বৃহস্পতিবার, ২৮শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১২ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কসবায় বর পক্ষের লোকজনের আঘাতে কনের বাবা নিহত

news-image

কসবা (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) উপজেলা সংবাদদাতা : বিয়ের অনুষ্ঠানে টক দই পরিবেশন করাকে কেন্দ্র করে বিরোধের জের ধরে বরপক্ষের হামলায় কনের বাবা নিহত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কনের বাবা ইকবাল হোসেন (৫০)এর মৃত্যু হয়। তিনি উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়নের গণকমুড়া গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী জোসনা বেগম কসবা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে ইকবাল হোসেনের মেয়ে কারিমার সাথে পাশের বিষ্ণাউড়ি গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে পারভেজ মিয়ার বিয়ের দিন ধার্য ছিল। বরযাত্রী আসতে দেরি হওয়ায় তাদের খাবার আলাদা করে রাখা হয়। পরে বরযাত্রী আসার পর তাদেরকে খাবার দেয়া হলে দুইজন বরযাত্রী দই টক হয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে বয়োজ্যেষ্ঠরা বিষয়টি মীমাংসা করে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন।

নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, বুধবার রাত ১০টার দিকে গ্রামের বাজারে চা খেতে গেলে কনের বাবা ইকবাল হোসেনকে বরপক্ষের কয়েকজন যুবক দই টক হওয়া নিয়ে আবারো কটূ কথা বলেন। এ নিয়ে বাক-বিতণ্ডার এক পর্যায়ে ওই যুবকরা ইকবাল হোসেনকে মারধর করেন। এতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

কসবা থানা অফিসার ইনচার্জ মো: আলমগীর হোসেন ভূইয়া বলেন, বিয়ের খাবার নিয়ে বরপক্ষের মারধরে কনের বাবা আহত হন বলে জানতে পেরেছি। আহত অবস্থায় ইকবাল হোসেনকে স্থানীয়রা কসবা উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ইকবাল হোসেনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী জোসনা বেগম থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন জানিয়ে ওসি বলেন, তদন্ত ও ময়নাতদন্তের রিপোর্টের ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।