সোমবার, ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চলতি মাসেই আশুগঞ্জে নতুন দুটি বিদ্যুৎ ইউনিট উৎপাদনে আসছে

Brahmanbaria Pic-01নিজস্ব প্রতিবেদক : চলতি মাসেই উৎপাদনে যাচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর ২২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট এবং ২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন মডিওলার পাওয়ার প্লান্ট। ফলে গ্রীষ্ম মৌসুমের আগেই জাতীয় গ্রীডে যোগ হতে যাচ্ছে আরো ৪শ ২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। যা দেশের বিদ্যুতের চাহিদা পূরণে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।
গ্যাস ভিত্তিক এই দুটি বিদ্যুৎ ইউনিট থেকে চলতি মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময়ে বাণ্যিজিকভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হতে পারে বলে জানিয়েছে পাওয়ার স্টেশনের কর্মকর্তারা।
আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, ২২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লাল্টের নির্মান কাজ শুরু হয় ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। গত বছরের অক্টোবর মাসে এর উৎপাদন শুরু হওয়ার কথা থাকলেও চলতি মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময়ে এটি উৎপাদনে যাচ্ছে। প্রায় ২ হাজার ১শ ৫০ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত হচ্ছে এই কেন্দ্রটি।
আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানী সূত্র জানায়, আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের অনুকুলের গ্যাস দিয়েই ২২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্রেটি চলবে। এর জন্য নতুন করে গ্যাস বরাদ্দের প্রয়োজন পড়বে না।
Brahmanbaria Pic-02সরকারী ও বে-সরকারী অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন মডিওলার পাওয়ার প্লান্টটির নির্মান কাজ শুরু হয় ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে। চলতি ২০১৫ সালের মে মাসে এটি উৎপাদনে আসার কথা থাকলেও নির্ধারিত সময়ের আগে চলতি মার্চ মাসেই কেন্দ্রটি বানিজ্যিকভাবে উৎপাদনে আসবে।
ইতিমধ্যেই কেন্দ্রটির ২০টি গ্যাস ইঞ্জিনের মধ্যে ১০টি গ্যাস ইঞ্জিন থেকে পরীক্ষামূলক বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হয়েছে। বাকী ১০টি গ্যাস ইঞ্জিন চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে উৎপাদনে শুরু করবে। প্রায় ৫শ কোটি টাকা ব্যায়ে এই বিদ্যুত কেন্দ্রটি নির্মিত হচ্ছে।    
জানা  গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর নিজস্ব ৯টি ইউনিট রয়েছে। যার উৎপাদন ক্ষমতা ৭৭৮ মেগাওয়াট।  পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর অভ্যন্তরে ১৩শ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন আরো ৪টি নতুন ইউনিট নির্মাণের কাজ একযোগে শুরু হয়। এর মধ্যে দুটি হচ্ছে ২২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লাল্ট এবং ২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন মডিওলার পাওয়ার প্লান্ট। চলতি মাসে এই দুটি ইউনিট থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন হওয়ার কথা রয়েছে। এই দুটি ইউনিট চালু হলে জাতীয় গ্রীডে যোগ হবে আরো ৪শ ২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ।
নতুন ২টি ইউনিটের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী অজিত কুমার সরকার জানান ২২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট ও ২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন মডিওলার পাওয়ার প্লান্টের কাজ শেষ হয়েছে। ইতিমধ্যে এই বিদ্যুৎ ইউনিট দুটির পরীক্ষামূলকভাবে উৎপাদন শুরু হয়। চলতি মাসেই বাণিজ্যিক ভাবে এর উৎপাদন শুরু হবে। এতে জাতীয় গ্রীডে নতুন করে যোগ হবে ৪২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ।
এ ব্যাপারে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর ব্যবস্থপনা পরিচালক প্রকৌশলী নুরুল আলম বলেন, চলতি মাসেই ইউনিট দুটি উৎপাদনে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। ইতিমধ্যেই পরীক্ষামূলক উৎপাদন শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, ইউনিট দুটি চালু হলে জাতীয় গ্রীডে ৪২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যোগ হবে। দেশের বিদ্যুতের চাহিদা পূরণে এই বিদ্যুৎ বিশেষ ভূমিকা রাখবে। তিনি বলেন, আশুগঞ্জে আরো বেশ কয়েকটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মানের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার।
উল্লেখ আশুগঞ্জে বে-সরকারী পর্যায়ে ৮০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন এগ্রিকো পাওয়ার, ৫৩ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন ইউনাইটেড পাওয়ার, ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন পিসিশন এনার্জি লিঃ এবং ৫১ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন মিডল্যান্ড আইপিপি পাওয়ার প্লান্ট রয়েছে।