শুক্রবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মানবতাবিরোধী অপরাধে সর্বোচ্চ শাস্তি চেয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ মীর কাসেমের মামলার রায় যেকোনো দিন

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য মীর কাসেম আলীর বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার রায় যেকোনো দিন ঘোষণা করা হবে।

বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২-এ আজ রোববার এ মামলার যুক্তিতর্ক শেষ হয়। এরপর আদালত মামলার রায় অপেক্ষমাণ (সিএভি) রাখেন।

আজ রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি তুরিন আফরোজ আসামিপক্ষের যুক্তি খণ্ডন করেন। এরপর আদালত মামলার রায় অপেক্ষমাণ রাখেন।



রাষ্ট্রপক্ষ গত রোববার মীর কাসেমের বিরুদ্ধে যুক্তি উপস্থাপন শুরু করে। ওই দিন ১০টি অভিযোগের ওপর যুক্তি দেওয়া হয়। পরের দিন সোমবার বাকি চারটি অভিযোগের ওপর যুক্তি দেওয়া শেষ করে রাষ্ট্রপক্ষ। এরপর আইনি বিষয়ে যুক্তি উপস্থাপন করা হয়।



গত মঙ্গলবার যুক্তি উপস্থাপন শুরু করে আসামিপক্ষ। পরের দিন বুধবার যুক্তি উপস্থাপন শেষ করে আসামিপক্ষ। আজ আইনি বিষয়ে আসামিপক্ষ যুক্তি উপস্থাপন করে। আসামিপক্ষের যুক্তি খণ্ডন করে রাষ্ট্রপক্ষ। এরপর আদালত মামলার রায় অপেক্ষমাণ রাখেন।



মীর কাসেমের বিরুদ্ধে ১৪টি অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। এর মধ্যে ১২টি অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ করতে পেরেছে বলে দাবি করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। এ জন্য রাষ্ট্রপক্ষ মীর কাসেমের সর্বোচ্চ শাস্তির আরজি জানিয়েছে ট্রাইব্যুনালের কাছে।

মামলাটি প্রথমে ট্রাইব্যুনাল-১-এ ছিল। পরে তা ট্রাইব্যুনাল-২-এ স্থানান্তর করা হয়।