মঙ্গলবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পালিত হচ্ছে জিয়ার ৩৩তম মৃত্যু বার্ষিকী

1401421431.

শামসুর রহমান: প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর ৩৩তম মৃত্যু বার্ষিকী পালন করা হচ্ছে ।

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দলের নেতা-কর্মীরা সকাল ১১:১৫ মি: এ শেরে বাংলা নগর এ জিয়াউর রহমানের কবরে ফাতেহা পাঠ এবং পূস্পস্থবক অর্পনের মাধ্যমে দিনের কর্মসূচী শুরু করবেন।


পরে খালেদা জিয়া রাজধানীতে বিভিন্ন স্থানে নিঃস্ব এবং দূস্থদের মাঝে রান্নাকরা খাবার বিতরণ করবেন।

   

বিএনপি , তার সহযোগী সংস্থা এবং বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান দিন স্বরণে বিশদ প্রোগ্রামের আয়োজন করেছেন ।

 

এই দিনে, ৩০শে মে জিয়া চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে কিছু বিপথগামী সেনা কর্মকর্তাদের একটি গ্রুপ দ্বারা নিহত হন।

 

বগুড়ার বাগবাড়ী গ্রামে ১৯জানুয়ারি ১৯৩৬ সালে জন্মগ্রহণ করেছেন। জিয়া মুক্তিযুদ্ধের সময় সেক্টর কমান্ডার ছিলেন এবং তার যুদ্ধকালীন পরিষেবার জন্য একজন জীবিত অফিসারের জন্য সর্বোচ্চ খেতাব বীর উত্তম দিয়ে ভূষিত করা হয়।

 

বিএনপি এবং তার সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলি সম্মানের সঙ্গে মৃত্যু বার্ষিকী পালন করার জন্য ১৪ দিনের প্রোগ্রাম গ্রহন করেছে ।

 

মৃত্যু বার্ষিকীর এই অনুস্ঠান ২৭ মে থেকে শুরু হয়ে ৯জুন শেষ হবে।

 

প্রোগ্রামে আলোচনা, কালো পতাকা উত্তোলন, কালো ব্যাজ পরা, ফাতেহা পাঠ এবং জিয়ার মাজার জিয়ারত, নিঃস্বদের মধ্যে রান্না খাদ্য বিতরণ, স্বেচ্ছা রক্তদান এবং একটি ছবির প্রদর্শনী অন্তর্ভুক্ত।

 

এদিকে বিএনপি বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন এ একটি আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।  দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আলোচনা অনুস্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

 

বাংলাদেশের ডাক্তার সমিতি ( ড্যাব ) দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ফ্রি চিকিৎসা ও ওষুধ সরবরাহ করতে একটি প্রোগ্রাম গ্রহণ করেছে। অন্যদিকে জাতীয়তাবাদী উলেমা দল জিয়ার মাজার প্রাঙ্গনে একটি দো'আ মাহফিলের আয়োজন করেছে।

 

এছাড়া শুক্রবার বিএনপি চেয়ারপারসন নিজে এবং এছাড়াও শনিবার ও রোববার রাজধানী জুড়ে বিভিন্ন স্থানে নিঃস্ব ও দরিদ্র মধ্যে খাবার বিতরণ করা হবে।