মঙ্গলবার, ১৭ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জাতির সামনে নতুন এক বিএনপি

news-image

হরতাল-অবরোধ কিংবা আন্দোলন কর্মসূচি থেকে বিরতি নিয়েছে বিএনপি। ৩ সিটি নির্বাচনে বিএনপির পরাজয় এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীদের বিতর্কীত বিজয়ের পরেও কোন ধরণের কর্মসূচি দেয়নি বিএনপি। অনেকের ধারণা ছিল ৩ সিটি নির্বাচনে ভোটজালিয়াতি, কারচুপি ও কেন্দ্র দখলের ঘটনার পর বৃহৎ এক আন্দোলনের ডাক দেবে বিএনপি। কিন্তু না, আন্দোলনে বিরতি নিয়েছে বিএনপি। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত ধ্বংসের রাজনীতি করে। তারা মানবতার শত্রু।

কিন্তু হরতাল-অবরোধ ও ধ্বংসের রাজনীতি থেকে রেরিয়ে এসে জাতির সামনে এ যেন এক নতুন বিএনপি। ধ্বংসের রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসছে বিএনপি। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বিএনপির আন্দোলন মানেই নতুন করে নেতাকর্মীদের মামলা ও পুলিশি নিপীড়নের মধ্যে পড়া। তাই আন্দোলন কর্মসূচিতে না গিয়ে বিএনপির উচিত দলকে গুছিয়ে তোলা।

কঠোর সমালোচনার মুখে বিএনপি এখন নিজেদের ভুলগুলোকে শুধরাতে দলকে ঢেলে সাজাতে মনযোগী হয়েছে। দলীয় একটি সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মাধ্যমে দলকে আবারো চাঙ্গা করতে প্রস্তুতি নিচ্ছে রাজনীতি পাড়ার এই বৃহৎ দলটি। একই সঙ্গে সুবিধাবাদী নেতাদের ব্যাপারেও সিদ্ধান্তে আসবে তারা।

আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে, বিএনপি মাঠে নেই বলে এই নয় যে ভবিষ্যতে তারা মাঠে আসবে না। তবে তারা আশঙ্কা করেছিলেন সিটি নির্বাচনে বিএনপির পরাজয়ের পর কঠোর আন্দোলনে আসবে বিএনপি। তবে বিএনপির ভবিষ্যত কর্মসূচির ব্যাপারে সদা প্রস্তুত রয়েছে আওয়ামী লীগ।

কিন্তু একেবারে যে বসে আছে বিএনপি তাও নয়। ৩ সিটি নির্বাচনে কারচুপির বিষয়ে থেকে থেকে সংবাদ সম্মেলনও করতে দেখা যাচ্ছে বিএনপি সমর্থিত সংগঠনগুলোকে। আদর্শ ঢাকা আন্দোলনের ব্যানারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেছেন, সম্প্রতি ৩ সিটি নির্বাচনের ভোট জালিয়াতির রেকর্ডপত্র প্রয়োজন হলে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে পৌঁছে দেবে আদর্শ ঢাকা আন্দোলন।

তবে দেশের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বলছেন, বিএনপিকে বিদেশি সহায়তার দিক থেকে নজর সরিয়ে এনে দেশের জনগণের সমর্থনের দিকে নজর দেয়া প্রয়োজন। দলকে সুসংগঠিত করে নিজেদেরকে আন্দোলনে নামতে হবে। কিন্তু তা অবশ্যই হতে হবে যৌক্তিক আন্দোলন

আমাদের সময়.কম

এ জাতীয় আরও খবর