সোমবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

একরামুল হত্যার ঘটনায় মামলা, আটক ১৫

ফেনীর ফুলগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের নেতা একরামুল হককে গুলি করে ও পুড়িয়ে হত্যা করার ঘটনায় তাঁর ভাই রেজাউল হক জসিম বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত একটার দিকে ফেনী মডেল থানায় মামলাটি করা হয়। মামলায় বিএনপির নেতা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী ওরফে মিনার ও অজ্ঞাত ৩৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে আটক করা হয়েছে। সকালে ২৩ জনকে আটক করার কথা বলা হয়েছিল। এ ছাড়া হত্যাকাণ্ডে ব্যবহূত সন্দেহে একটি লাল রঙের প্রাইভেট কার ও দুটি মোটরসাইকেল পরিত্যক্ত অবস্থায় শহরের বিরিঞ্চি এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। আজ সকাল নয়টায় ফেনী শহরের মিজান ময়দানে একরামুলের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্থানীয় সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজামউদ্দিন হাজারী, জাসদের কেন্দ্রীয় নেতা ও ফেনী-১ আসনের সাংসদ শিরিন আক্তার, সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ জাহানারা বেগম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমানসহ হাজারো মানুষ অংশ নেন।

সাড়ে ১০টায় ফুলগাজী পাইলট হাই স্কুল মাঠে দ্বিতীয় জানাজা ও সাড়ে ১১টায় বন্দুয়া দৌলতপুর গ্রামে তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর উপজেলার আনন্দপুর ইউনিয়নের বন্দুয়া দৌলতপুরে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁর মরদেহ দাফন করা হয়।

একরামুলের জানাজায় যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, ফেনীর স্থানীয় সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী, ফেনী-১ আসনের সাংসদ ও জাসদের কেন্দ্রীয় নেতা শিরিন আক্তার, ফেনী-৩ আসনের সাংসদ রহিম উল্লাহ, নারী সাংসদ জাহানারা বেগম, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক প্রটোকল অফিসার আলাউদ্দিন চৌধুরী নাসিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

গতকাল বেলা ১১টার দিকে ফেনী শহরের একাডেমি সড়কে বিলাসী সিনেমা হলের কাছে গাড়ির ভেতর গুলি করার পর গাড়িসুদ্ধ পুড়িয়ে একরামুলকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

খবর পেয়ে ফেনীর পুলিশ সুপার পরিতোষ ঘোষসহ পুলিশের একটি দল ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে যান। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নেভানোর পর পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠান৷ বিকেলে ডিএনএ টেস্টের জন্য লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। রাত ১২টার পর লাশ ফেনীতে নিয়ে আসা হয়।

ফেনী শহরে পুলিশ ও র্যাবের পাশাপাশি তিন প্লাটুন বিজিবির (বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ) সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

আটক ১৫

গতকাল রাতভর শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৫ জনকে আটক করা হয়।

তাঁরা হলেন ইকবাল হোসেন (২২), শেখ আহম্মদ শিমুল (২৬), মো. রাজীব (২০), মো. গনি (২৫), মো. রিয়াজ (১৮), কোরবান আলী শাকিল (১৮), আনোয়ার হোসেন (২০), ছালে আহাম্মদ (৪০), আমজাদ হোসেন রুবেল (২১), মহি উদ্দিন বাবু (২১), মো. মাসুম (২৫), শাখাওয়াত হোসেন (২৪), মো. রাশেদ (২১), নুরুল নাঈম (২০) ও মো. শাকিল (২০)।

আজ বুধবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ফেনী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব মোরশেদ এ ঘটনায় ২৩ জনকে আটক করার কথা জানিয়েছিলেন।

গাড়ি ভাঙচুর

চেয়ারম্যান একরামুলের জানাজা ও দাফন শেষে আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে একরামুলের কয়েকজন সমর্থক ক্ষুব্ধ হয়ে ফেনী-ফুলগাজী-পরশুরাম সড়কের বন্দুয়াপুলের সামনে চার-পাঁচটি গাড়ি ভাঙচুর করে।