সোমবার, ২৬শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১১ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বর্তমানে ইমোর ব্যবহারকারী প্রায় ২০ কোটি

news-image

বর্তমান ডিজিটাল বিশ্বে বাড়ছে সাইবার ঝুঁকি। ক্রমবর্ধমান ঝুঁকি থেকে ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা দিতে নতুন কিছু ফিচার নিয়ে এসেছে যোগাযোগের জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম ইমো। এন্টি-ফ্রড সিকিউরিটি মেকানিজম সিস্টেমের মাধ্যমে ইমো ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা আরও বেশি নিশ্চিত হবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

ব্যবহারকারীরা ইমো থেকে যতবার ভেরিফিকেশন কোড পাবেন, এই নতুন অ্যান্টি-ফ্রড সিস্টেম ততোবার তাদেরকে সিকিউরিটি রিমাইন্ডার দিবে। এই রিমাইন্ডারের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে ব্যবহারকারীদের কোড অন্যদের সাথে শেয়ার করাকে প্রতিরোধ করা।

নতুন এ সুরক্ষা ব্যবস্থা মিউচুয়াল ফ্রেন্ড নয় এমন অপরিচিত কারও পাঠানো ইউআরএল, প্রিভিউ ও লিঙ্ক অকার্যকর করে দিবে। কন্ট্যাক্ট লিস্টে নেই এমন ওয়ান-ওয়ে ফ্রেন্ডদের ব্যাপারে ব্যবহারকারীদের সাবধান করতে চ্যাট পেজে সিকিউরিটি রিমাইন্ডার প্রদর্শিত হবে, যাতে করে ব্যবহারকারী সাবধান হতে পারেন এবং কোনো ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার না করেন।

ইমো’র ভাইস প্রেসিডেন্ট ক্রিস্টোফার শু বলেন, “আমরা সুরক্ষার বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করি এবং নিজেদের প্ল্যাটফর্মের যেকোন অপব্যবহারের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ দিয়ে লড়াইয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ইমো।”

তিনি আরও বলেন, “ক্রমবর্ধমান প্রযুক্তিজ্ঞানসম্পন্ন অপরাধীদের বিরুদ্ধে এ লড়াই নিরন্তর; আমরাও এক্ষেত্রে আমাদের বিনিয়োগ বৃদ্ধির পাশাপাশি দীর্ঘমেয়াদী এ সমস্যা সমাধানে শিল্পসংশ্লিষ্ট সহযোগী ও কর্তৃপক্ষের সাথে একসাথে কাজ করার ব্যাপারে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।”

নীতিমালা লঙ্ঘন করে আপত্তিজনক এমন সব কন্টেন্ট বিরুদ্ধে অবস্থানে নিজেদের প্রচেষ্টা জোরদার করেছে ইমো এবং এর ধারাবাহিকতায় প্রতিষ্ঠানটি এর কন্টেন্ট মডারেশন টিম সম্প্রসারণ করেছে।

ক্রিস্টোফার বলেন, “কন্টেন্ট কমপ্লায়েন্স নিশ্চিত করা আমাদের অন্যতম অগ্রাধিকারের বিষয়। আপত্তিজনক কন্টেন্টের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমরা স্থানীয় আইন মেনে এবং সংস্কৃতির সাথে সামঞ্জস্য রেখে কঠোর কমিউনিটি নীতিমালা ও নির্দেশনা তৈরি করেছি। শুধুমাত্র এ বছরের অর্ধেক সময়ে আমরা সর্বমোট ৫.১ কোটি আপত্তিজনক পোস্ট ও ৮ লাখ অ্যাকাউন্ট সরিয়ে ফেলেছি। এর মধ্যে মোট সাড়ে ৩ কোটি পাবলিক কন্টেন্ট ব্যবহারকারীরা দেখার আগেই সরিয়ে ফেলা হয়েছে।”

এছাড়া ইমো অশোভন বা অনুপযুক্ত যেকোন কন্টেন্ট শনাক্ত ও মডারেট করতে এআই-সমর্থিত সার্বক্ষণিক মাল্টি-স্টেপ কন্টেন্ট মডারেশন প্রক্রিয়া তৈরি করেছে বলেও জানান ক্রিস্টোফার।

প্রসঙ্গত, তাৎক্ষণিক যোগাযোগে বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্ম ইমো। বর্তমানে এর ব্যবহারকারী প্রায় ২০ কোটি।

এ জাতীয় আরও খবর

মাস্টার-সুকানির ‘অদক্ষতায়’ পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কা

টাইগারদের সিরিজ জয়ে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

দেশে করোনায় আরও ২২৮ জনের মৃত্যু

প্রতিবাদের মুখে নাটক প্রত্যাহার, ক্ষমা চাইলেন শিল্পী ও কলাকুশলীরা

প্রশিক্ষণের জন্য আড়াই হাজার কোটি টাকা চাচ্ছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়

ভাসানীর রাজনীতি থেকে আমাদের অনেক শেখার আছে: তথ্যমন্ত্রী

সীমিত পরিসরে চালু হচ্ছে বিআরটিএ’র সেবা কার্যক্রম

ফেসবুকে গুজব ছড়িয়ে তারা র‌্যাবের জালে ধরা

প্রথমবারের মত বিদেশে তিন ফরমেটে ট্রফি জয়

প্রাণে বাঁচতে কান্দাহারে ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে ২২ হাজার পরিবার

‘মাংস স্বাদ’ না হওয়ায় গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

২৯ বছর কোমায়, জ্ঞান ফিরেই ১৩০ কোটির মালিক!