মঙ্গলবার, ২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিশ্বের সবচাইতে অদ্ভুত, বিচিত্র ও অত্যন্ত সুস্বাদু ১০ খাবার !

ডেস্ক রির্পোট : ‘আমরা খাবার কেন খাই?’ এই প্রশ্নের উত্তরে সকলেই বলবেন, ‘আমাদের দেহের বৃদ্ধি, শরীরে পুষ্টি যোগানো এবং জীবন যাপনের জন্য’। তবে বিশ্বজুড়ে খাদ্যপ্রেমী মানুষের সংখ্যা নেহাত কম না। সম্ভবত মানুষের প্রথম প্রেমটাই হচ্ছে খাবার। কিন্তু ভেবে দেখুন তো, শুধুমাত্র সুস্বাদ পেতে আপনি কি কখনো মুখে তুলতে পারবেন ১০০ বছরের পুরনো ডিম কিংবা ডুবো তেলে ভাজা মাকড়শা? টিকটিকির শুঁটকি কিংবা পিঁপড়ার ডিম? ভীষণ সুস্বাদু হলেও কি পারবেন এসব খেতে?

যদি পারেন তবে আপনার ঘুরে আসা উচিৎ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এবং স্বাদ নেয়া উচিৎ এই সকল অদ্ভুত খাবারগুলোর। আর যদি এই খাবারগুলো খেতে না চান, তবে শুধু দেখে নিন বিশ্ব জুড়ে বিভিন্ন দেশের মানুষ যে অদ্ভুত ধরণের খাবার খেয়ে থাকেন তার একটি তালিকা। আর হ্যাঁ, এগুলো কিন্তু অত্যন্ত সুস্বাদু হিসাবেই সুপরিচিত।

 

w1(১) মুচমুচে টারান্টুলা, কম্বোডিয়া


বিকেলের নাস্তায় স্ন্যাকস হিসেবে তেলে ভাজা মুচমুচে পাকোড়া খেতে আমরা সকলেই ভালোবাসি। কিন্তু কম্বোডিয়ার মানুষজনের কাছে স্যাকস হিসেবে জনপ্রিয় তেলে ভাজা মুচমুচে টারান্টুলা মাকড়শা।

 

 

 

 

 

 

 

 


(২)সেঞ্চুরি এগ, চীনw2

ভিটামিন ও প্রোটিনের উৎস ডিম আমরা সকালের নাস্তা হিসেবেই খেয়ে থাকি। অনেক সময় ডিম দিয়ে তৈরি নানা পদ খুব মজা করেই খাই আমরা। কিন্তু চীনাদের কাছে ডিমের এক অদ্ভুত পদ রয়েছে। ১০০ বা তার বেশি বছর ধরে চীনামাটি, ছাই ও কাদায় প্রিজার্ভ করে রাখা ডিম সেদ্ধ। ১০০ বছরে সেই ডিমটি হয়ে যায় কালো রঙের।

 

 

 

 

 




(৩) এস্কামোলস (পিঁপড়ার ডিম), মেক্সিকোw3

বিশাল বড় বড় আকারের রাগী লিওমেটোপাম পিঁপড়ার ডিম দিয়ে তৈরি এই খাবারটি মেক্সিকোর জনপ্রিয় একটি খাবার। তবে এই পিঁপড়ার ডিম জোগাড় করা অনেক কঠিন কারণ এই পিঁপড়াগুলোর কামড় সাংঘাতিক যন্ত্রণার।

 

 

 

 

 

 

 

 


(৪) সী হর্স, স্কোরপিয়ন, স্টারফিশ অন এ স্টিক, চীনw4


কাঠিতে লাগানো ললিপপ তো অনেকেই খেয়েছেন। কিন্তু কাঁকড়াবিছে, শতপদী, তারামাছ, সীহর্স ভাজা কাঠির আগায় ললিপপের মতো করে সাজানো দেখতে এবং এর স্বাদ নিতে হলে ঘুরে আসতে হবে চীন থেকে।

 

 

 

 

 

 

 




(৫) ফুগু (পাফারফিশ), জাপানw5_1

ফুগু নামে পরিচিত পাফারফিশের তৈরি এই খাবারটি অদ্ভুতের পাশাপাশি সাংঘাতিক বিপদজনক একটি খাবার। এই পাফারফিশটি বেশ বিষাক্ত। এর মধ্যে যে বিষটি রয়েছে তা একসাথে ২০ টি মানুষ মেরে ফেলার জন্য যথেষ্ট এবং এর কোনোই অ্যান্টিডোট নেই।

 

 

 

 

 

 


(৬) টিকটিকি শুঁটকি, হংকংw6

শুঁটকি মাছ অনেকেরই প্রিয় একটি খাদ্য। কিন্তু হংকং এ আপনি শুধু শুঁটকি মাছই পাবেন না এর সাথে পাবেন টিকটিকির শুঁটকি। চান নাকি খেতে?

 

 

 

 

 

 

 

 


(৭) বালুট, ফিলিপাইনw7

নাম শুনে তেমন কিছু মনে না হলেও এটি সব চাইতে জঘন্য একটি খাবার। ভেতরে খানিকটা বাচ্চা হয়ে যাওয়া হাসের ডিম সেদ্ধের নামই হচ্ছে বালুট।

 

 

 

 

 

 

 


(৮) জায়ান্ট টুনা আইবল, জাপানw9

অদ্ভুত ধরণের খাবারের দিক থেকে চীন এবং জাপানই সব চাইতে এগিয়ে রয়েছে। জায়ান্ট টুনা আইবল হচ্ছে বিশাল আকৃতির টুনামাছের শুধুমাত্র চোখগুলো। ছবিটি দেখেই বুঝবেন কি কারণে এটি অদ্ভুত খাবারের তালিকায় রয়েছে।

 

 

 

 

 

 

 


(৯) মাউস ওয়াইন, চীনw10

ওয়াইন অ্যালকোহল জাতীয় একটি পানীয়। ওয়াইন বেশ জনপ্রিয় একটি পানীয় বিশ্বের প্রায় সকল দেশেই। কিন্তু চীনে ওয়াইনের একটি বিশেষ ধরণ পাওয়া যায়। তা হচ্ছে বাচ্চা ইঁদুর দুনিয়ে রাখা ওয়াইন।

 

 

 

 

 

 

 

 


(১০) ফ্রোজেন তিমি মাছের চামড়া ও পাকস্থলী, গ্রিনল্যান্ডw11

ভিটামিন সি এবং ডি তে ভরপুর এই খাবারটি গ্রিনল্যান্ডে ‘মুকটুক’ নামে পরিচিত। এটি আসলে তিমি মাছের চামড়া এবং পাকস্থলী যা কাঁচা খেতে হয়।