সোমবার, ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৫

64991_f6ডেস্ক রির্পোট : চট্টগ্রামের বাঁশখালীর সাধনপুর ইউনিয়নের লটমণি পাহাড়ে জঙ্গিদের আস্তানার সন্ধান পেয়েছে বলে দাবি করেছেন র‌্যাব সদস্যরা। ঘটনাস্থল থেকে তারা ৫ জঙ্গিসহ বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করার কথা জানিয়েছে। 

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মূলত এটি একটি জঙ্গি প্রশিক্ষণ ক্যাম্প। শনিবার বিকাল ৫টা থেকে রোববার ভোর সাড়ে ৪টা পর্যন্ত সেখানে অভিযান চালায় র?্যাব সদস্যরা। এই সময় ধরা পড়েন ওই ৫ জন। একপর্যায়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তারা র‌্যাবকে জানান, পাহাড়ের মাটির নিচে কয়েকটি প্লাস্টিকের ড্রাম রয়েছে। এসব ড্রামের ভেতর রয়েছে বিপুল পিস্তলের গুলি। রয়েছে প্রশিক্ষণসামগ্রী। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিদের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলো- টাঙ্গাইলের গোপালপুরের আমিনুল ইসলাম হামজা, ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গার মোবাশ্বর হোসেন, ময়মনসিংহের আবদুল খালেক হুরাইরা, মির্জাপুরের হাবিবুর রহমান ও গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ার আমির হোসেন। 

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব সদস্যরা আরো জানান, বিপুল পরিমাণ উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে একটি রিভলবার, ৬টি একে-২২ রাইফেলের ম্যাগাজিন, ৩টি একে-২২ রাইফেল, ২টি চাপাতি, ৭৫১টি গুলি, ৬টি বিদেশী পিস্তল, ৩৮টি ট্র্যাক সুট,  মোটা রশি ও ১০ জোড়া জুতা। 

জানতে চাইলে র?্যাব সদর দপ্তরের লিগ্যাল ও মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ বলেন, জঙ্গিরা এখানে পশুপালনের আড়ালে প্রশিক্ষণ ক্যাম্প চালু করেছিলো। রাত হলে প্রশিক্ষণ নিতো দলবেঁধে। ১৯৯১ সালের পর থেকে এখানে জঙ্গি ক্যাম্প রয়েছে। বিষয়টি এতোদিন আড়ালে ছিলো। 

তিনি জানান, পাহাড়ে প্রশিক্ষণ ক্যাম্প থেকে ৩ কিলোমিটারের ভেতর কোন বাড়িঘর নেই। আর সেই কারণে জঙ্গিরা সহজে এখানে প্রশিক্ষণ দিতে পারতো। মৌলভী আজিজ ও মৌলভী মোবারক নামের দুই ব্যক্তির দখলে ছিলো আস্তানাটি। গ্রেপ্তারকৃতদের বাঁশখালী থানায় স্থানান্তর করা হবে। 

র‌্যাবের কয়েকজন কর্মকর্তা জানান, বাঁশখালীর সাধনপুরের লটমণি পাহাড়ে মানুষের বসতি কম। এর আগে চলতি মাসের ১৯শে ফেব্রুয়ারি হাটহাজারী থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ১২ জনকে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এখানকার কথা জানা যায়। গতকাল গ্রেপ্তার হওয়া সবার বয়স ২০ থেকে ২৫-এর মধ্যে। ২০১০ সালে পাহাড়টি সংরক্ষিত বনাঞ্চলের আওতায় নেয়া হয়। এরপর সেখানে কমে যায় মানুষের চলাচল।