বৃহস্পতিবার, ৩০শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শক্তিমত্তার আসল পরীক্ষায় নামছে পাঞ্জাব-কলকাতা

আইপিএলের সপ্তম আসরের সবচেয়ে ধারাবাহিক দল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। আর এবারের অসাধারণ প্রত্যাবর্তনের উদাহরণ কলকাতা নাইট রাইডার্স। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় প্রথম কোয়ালিফায়ারে মুখোমুখি হচ্ছে দুদল। জিতলে পরে সরাসরি ফাইনালে। না জিতলেও আরেকবার সুযোগ পাবে হেরে যাওয়া দলটি।



এর আগে লিগ পর্বের মুখোমুখি লড়াইয়ে একটি করে সমান ম্যাচ জিতেছে দুদলই। আবুধাবিতে ২৩ রানে জিতেছিল পাঞ্জাব। আর নিজেদের ইতিহাসে উইকেটের ব্যবধানে সবচেয়ে বড় জয় পেয়েছিল কলকাতা। ৯ উইকেটে তারা হারিয়েছিল পাঞ্জাবকে। সমানে সমান আত্মবিশ্বাস নিয়েই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে যাচ্ছে তারা। 



এবারের আসরে পরমোত্কৃষ্ট ব্যাটিংয়ের প্রদর্শণ করেছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। অসি ব্যাটিং তারকার কল্যাণে এই মৌসুমে দুর্দান্ত পারফরমেন্স দেখিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থেকে লিগ পর্ব শেষ করেছে পাঞ্জাব। অন্যদিকে প্রথম সাত ম্যাচের মাত্র দুটিতে জেতা কলকাতাকে হাতেই গুণছিল না অনেকেই। কিন্তু দেখিয়েছে ঘুরে দাঁড়াতে কীভাবে হয়। গৌতম গম্ভীর, সাকিব আল হাসান ও রবিন উথাপ্পার কয়েকটি দারুণ ব্যাটিং ইনিংসে নিশ্চিত করেছে প্লেঅফ।



শেষ ম্যাচে তো ইউসুফ পাঠান একাই ঝড় তুললেন। হায়দরাবাদের বিপক্ষে তার ২২ বলে ৭২ রানের দানবীয় ইনিংসে চেন্নাই সুপার কিংসকে হটিয়ে দুইয়ে উঠল কলকাতা। চার উইকেটের ওই জয়টি ছিল তাদের জন্য টানা সপ্তম।



পাঞ্জাব হয়তো শক্তিশালী হিসেবেই বিবেচিত হতে পারে। কিন্তু কলকাতাকে নিয়ে দুশ্চিন্তাও কম করতে হচ্ছে না তাদের। ইডেন গার্ডেন্সে কলকাতার দুর্গে জর্জ বেইলির দল কীভাবে সামলে উঠতে পারে তাই এখন দেখার অপেক্ষা।



কলকাতা তাদের দ্বিতীয় ও পাঞ্জাব প্রথম শিরোপা নিতে আর দুটি ম্যাচ দূরে। মুখোমুখি এই লড়াইয়ে হেরে গেলেও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে সুযোগ পাবে পরাজিত দলটি।



কেকেআর’র ব্যাটিংয়ে ইউসুফ তার গত ম্যাচের ধারাবাহিকতা ধরে রাখলে তো কথাই নেই। অন্যদিকে গত তিন ইনিংসে ১৬ রান করা ম্যাক্সওয়েলকে স্বরূপে ফিরে পেতে চায় পাঞ্জাব। 



আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, বৃষ্টির হস্তক্ষেপে যে কোনো কিছু হতে পারে প্রথম কোয়ালিফায়ার। অবশ্য ২৮ মে রিজার্ভ ডে হিসেবে রাখা হয়েছে। তবে ভেজা উইকেটে স্পিনাররা সুবিধা পাবেই বলে ধারণা করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে সুনীল নারিন ও বাঁহাতি সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণি জাদু বড় ভরসা।



বিশেষ করে পাঞ্জাবের বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান ম্যাক্সওয়েলকে থামাকে সাকিবই বড় ভরসা। কারণ আইপিএলে ছয়বার লেগ স্পিনে বধ হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার তারকা।



এবারের আসরে ব্যাটিং ও বোলিংয়ে কলকাতার দুই তারকা গম্ভীর ও নারিনই এগিয়ে। ১৪ ম্যাচে ৬১৩ রান করে অরেঞ্জ ক্যাপের দৌড়ে এগিয়ে দলটির অধিনায়ক। আর বল হাতে ২০ উইকেট নিয়ে সবার শীর্ষে পারপল ক্যাপের প্রার্থী ক্যারিবীয় স্পিনার। বলা চলে শক্তির বিচারে খানিকটা এগিয়ে কলকাতাই। অবশ্য ম্যাক্সওয়েল ছাড়াও ডেভিড মিলার মানান বোহরা, বেইলি ও হৃদ্ধিমান সাহা পাঞ্জাবের হয়ে ব্যাট হাতে জ্বলে উঠলে বলা চলে টানটান উত্তেজনার লড়াই হতে যাচ্ছে ইডেনে।

এ জাতীয় আরও খবর