রবিবার, ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফের বাড়ছে বাসের ভাড়া

news-image

অনলাইন ডেস্ক : যাত্রীদের সেবার মান বাড়ানোর লক্ষ্যে রাজধানীর বাসের নতুন রুটে কিলোমিটার প্রতি ৫০ পয়সা বাড়ানোর প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ে।

মঙ্গলবার নগর ভবনে রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানো এবং যানজট নিরসনে গঠিত বাস রুট র‌্যাশনালাইজেশন কমিটির ষোড়শ সভা শেষে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস সাংবাদিকদেরকে একথা জানান।

ঘাটারচর থেকে কাঁচপুর পর্যন্ত বাসে ভাড়ার বিষয়ে মেয়র তাপস বলেন, বিষয়টি বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) ওপর অর্পিত ছিল এবং তারা সেটা সম্পন্ন করেছে। বিআরটিএ এরই মাঝে প্রস্তাবিত রুটের ভাড়া নির্ধারণ কার্যক্রম সম্পন্ন করে তা মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করেছে। প্রতি কিলোমিটার ২ টাকা ২০ পয়সা হারে ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। এখন এতে মন্ত্রণালয়ের সম্মতি লাগবে, অনুমোদন লাগবে। আশা করছি, যেহেতু বিআরটিএ কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে মন্ত্রণালয়ও এটা নির্ধারণ করে দেবে।

ঘাটারচর থেকে কাঁচপুর রুটে ১ এপ্রিল থেকে বাস চালুর ঘোষণায় কোনো পরিবর্তন আসবে কি না- এই প্রশ্নে তাপস বলেন, আমরা আশাবাদী ১ এপ্রিল থেকে শুরু করতে পারব। বাসগুলো মেরামত করতে হবে। আমরা প্রক্রিয়াগত কাজগুলো আশা করছি সম্পন্ন করতে পারব। এরই মাঝে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে সহজ সুদে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ চেয়েছি। যেগুলো বাস মালিকদের দেয়া হবে, যাতে তারা এই কার্যক্রম করতে পারে। এরই মাঝে চিঠি দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর মৌখিকভাবে সম্মতি দিয়েছেন।

তাপস বলেন, এই রুটে যেসব জায়গায় বাস-বে হবে, যাত্রী ছাউনি হবে, সেই জায়গাগুলো নির্ধারণ করতে আমরা সক্ষম হয়েছি। যেসব জায়গায় বাস-বে এর জায়গা নির্ধারণ হয়েছে। আগামী এক মাসের মধ্যেই দরপত্র কার্যক্রম সম্পন্ন করে নির্মাণ কাজ শেষ করার দিকে এগিয়ে যাব।

ঘাটারচরে বাস রাখার স্থান নির্ধারণ প্রসঙ্গে মেয়র তাপস বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন এবং অন্যান্য কর্তৃপক্ষ সমন্বয় করে দুটি প্রস্তাব তৈরি করেছে। সে দুটো পর্যালোচনা করে অস্থায়ীভাবে বাস রাখার জায়গা স্থাপনের কাজ শুরু হবে। আমরা আশাবাদী যে, আমরা এই গতিতে যদি আগাতে পারি, তবে এ বছরের মধ্যেই পাইলটিংটা শেষ করতে পারব। এই পাইলটিংটা শেষ করার মাধ্যমে প্রথম ধাপটা এগিয়ে গেলেই বাকি রুটগুলো আমরা এই রুটের সাথে সন্নিবেশ করতে পারব বলে আশাবাদী। যাত্রাপথ আমাদের মসৃণ না। যাত্রাপথ অনেক সংকীর্ণ, অনেক সমস্যা রয়েছে। তবে আমরা ধীরে ধীরে আমাদের যাত্রা পথে এগিয়ে চলেছি।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলাম, বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার, বিআরটিসি চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম, ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমান, সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহসহ কমিটির সদস্যরা।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল

এ জাতীয় আরও খবর

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে প্রধানমন্ত্রীকে বিএনপির অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ

স্বাধীনতায় যার যা অবদান তার যথাযথ সম্মান দিতে হবে : মির্জা ফখরুল

পঞ্চম-দশম-দ্বাদশে প্রতিদিন ক্লাস, বাকিদের সপ্তাহে একদিন

স্বামীর মৃত্যুর খবর এখনো জানেন না ডা. শারমিন

দুর্গম পাহাড় থেকে বিচ্ছিন্ন দ্বীপ, ডিসেম্বরের সারা দেশে বিদ্যুৎ: নসরুল

মসজিদের সম্পত্তি দখলের চেষ্টা, মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

মিয়ানমারের ওপর বাইডেন প্রশাসনের অবরোধ চান মোমেন

রাত পোহালে পঞ্চম ধাপের পৌর ভোট

গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় রাজপথের বিকল্প নেই

বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে ৫জি চালু করতে যাচ্ছে : মোস্তাফা জব্বার

ছাত্রদের কাছে নগ্ন ছবি পাঠাতেন শিক্ষিকা, অবশেষে…

বেলুন ফুলানোর সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, পা বিচ্ছিন্ন ব্যবসায়ীর