করতে পারব।’



এলাকার কেউও মন্ত্রীর বাড়ি থেকে চুরি করার সাহস করবে না—ধরে নিয়ে আশপাশের জেলাগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করে তৈরি করা হয়েছে সন্দেহভাজনদের তালিকা। পুলিশ তাদের জিজ্ঞাসাবাদও শুরু করেছে।



এস পি সাধনা গোস্বামী জানান, ‘এ রকম চুরির ইতিহাস যাদের আছে বা যাদের আমরা সন্দেহ করছি, তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছি আমরা। আশা করছি, তা থেকে আমরা তদন্তের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সূত্রও পাব।’



চুরির প্রায় ৪০ ঘণ্টা পর গতকাল বিকেলে পুলিশ জানায়, চুরি যাওয়া মহিষগুলোর মধ্যে কয়েকটিকে তারা উদ্ধার করেছে। এখন এগুলোই আজম খানের হারানো মহিষ কি না, তা মিলিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে পুলিশের মহিষ-খোঁজা নিয়ে পুরো ভারতের সংবাদমাধ্যমে শুরু হয়ে গেছে তুমুল ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও সমাজবাদী পার্টিরই সাবেক নেতা অমর সিংও আজম খানের সমালোচনা করেছেন। অমর সিং বলেন, ‘আজম খানকে আপনারা কী ভাবেন? উত্তর প্রদেশ তথা গোটা ভারতে মুসলিম ভোট ব্যাংকের একমাত্র মসিহা (ত্রাতা) তিনি। ভোটে সমাজবাদী পার্টির ধস ঠেকাতে পারলে একমাত্র তিনিই পারবেন।’



তবে অমর সিংয়ের যুক্তি, ‘পুলিশ তো উনার মহিষ খুঁজবেই। কারণ, খাস আদমির মহিষ কিন্তু আম আদমির ছেলেপুলের চেয়েও অনেক দামি!’

আজম খান অবশ্য এসব প্ররোচনায় গা না দিয়ে পুলিশি অভিযান নিয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেননি।

তবে তাঁর অনুসারীরা জানিয়েছেন, প্রিয় মহিষগুলোর খোঁজ মিলল কি না তা নিয়ে মন্ত্রী সারাক্ষণ পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলছেন এবং তাদের উত্সাহ দিয়ে যাচ্ছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

মেসির হাতে উঠলো সপ্তম ব্যালন ডি’অর

ওমিক্রন রোধে বেনাপোল বন্দরে সর্বোচ্চ সতর্কতা

এসএসসি পাস ছাড়া বিমা পেশায় ঢোকার পথ বন্ধ

‘মাইনু আয়, তোরে ভালো কলেজে ভর্তি করামু’

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: দুই আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

পদত্যাগ করলেন টুইটারের প্রধান নির্বাহী জ্যাক ডরসি

মা-বাবার পরে চেয়ারম্যান হলেন মেয়ে

যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছেন বুবলিও

খালেদা জিয়ার জন্য বিদেশ থেকে চিকিৎসক আনতে পারবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সিনহা হত্যা মামলা : ৮ম দফায় প্রথম দিনেও তদন্তকারী কর্মকর্তার জেরা অসমাপ্ত

ওমিক্রন : ভারতের উচ্চ ঝুঁকির তালিকায় বাংলাদেশ

বিএনপির শেখানো কথা বলছেন চিকিৎসকরা : তথ্যমন্ত্রী