শুক্রবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন মমতা

 

MMataডেস্ক রিপোর্ট :

অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গত শুক্রবার রাতে কৃষ্ণনগর থেকে মধ্যমগ্রামে কর্মিসভায় যোগ দেওয়ার পথে একটি ভলভো বাসের সঙ্গে একেবারে মুখোমুখি হয়ে যায় মুখ্যমন্ত্রীর সাদা স্করপিও গাড়ি। কোনও ক্রমে সংঘর্ষ এড়ান মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ির চালক। গাড়িটিকে মূল রাস্তার একেবারে প্রান্তে নর্দমার ঢালে নামিয়ে আনতে হয়। ইমার্জেন্সি ব্রেক কষে চালক গাড়ি থামানোর চেষ্টা করেন।

উত্তর চব্বিশ পরগনার আমডাঙার মিরহাটি এলাকায় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে এই ঘটনায় প্রচণ্ড ঝাঁকুনি দিয়ে থেমে যায় মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ি। এ ঘটনায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন মমতা। তার নির্দেশে কনভয় দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয়। মুখ্যমন্ত্রী নিজে ডিজি জিএমপি রেড্ডিকে মোবাইলে ধরেন। ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী তাকে বলেন, এই যদি অবস্থা হয়, তাহলে আমার আর নিরাপত্তার দরকার নেই। নিরাপত্তারক্ষী তুলে নিন।

এরপরে পুলিশ ভলভোটি আটক করে। গ্রেফতার করা হয় চালককেও। দেরি করে হলেও, মুখ্যমন্ত্রী মধ্যমগ্রামের নির্ধারিত সভা সেরেই কলকাতায় ফেরেন।

মধ্যমগ্রামে এই ঘটনার উল্লেখ না-করলেও মুখ্যমন্ত্রী বলেন, শনিবারই আমি জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষকে চিঠি লিখব। কৃষ্ণনগর থেকে আসতে আমার দু'ঘণ্টা বেশি সময় লাগল।

কলকাতায় প্রশাসনিক সূত্রে আমডাঙার এই ঘটনার কথা জানাজানি হলেও, জেলা প্রশাসন সরকারিভাবে মুখ খুলতে চায়নি। মনে করা হচ্ছে, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই ঘটনাটি প্রকাশ করতে চাইছে না প্রশাসন। কারণ, জেড প্লাস ক্যাটেগরিতে থাকা মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার মতো স্পর্শকাতর বিষয় এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত। তা ছাড়া এই ঘটনায় জেলা ও রাজ্য পুলিশ-প্রশাসনের ব্যর্থতাও প্রকট হয়েছে।