বুধবার, ২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিতর্কিত আম্পায়ারদের পক্ষে আইসিসির সাফাই

68595_f4আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বাংলাদেশ-ভারত কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে বিতর্কিত ‘নো’ বল নিয়ে অবশেষে মুখ খুলেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। বিষয়টিতে মাঠের দুই আম্পায়ার আলিম দার ও ইয়ান গোল্ডকেই সমর্থন জানিয়েছে সংস্থাটি। আইসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভিড রিচার্ডসন গতকাল একটি বিবৃতির মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া জানান। এ প্রতিক্রিয়ায় তিনি ক্রিকেট খেলার ‘স্পিরিট’-এর প্রসঙ্গ তোলেন। ‘নো’ বলের সিদ্ধান্তটি ফিফটি ফিফটি ছিল। খেলাটির ‘স্পিরিট’ বলে, আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত এবং এটাকে অবশ্যই সমীহ করতে হবে।’ আম্পায়াররা বিশেষ কোন উদ্দেশ্য নিয়ে নেমেছিল বলে যে অভিযোগ ওঠে, বিবৃতিতে সেটা উড়িয়ে দেন রিচার্ডসন। ২০১৫ বিশ্বকাপকে রোমাঞ্চকর উল্লেখ করে তিনি এর শেষ ভাগটা উপভোগ করার আহ্বান জানান সবাইকে। পাশাপাশি দায়িত্বশীল কাউকে এ নিয়ে মন্তব্য না করার অনুরোধ জানায় আইসিসি। গত শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ভারতের কাছে ১০৯ রানে হারে বাংলাদেশ। টস জিতে ব্যাট করতে নামা ভারতের ইনিংসের ৪০তম ওভারে বিতর্কিত সিদ্ধান্তটি দেন আম্পায়ার আলিম দার ও ইয়ান গোল্ড। ওভারের চতুর্থ বলটি ফুলটস দিয়েছিলেন রুবেল হোসেন। বলটিতে বাউন্ডারি মারতে গিয়ে ডিপ মিড উইকেটে ইমরুল কায়েসের কাছে ক্যাচ দেন ভারতের রোহিত শর্মা। তবে বলটি কোমরের ওপরে ছিল দাবি করে ‘নো’ বলের সিদ্ধান্ত দেন ইংল্যান্ডের আম্পায়ার ইয়ান গোল্ড। গোল্ড তখন ‘নো’ ডাকলে বিস্ময়ে হতবাক হয়ে যান বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। টিভি রিপ্লে দেখে মনে হয়েছে বলটি কোমরের ওপরে ছিল না। তখন ধারাভাষ্য দিতে থাকা শেন ওয়ার্নও বিষয়টি নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেন। আম্পায়ারদের এ সিদ্ধান্ত নিয়ে পরে ক্রিকেট পণ্ডিতদের অনেকেই সমালোচনা করেন।

মুস্তফা কামালের মন্তব্যের সমালোচনা

আম্পায়ারদের নেয়া কিছু বিতর্কিত সিদ্ধান্তে ভারতের কাছে হেরে যাওয়ায় কোটি বাংলাদেশীর সঙ্গে আশাহত হয়েছেন আইসিসি প্রেসিডেন্ট সংসদ সদস্য আ হ ম মুস্তফা কামাল। বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার সর্বোচ্চ চেয়ারে বসেও নিজের আবেগ ধরে রাখতে পারেননি। তিনি আম্পায়ারিংয়ের সমালোচনা করে বলেন, আম্পায়াররা পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী এরকম করেছে কিনা আইসিসি তা খতিয়ে দেখবে। তারা যা করেছে তা মানবীয় ভুল বলা যায় না। ইচ্ছাকৃত না হলেও এগুলো স্বচ্ছ ছিল না। আম্পায়ারিংয়ের কোন মানই ছিল না।

প্রয়োজনে আইসিসির সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করার কথাও হুমকি দেন তিনি। মুস্তফা কামালের এমন মন্তব্যে নাখোশ আইসিসি। গতকাল বিবৃবিতে আইসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভিড রিচার্ডসন বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচের আম্পায়ারিং নিয়ে আইসিসির সভাপতি এবং বাংলাদেশের সংসদ সদস্য আ হ ম মুস্তফা কামালের করা মন্তব্যকে দুঃখজনক বলে আখ্যা দেন। ‘আইসিসি মুস্তফা কামালের মন্তব্য লক্ষ্য করেছে, যেটা খুবই দুঃখজনক। কিন্তু এটা তার ব্যক্তিগত অভিমত। সংগঠনটির সভাপতি হিসেবে আইসিসির ম্যাচ কর্মকর্তাদের (আম্পায়ার) সমালোচনা করায় তার আরও সতর্ক হওয়া উচিৎ ছিল। তাদের (আম্পায়ারদের) সততা নিয়ে প্রশ্ন তোলা যাবে না এটিই ক্রিকেটের মূল চেতনা।

এ জাতীয় আরও খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কোরবানীর হাটে জন্য প্রস্তুত খামারিরা,শেষ সময়ে পরিচর্যায় ব্যস্ত

নতুন নোট বাজারে আসছে বুধবার

শিগগিরই ৫-১২ বছরের শিশুদের করোনার টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

এক দিনে রেকর্ড ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

বিষাক্ত হলুদ ধোঁয়ায় ঢেকে গেল জাহাজ! মুহূর্তে ১২ জনের মৃত্যু

বিয়ের আসরে কনের পা ছুয়ে প্রণাম বরের!

বিশ্বের সব স্বৈরাচারকে টেক্কা দিয়েছে আওয়ামী সরকার : ফখরুল

আসছে ‘ডিজিজ এক্স’! অজানা রোগের মহামারীর শঙ্কা বিজ্ঞানীদের

রেসলিংয়ের মঞ্চে আরব নারী!

শ্রীলঙ্কায় এবার পেট্রল বিক্রি বন্ধ

পদ্মা সেতুর টোল প্লাজার বেরিয়ারে বাসের ধাক্কা

গাড়ি আমদানিতে চট্টগ্রাম বন্দরকে পেছনে ফেলল মোংলা‍