মঙ্গলবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বাতিলের সংখ্যা বেশি, প্রার্থিতা ফিরে পেলেন ১৯ জন

news-image

দ্বিতীয় দিনের মতো দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে বাদ পড়া প্রার্থীদের প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আপিল আবেদনের ওপর শুনানি চলছে। দিনের প্রথম ভাগে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন ১৯ জন। এছাড়া শুনানিতে ২০টি আপিল আবেদন নামঞ্জুর করেছে ইসি। আরে পেন্ডিং আছে পাঁচটি আপিল আবেদনের রায়।

আজ সোমবার সকাল ১০টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশনে দ্বিতীয় দিনের শুনানি শুরু হয়। যা চলবে আগামী ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালের সভাপতিত্বে শুনানিঅনুষ্ঠিত হচ্ছে।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) আইন শাখার দেওয়ার তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রাম-১০ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ফরিদ মাহমুদ, ঢাকা-১৪ আসনের তৃণমূল বিএনপি মো. নাজমুল ইসলাম, ময়মনসিংহ-১১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াহেদ, কুষ্টিয়া-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রউফ, মুন্সিগঞ্জ-২ আসনের সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের নূরে আলম সিদ্দিক, রংপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র মোছা. সুমনা আক্তার, ঢাকা-৫ আসনের সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের নুরুল আমিন, বাগেরহাট-২ আসনে জাতীয় পার্টির হাজরা সহীদুল ইসলাম, গাইবান্ধা-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোছা. মাছুমা আখতার প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন।

এছাড়াও কুমিল্লা-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবদুল মজিদ, ঢাকা-১৯ আসনের বিএসপি’র মো. জুলহাস, ঢাকা-১২ আসনের বিএনএফ’র মো. আতিকুর রহমান নাজিম, রাজবাড়ী-২ আসনে তৃণমূল বিএনপির এসএম ফজলুল হক, নোয়াখালী-১ আসনে স্বতন্ত্রী প্রার্থী খন্দকার আর আমিন, বাগেরহাট-২ আসনে তৃণমূল বিএনপি মরিয়ম সুলতানা, জামালপুর-৪ আসনে বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের তারিক মাহদী, ঢাকা-৬ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারহানা সাঈদ, বাগেরহাট-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী এসএম আজমল ও বাগেরহাট-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জামিল হোসেনও প্রার্থিতা ফিরে পেলেন।

জানা গেছে, আগামী ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত নির্বাচন ভবনের অডিটোরিয়াম (বেজমেন্ট-২) এ আপিল আবেদনের শুনানি প্রতিদিন সকাল ১০টায় শুরু হয়ে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। আজ সোমবার ৯৫ থেকে ২০০ নম্বর আপিল, ১২ ডিসেম্বর ২০১ থেকে ৩০০ নম্বর আপিল, ১৩ ডিসেম্বর ৩০১ থেকে ৪০০ নম্বর আপিল, ১৪ ডিসেম্বর ৪০১ থেকে ৫০০ নম্বর আপিল এবং ১৫ ডিসেম্বর ৫০১ থেকে অবশিষ্ট আপিলের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

এবার প্রার্থিতা বাতিল হওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থীদের অন্যতম সমস্যা এক শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষর জোগাড়ে ব্যর্থ হওয়া। এজন্য অনেক প্রার্থী তাদের সমর্থক নিয়েই ইসিতে হাজির হয়েছেন।

এবারের সংসদ নির্বাচনে ২৯টি দল ও স্বতন্ত্র মিলিয়ে দুই হাজার ৭১২ প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাছাইয়ে বাদ পড়ে ৭৩১ জন প্রার্থীর মনোনয়ন। তার মধ্যে ৫৬১ জন প্রার্থিতা ফিরে পেতে পুনরায় আবেদন করেছেন।

উল্লেখ্য, ১৫ নভেম্বর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। সে হিসাবে গত ৩০ নভেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। ওই দিন পর্যন্ত দুই হাজার ৭১৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। পরে চার ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রার্থিতা যাচাই-বাছাই শেষে এক হাজার ৯৮৫ জন প্রার্থীকে বৈধ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে ৭৩১ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র। পরে ৫ ডিসেম্বর থেকে ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রার্থীদের আপিল শুরু হয়ে চলে ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এই সময়ে ৫৬১ জন প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল করে। ১০ ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়ে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত আপিল শুনানি চলবে। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ১৭ ডিসেম্বর। রিটার্নিং কর্মকর্তারা প্রতীক বরাদ্দ করবেন ১৮ ডিসেম্বর। নির্বাচনি প্রচার চলবে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত। আর ভোটগ্রহণ হবে ৭ জানুয়ারি।

এ জাতীয় আরও খবর

রোহিঙ্গাদের জন্য ৬৯ মিলিয়ন ডলারের সহায়তা দিচ্ছে জাপান

আফগানিস্তানে দুই হাজার মানুষের সামনে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর

ওষুধ ও হার্টের রিংয়ের দাম কমাতেই হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

বুধবার ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না যেসব এলাকায়

সংরক্ষিত আসনের এমপিদের গেজেট প্রকাশ

দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন জনপ্রিয় অভিনেত্রীসহ ৯ জন

ভারতীয় বিমানবাহিনী প্রধানের সঙ্গে সশস্ত্র বাহিনীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারের সৌজন্য সাক্ষাৎ

গ্রামের মেধাবীদের জন্য বিশ্বমানের শিক্ষার পরিবেশ তৈরি হবে : পলক

ওবায়দুল কাদের বিএনপির বিকল্প স্থায়ী কমিটির সদস্য: রিজভী

বিদ্যুতে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বাড়ল ৭৫ পয়সা

‘পুলিশ জনগণের বন্ধু’ এটি প্রতিষ্ঠিত সত্য: প্রধানমন্ত্রী

পঙ্কজ উদাসকে কোনো দিন গোমড়া মুখে দেখিনি: রুনা লায়লা