বৃহস্পতিবার, ৭ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নতুন রাজা নাকি পুরনোই?

Feniক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রস্তুত লড়াইয়ের মঞ্চ। প্রস্তুত দুই প্রতিদ্বন্দ্বী দল। ফুটবলবোদ্ধাদের অপেক্ষা কেবল শ্বাসরুদ্ধ লড়াইয়ের। অপেক্ষার সেই মাহেন্দ্রক্ষণটা ফুরনো এখন নিছক সময়ের অপেক্ষা। আচ যে স্বাধীনতা কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের শিরোপা লড়াই। যেখানে ফেনী সকার ক্লাব শক্তিশালী মোহামেডানের মুখোমুখি হবে। যেখানে সকার ক্লাব প্রথম শিরোপার জন্য লড়লেও স্বপ্নের ট্রফির স্বাদ আগেই নিয়েছে মোহামেডান।

বিগত মৌসুমগুলো খুব একটা ভালো কাটেনি ফেনী সকার ক্লাবের। বলার মতো তেমন কিছুই করতে পারেনি তারা। ২০০৮-০৯ মৌসুমে প্রথম পেশাদার লিগে চতুর্থ হওয়াটাই তাদের সাম্প্রতিক সেরা পারফরম্যান্স। আর চলতি মৌসুমে লিগে তো জয়ই পায়নি তারা! পয়েন্ট খোয়ানোর দুষ্টচক্রে আবদ্ধ সকার ক্লাব টেবিলের তলানিতে রীতিমতো ধুঁকছে। তবে লিগে না পারলেও স্বাধীনতা কাপে স্বপ্নের মতোই এগিয়ে চলছে তারা। কেননা ব্রাদার্স ইউনিয়নকে ২-০ গোলে হারানোটা যে অগ্নিপরীক্ষায় উতরে যাওয়াই বলা চলে। সেমিফাইনালে ব্রাদার্সকে কাঁদিয়েই তো ফাইনালের টিকিট পকেটে পুরেছিল সকার ক্লাব। ওই জয়ে এতটাই উন্মত্ত হয়েছিল তারা যেন শিরোপাটাই বুঝি পেয়ে গেছে। কিন্তু সকার ক্লাবের বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাসের আরো একটা মাহাত্ম্য আছে। এই প্রথম কোনো জাতীয় পর্যায়ের টুর্নামেন্টে ফাইনালে উঠেছে সকার ক্লাব। আর তো মাত্র একটা ধাপ। তাহলেই তো স্বপ্নের ষোলো কলাই পূর্ণ হবে ফেনীর ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটির। প্রথম বারের মতো বড় কোনো ট্রফি নিজেদের শোকেসে সাজাতে পারবে তারা। অবশ্য সকার ক্লাবের চমক চলছে টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই। গ্রুপপর্বে বিজেএমসিকে হারানো, কোয়ার্টার ফাইনালে শেখ রাসেলকে ছিটকে দিয়ে ভিন্ন কিছুরই আভাস দিচ্ছেন ওমর শিষের ছাত্ররা।

ওদিকে ফাইনালের আগেই আরেকটা ফাইনাল খেলতে হয়েছে মোহামেডানকে। সেমিফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনীর বিপক্ষে ধ্র“পদী লড়াইয়ে শেষ হাসি মোহামেডানেরই। বুরকিনা ফাসোর মিডফিল্ডার জঙ্গোর দুর্দান্ত শটেই কপাল পুরে আবাহনীর। অবশ্য এমিলির পায়ে লেগে বলটা আবাহনীর জালে জড়ালে রেফারি গোলটা বরাদ্দ করেছেন এমিলির নামেই। ওই গোলটাই শেষ পর্যন্ত আবাহনীর বিরুদ্ধে টানা ৬ ম্যাচ পর মোহামেডানের জয়বন্ধ্যত্ব কাটিয়েছে। পুরো ম্যাচে আবাহনীর কাছে শোষণ হওয়া সত্ত্বেও এনে দিয়েছে ফাইনালের টিকিট। অবশ্য শিরোপা জয়ের উৎসবটাও হয়তো মনে মনে করছে মোহামেডান। কিন্তু আত্মবিশ্বাস যে আছে ফেনী সকার ক্লাবেরও। কেননা তিন গাম্বিয়ান ফুটবলারকে বাদ দিয়েছে সকার ক্লাব।

এ জাতীয় আরও খবর