শনিবার, ১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কোহিনূর হীরা ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি নেটিজেনদের

news-image

অনলাইন ডেস্ক : ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ গত বৃহস্পতিবার মারা যান। তার মৃত্যুর খবর আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে প্রচার হওয়ার পর মাক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে নতুন একটি ট্রেন্ড জনপ্রিয় হয়ে উঠে। হ্যাশট্যাগ #কোহিনূর দিয়ে দামি এই হীরার পাশাপাশি নিজেদের উপনিবেশগুলো থেকে ব্রিটিশদের লুট করা বিভিন্ন জিনিস নিয়ে কথা বলছেন নেটিজেনরা। কোনো কোনো নেটিজেন আবার একধাপ এগিয়ে কোহিনূর হীরাটি ভারতকে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিও করেছেন।

প্রয়াত রানির মুকুটে সংযুক্ত দামি এই রত্নটি ভারতকে ফিরিয়ে দেওয়া উচিত বলেও মনে করছেন অনেকে। কোহিনূর ছাড়াও আরও যেসব মূল্যবান রত্ন ব্রিটিশরা ‘লুট’ করেছিল সেগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- গ্রেট স্টার অব আফ্রিকা হীরা, টিপু সুলতানের আংটি, রোসেটা স্টোন এবং এলগিন মার্বেলস। খবর এনডিটিভির।

গ্রেট স্টার অব আফ্রিকা হীরা

এটি বিশ্বের বৃহত্তম হীরা এবং এর ওজন প্রায় ৫৩০ ক্যারেট- যার মূল্য আনুমানিক ৪০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। আফ্রিকার অনেক ইতিহাসবিদ মনে করেন, রত্নটি ১৯০৫ সালে খনন করে এডওয়ার্ড সপ্তম এর সামনে তুলে ধরা হয়েছিল। তাদের দাবি, ঔপনিবেশিক শাসনামলে ব্রিটিশ সরকার হীরাটি হয় চুরি করে বা লুট করে নিয়ে যায়। আফ্রিকার গ্রেট স্টার সার্বভৌমত্বের প্রতীক হিসেবে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ ব্যবহার করতেন।

টিপু সুলতানের আংটি

১৭৯৯ সালে ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে হেরে যাওয়ার পর টিপু সুলতানের আঙুল থেকে আংটিটি ব্রিটিশরা নিয়ে যায় বলে অভিযোগ। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, আংটিটি যুক্তরাজ্যে নিলামে প্রায় ১,৪৫,০০০ ব্রিটিশ পাউন্ডে এক অজ্ঞাত ব্যক্তি কিনে নেন।

রোসেটা পাথর

ঐতিহাসিকদের মতে, আঠারো শতকে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়ী হওয়ার পর বিখ্যাত পাথরটি ব্রিটেন অধিগ্রহণ করে। পাথরটি ১৯৬ খ্রিস্টপূর্বের। স্থানীয় সংবাদপত্রের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রত্নতাত্ত্বিকরা দাবি করেছেন তারা প্রমাণ করতে পারবেন রোসেটা পাথর ব্রিটেন চুরি করেছিল। ভারতীয়রা যেমন কোহিনূরকে ভারতে ফিরিয়ে দেবার দাবি করেছেন তেমনি মিসরীয়রাও পাথরটি দেশটিতে ফিরিয়ে নিতে চান। পাথরটি বর্তমানে ব্রিটিশ মিউজিয়ামে প্রদর্শিত হচ্ছে।

এলগিন মার্বেলস

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১৮০৩ সালে লর্ড এলগিন গ্রিসের পার্থেননের ক্ষয়প্রাপ্ত দেয়াল থেকে মার্বেলগুলো সরিয়ে লন্ডনে নিয়ে গিয়েছিলেন। এই কারণেই সেই মূল্যবান মার্বেলগুলোকে এলগিন মার্বেল বলা হয়। ১৯২৫ সাল থেকে গ্রিস তার মূল্যবান মার্বেলগুলোকে ফেরত চাইছে, কিন্তু মার্বেলগুলি এখনো ব্রিটিশ জাদুঘরে আছে।

এ জাতীয় আরও খবর

বয়স ৫০ পেরোলে শরীরচর্চার আগে খেয়াল রাখতে হবে যে বিষয় গুলো

শাকিব-বুবলীর বিবাহ বিচ্ছেদ?

নিজ কর্মীদের মেরে বিশৃঙ্খলার অপচেষ্ঠা চালানো বিএনপির উদ্দেশ্য: তথ্যমন্ত্রী

নিত্যপণ্যের বাজারে অস্থিরতা কমছে না

দেশব্যাপী গণতন্ত্র মঞ্চের দুই মাসের কর্মসূচি ঘোষণা

তিন বছর পর সুতারকান্দি স্থলবন্দর দিয়ে আসছে ভারতের কয়লা

দেশে ৮ মাসে ধর্ষণের শিকার ৫৭৪ কন্যাশিশু

৯ মাসে ৩৮৭ রাজনৈতিক সংঘাত, নিহত ৫৮

বিশ্বজুড়ে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে কলেরায় আক্রান্তের সংখ্যা

নোয়াখালীতে পিকআপ চাপায় পথচারী নিহত

যানজট এড়াতে বেঙ্গালুরুতে হেলিকপ্টার সেবা

বিশ্বকাপের প্রাইজমানি ঘোষণা, যত টাকা পাবে চ্যাম্পিয়ন দল