শুক্রবার, ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফেসবুকে সুখী জুটি বাস্তবেও কি সুখী? নতুন সম্পর্কে জড়িয়ে যে ৭টি বিরক্তিকর কাজ করেন জুটিরা

news-image

ফেসবুক কিংবা নানা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সুখী জুটিদের বহু ছবি দেখা যায়। সেলফি, রোমান্টিক স্ট্যাটাস কিংবা ফেসবুকে নানা কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে তারা তাদের অবস্থান জানান। যদিও অনেকে সন্দেহ করেন, বাস্তবেও কি তারা এমন সুখী? এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে আইএএনএস।

সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, যারা সম্পর্কের নানা বিষয় নিয়ে ফেসবুকে ইতিবাচক পোস্ট করেন, তারা বাস্তবেও তাদের সম্পর্ক নিয়ে শ্রদ্ধাশীল। তারা তাদের সম্পর্কের বাঁধনকে সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করেন। এটা বাস্তবে তাদের সম্পর্কের প্রত্যয় প্রকাশ করে।
এ বিষয়ে ইউনিভার্সিটি অব হাউস্টনের গবেষণাটির প্রধান গবেষক মেই-লি স্টির বলেন, 'কারো সম্পর্কের বিষয়গুলো ফেসবুকে পোস্ট করা হতে পারে তাদের সম্পর্কের মানের সঙ্গে ইতিবাচকভাবে জড়িত। কারণ এতে তাদের সম্পর্কের বিষয়ে সবার মাঝে প্রত্যয় প্রকাশ পায়।'
এ গবেষণায় ১৮৮ জন শিক্ষার্থীর সম্পর্কের নানা বিষয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পরীক্ষা করা হয়। এতে দেখা যায়, যেসব অংশগ্রহণকারী ফেসবুকে ইতিবাচকভাবে তাদের সম্পর্কের বিষয়টি তুলে ধরেন তারা বাস্তবেও সম্পর্কের প্রতি ইতিবাচক মনোভাব পোষণ করেন এবং তাদের মানসিক সন্তুষ্টি বেশি।
গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে 'সাইকোলজি অব পপুলার মিডিয়া কালচার' জার্নালে।  

 

নতুন সম্পর্কে জড়িয়ে যে ৭টি বিরক্তিকর কাজ করেন জুটিরা 

নতুন সম্পর্কে জড়িয়েছেন? নতুন প্রেম নতুন ভালোবাসায় এক অভূতপূর্ব সময় যাচ্ছে দুজনের। এখন দিন-দুনিয়া একদিকে আর আপনারা দুজন অন্যদিকে। কিন্তু সমাজ-পরিবার-বন্ধুমহল থেকে মোটেও বিচ্ছিন্ন নন আপনারা। নতুন জুটিদের এ কথা ভুলে গেলে চলবে না। নতুন সম্পর্কে জড়িয়ে তারা এমন কিছু কাজ করেন যা অন্যের চোখে বিরক্তিকর হয়ে ওঠে। এখানে নিন এমনই ৭টি কাজের তালিকা।frends
১. শুধু দুজনই ঘুরে বেড়ান : দুজনের এই দারুণ সময় নিজেদের মতো উপভোগ করবেন তা ঠিক আছে। কিন্তু বন্ধমহল থেকে পুরোপুরি হারিয়ে যাওয়া ছেলেমানুষি কাজ বলে বিবেচিত হবে। নতুন প্রেমে জড়িয়ে অনেকেই বন্ধুদের কথা ভুলে যান। অথচ এসব বিষয়ে বন্ধুদের সাহায্যই সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন হয়। তাই আগের মতোই থাকুন এবং নিজেদের মতো আলাদা সময় বের করে নিন।
২. আমি হয়ে যায় 'আমরা' : জীবনের বিশেষ একটা সময় প্রিয়জনের সঙ্গে কাটাচ্ছেন, ঘুরতে যাচ্ছেন, সিনেমা দেখছেন, পার্কে বসে রয়েছেন ইত্যাদি। কাজেই আপনার একান্ত সময় এখন হয়তো নেই বললেই চলে। তবে আপনারও নিজস্ব ব্যক্তিত্ব, মতামত এবং চিন্তাধারা রয়েছে। এর থেকে দূরে সরে যাওয়া কখনোই সম্ভব নয়। কিন্তু নতুন প্রেম করতে গিয়ে সবকিছু থেকে 'আমি' বাদ দিয়ে সেখানে 'আমরা' করে নেওয়াটা কি যৌক্তিক? নিজের একান্ত মুহূর্ত বা ব্যক্তিস্বাধীনতা কখনোই জলাঞ্জলি দেওয়া যায় না। এ বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে।
৩. নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারানো : একসঙ্গে বহু সময় কাটাচ্ছেন এবং একে অপরের কাছে চলে আসছেন। কিন্তু সম্পর্কের গভীরতার সঙ্গে আপনি দ্রুত নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছেন। আপনার ঠোঁট-হাত প্রেমিকের নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে। এখন গোটা দেহ খুব দ্রুত নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে। এটা আপনার ব্যক্তিত্বের অংশ হতে পারে না। প্রেমিকও তার প্রেমিকার আকর্ষণ থেকে দূরে সরে থাকার চেষ্টা করেন না। দুজনের এই নিয়ন্ত্রণ না ধরে রাখার প্রবণতা ভালো কিছু নাও দিতে পারে। তাই এ বিষয়ে সচেতন হোন।
৪. গল্পে শুধু নিজেদের কথা : বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডায় আপনার মুখ খোলা মানেই নিজেদের গল্প শুরু করা। দুজন কোথায় গেলেন, কি করলেন, কি কি বললেন ইত্যাদি গল্পই আপনাদের জীবনের একমাত্র গল্প হয়ে ওঠে। এসব কথা অনেক সময়ই মাত্রাছাড়া হয়ে পড়ে যেখানে  গোপনীয়তা বলতে কিছুই থাকে না। তাই নিজেদের বিষয়ে কথা বলার সময় লাগাম টানুন।
৫. আপনারাই যেন একমাত্র… : নতুন প্রেমের জাদুকরি অনুভবে দুজন হারিয়ে যাবেন এটাই স্বাভাবিক। নিজেকে মনে হবে পৃথিবীর একমাত্র প্রেমিক বা প্রেমিকা। ছেলেটি নিজেকে সবচেয়ে সাহসী প্রেমিক বা মেয়েটি নিজেকে ডিজনি প্রিন্সেস বলে মনে করবেন। মনে হবে, আপনারাই পৃথিবীর সবচেয়ে পবিত্র প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন। কিন্তু ভুলে যাবেন না যে, আপনারা লক্ষ-কোটি জুটিদের মধ্যে একটি জুটি যারা তাদের মতোই জাদু অনুভব করছেন। তাই এই সম্পর্ককে কিভাবে আলো বিশ্বাস, আস্থা ও দায়িত্বশীলতার সঙ্গে এগিয়ে নেওয়া যায়, সেই চেষ্টায় মন দিন।
৬. দুজন অবিচ্ছেদ্য অংশ : বাড়ি থেকে বেরুনোর সময় দরজার চাবি, কিছু টাকা-পয়সা, পরিচয় তুলে ধরা যায় এমন কোনো কিছু, মোবাইল ইত্যাদি ঠিকমতো নিয়েছেন কিনা তা দেখে নিন। এভাবে প্রতি কাজে মনের মানুষটি রয়েছেন কিনা তা দেখে নেওয়ার প্রয়োজন কি রয়েছে? প্রেমিকের বুকে মাথা রেখে জীবনের প্রতিটি মুহূর্তই হয়তো কাটিয়ে দিতে চাইছেন। কিন্তু এমন নিশ্চয়ই নয় যে, কাছের বন্ধুর দাওয়াতে বা একাকী সময় কাটাতেও প্রিয় মানুষটিকে প্রয়োজন হবে। তাই প্রিয়জন জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হলেও সব কাজে যে তাকে সঙ্গে নিতে হবে, এমন কোনো কথা নেই।
৭. দুজনের অফুরন্ত সেলফি : নতুন জুটিদের আরেকটি বিষয় সত্যিই বিরক্তিকর হয়ে ওঠে যখন তাদের একের পর এক সেলফি ফেসবুকে উঠতে থাকে। অন্যের একই কাজ আপনাকেও বিরক্ত করে দেবে। কিন্তু নিজের সময় বুঝতে পারবেন না। জন্মদিন বা কোথাও ঘুরতে যাওয়া ইত্যাদি বিশেষ উপলক্ষে দুজনের সেলফি দারুণ হবে। কিন্তু দুজন কথা বলতে বলতে সেলফি তুলে ফেললেন, তা মানুষের কাছে দৃষ্টিকটু হয়ে উঠবে।
সূত্র : ইন্টারনেট