রবিবার, ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আগে পাবলিক টয়লেটের ব্যবস্থা করতে হবে

news-image

প্রকাশ্য স্থানে মূত্রত্যাগ ঠেকাতে রাজধানী ঢাকার দেয়ালে আরবি ভাষা ব্যবহারের এক অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে ধর্মমন্ত্রণালয় ও সিটি করপোরেশন। এই সংবাদে বিবিসি বাংলার ফেইসবুক পেজে পাঠকরা বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন। সেখান থেকে কয়েকটি মন্তব্য তুলে ধরা হলো-

তাওহিদ হিমু : ‘পর্যাপ্ত টয়লেট ও শাস্তির ব্যবস্থা না করে মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিকে ব্যাপকভাবে ব্যবহার করা অনুচিত। এতে করে একটা সময় আরবি ভাষার প্রতি লোকের আবেদন কমে যাবে। এই বুদ্ধি সমর্থনযোগ্য হতো, যদি শহরের আনাচে-কানাচে পর্যাপ্ত পরিমাণ শৌচাগার থাকতো।’

আতিকুর রহমান : ‘চোরে না শুনে ধর্মের কাহিনি। যারা প্রকাশ্যে রাস্তায় দাঁড়িয়ে প্র¯্রাব করে তাদের ধরে তিন, চার বা সাত রাস্তার মোড়ে দাঁড় করিয়ে ৫-১০টা বেতের বাড়ি দিলেই এ অপকর্ম বন্ধ হবে, নচেৎ নয়।’

সুজন কামরুজ্জামান : ‘মানুষ কেন রাস্তায় প্রস্রাব করে? জায়গা না পেয়ে। তাহলে আগে পর্যাপ্ত পাবলিক টয়লেট-এর ব্যবস্থা করা উচিত।’

রিপন শেখ : ‘পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা ইমানের অংঙ্গ। শুধু আরবি লিখে রাখলেই হবে না, সবার আগে পাবলিক টয়লেটের ব্যবস্থা করতে হবে।’

আরেফিন আইয়ুব : ‘আরে ভাই, কোনো কিছুতেই কাজ হবে না। আগে বেশি বেশি করে পাবলিক টয়লেট বানাতে হবে।’

রিজাউল ইসলাম : ‘এ সকল উদ্ভট কু-বুদ্ধি কোথা থেকে মাথায় আসে। এতে আরো আরবি ভাষার অবমাননা হবে। যারা প্রস্রাব করে তারা আরবি লেখা দেখে থেমে থাকবে না। ঢাকা মেগাসিটি তাই জনসংখ্যার দিক হিসাব করে বিভিন্ন স্থানে উন্নত শৌচাগারের ব্যবস্থা করলেই হয়।’

সোলাইমান সরকার : ‘ভাই এক সময় মানুষ পুলিশকে খুব ভয় পেত কিন্তু এখন সেটা গা-সহা হয়ে গেছে। সুতরাং, আরবিতে দেয়াল লিখনে কিছুদিন হয়ত ভাল ফল পাওয়া যেতে পারে কিন্তু তার পর যে লাউ সেই কদুই থাকবে।’

এইচ এম সিরাজ : ‘আরবি ভাষা পবিত্র কোরআনের ভাষা, এই পবিত্র ভাষা নিয়ে কোনো প্রকার ষড়যন্ত্রমূলক কৌশল বরদাস্ত করা হবে না। বাংলার খোদাভীরু কোটি কোটি মুসলমান তা বরদাস্ত করবে না। কারণ, যে ভাষা দিয়ে প্রতিদিন কোরান তেলাওয়াত করি, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করি এবং মৃত মানুষের সর্বশেষ দোয়াসূচক জানাজার নামাজ পড়ি। তাই অবিলম্বে এই পদ্ধতি বাতিল করা হোক।’

শেখ মোহাম্মদ আদনান : ‘বাংলাদেশ নাকি ধর্ম নিরপেক্ষ দেশ, তাহলে হিন্দি বা ইংলিশ অথবা বাংলা ভাষা ব্যবহার না করে আরবি ভাষা কেন ব্যবহার করছে সিটি করপোরেশন? উদ্দেশ্য কী ? আর ধর্ম মন্ত্রণালয় কি ঘাস খায় না কি? ধর্মীয় অনুভূতিকে আঘাত করে এমন পদক্ষেপ কেমনে নেয়? সে যে ধর্মই হোক পারলে রাজধানীতে বিনামূল্যে পয়ঃনিষ্কাষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করুন।’

এম ডি আরিফুজ্জামান : ‘ও তাই নাকি! বিপদে পড়ে আরবি লিখন। কখনও আরবি শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব নেই। বিপদে পড়লে আল্লাহর নাম স্মরণ কর। আর ব্লগাররাতো ইচ্ছে করে লেখার গায়ে প্রস্রাব করবে।’

আকরাম হোসাইন আকরাম : ‘এই লেখার সামনে যদি প্রস্রাব করা হয় আমি মনে করি, সমস্যা নেই। কারণ, সৌদি আরবের টয়লেটে ও টিস্যু পেপারে এমন কী কন্ডমেও আরবি লেখা থাকে।’

এম ডি নাসির উদ্দিন নাসির : ‘এইটা একটা বোকামি। অনেকে রাতের আঁধারে পথ চলতে প্রস্রাব করলে এর দায়ভার কে নেবে?’

ফয়সাল সিকদার : ‘টাকা-পয়সায় আরবি লেখা চালু করুক। তাহলে টাকা দিয়ে কোনো অন্যায় হবে না। যত্তসব মূর্খ ছাগলের আইডিয়া।’

মিনহাজ রুবেল : ‘আইডিয়াটা দারুণ। কাজ হলেও হতে পারে।’

নুর মোহাম্মদ তালুকদার : ‘ভাল সিদ্ধান্ত। কিন্তু আগে ভালো ব্যবস্থা করতে হবে, নইলে এই জরুরি কাজ কোথায় সারবে?’

আউট অব ফোকাস : ‘যাই করেন না কেন বুঝে শুনে করেন। তবে আরবি ভাষা এবং আরবি লেখার অবমাননা যেন না হয়।’

আশরাফুল আলম আরিফ : ‘এতো দেখছি পিকে ছবির বাস্তব প্রয়োগ। ভগবানের ছবি গালে লাগিয়ে চড়-থাপ্পড় থেকে বাঁচার মতো!’

নীল আপন : ‘পয়ঃনিষ্কাসনের টাকা মেরে খাবে আর প্রস্রাব ঠেকাবে আরবি দিয়ে, এটা কি নির্বাচনের অঙ্গীকার ছিল?’

নবীন সাদিক : ‘এদেশে ফেসবুক-এ কমেন্ট, লাইক, শেয়ার ও স্ট্যাটাস যে কোনোটির জন্য জেল হয়। সুতরাং, কী কমেন্ট করবো, ভাষা পাই না।’

মোহাম্মদ হাসিব : ‘সব কিছুতে তো জনগণ ট্যাক্স দেয়, প্রসাব করতে সরকারি পাবলিক টয়লেট থেকে টাকা না নিলেই বা কী ক্ষতি হয়ে যাবে সরকারের। অনেকটা সমাধান হয়ে যেত।’

শরীফ খান : ‘প্রস্রাব মানুষ রাস্তা ঘাটে শখ করে করে না। বাথরুম এর সঙ্কট বলেই। মুর্খ মানুষ রা এমন কথা বলে, আরবি লেখা বাদ দিয়ে পাবলিক টয়লেট বানান।’

মেহেদি হাসান : ‘হেব্বি আইডিয়া। আরে ভাই কী মুসলমান কী অন্য ধর্ম প্রকাশ্যে প্রস্রাব করা যাবে না।’

তুহিন চৌধুরী : ‘এসব না করে মাঝে মাঝে গণপ্রস্রাবখানা তৈরি করা প্রয়োজন।’

এমডি সুমন হাওলাদার : ‘শুধু রাজধানী নয় সকল শহর এলাকার দেয়ালে লেখা দরকার।’

এইচ জাকারিয়া বিন নুর : ‘আমার মনে হয় এ কাজটি করা ঠিক হয়নি, কারণ কোরআনের ভাষা আরবি, রাসুলের ভাষা আরবি, কবরের ভাষা আরবি, এতে আরবি ভাষার অবমাননা করা হলো। এটা ঠিক নয়।’

সূত্র : বিবিসি বাংলার ফেইসবুক পেইজ থেকে সংগৃহীত

 

এ জাতীয় আরও খবর

‘দাদাগিরি’র গ্র্যান্ড ফিনালেতে নাচলেন সৌরভ-ডোনা

ফাঁকিবাজ শিক্ষকদের শাস্তিযোগ্য বদলি প্রয়োজন: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী

আমি কোন সার্জারি করিনি, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা: সাফা কবির

বড় পরিবর্তন আসছে এনটিআরসিএতে, থাকছে না নিবন্ধন পরীক্ষা

ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে ফিলিস্তিনি কিশোর নিহত

বজ্রপাতে মাঠেই পুড়লো কৃষকের ধান

গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ সেবনে বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি’

নওগাঁয় ঝরে পড়া আম বিক্রি হচ্ছে ২ টাকায়

সিভিল কেস ‘বেগুন ক্ষেতের মতো’, এটা পরিবর্তন করতে হবে

‘পানি সংকটে’ রাজশাহীতে কমেছে গমচাষ

ভোটগ্রহণের দিনে নির্বাচন স্থগিতের নির্দেশ আদালতের

তালাক দেওয়ায় স্ত্রীর ‘আপত্তিকর’ ছবি ফাঁস করলেন স্বামী