শুক্রবার, ১২ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচ রোববার

t20_77955বহুল প্রতিক্ষিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর্দা উঠলেও মূল শুরু হচ্ছে আগামীকাল রোববার থেকে। ঢাকার মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বিকাল সাড়ে ৩টায় স্বাগতিক বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের মধ্যকার উদ্বোধনী ম্যাচ দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০১৪-এর যাত্রা শুরু হবে। চলবে ৬ এপ্রিল পর্যন্ত। ঢাকা ছাড়াও চট্টগ্রাম ও সিলেটের স্টেডিয়ামেও খেলা হবে। এ উপলক্ষে ঢাকাসহ চট্টগ্রাম ও সিলেট মহানগরীতে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণে ট্রাফিক ব্যাবস্থাপনায় ব্যাপক পরিবর্তন আনছে পুলিশ।


আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) সিডিউল অনুযায়ী ঢাকার মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ১৬ মার্চ উদ্বোধনী ম্যাচ দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০১৪-এর যাত্রা শুরু হবে। চলবে ৬ এপ্রিল পর্যন্ত।  মোট ৩৫টি খেলার মধ্যে ঢাকার শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে ১৪টি, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে ১৫টি ও সিলেট স্টেডিয়ামে খেলা হবে ছয়টি ম্যাচ।  


প্রতিটি খেলার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত খেলোয়াড়দের যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে খেলার দিনগুলোতে স্টেডিয়ামের আশপাশের সড়কগুলোতে গাড়ি চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে। এ উপলক্ষ্যে ঢাকা মহানগরীর মিরপুর বিভাগের পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব সদস্যরা  স্টেডিয়াম এলাকা কেন্দ্রিক নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবেন। সাদা পোশাকের গোয়েন্দা নজরদারিও চলবে। থাকবে সিসি ক্যামেরা ও র‌্যাবের ডগ স্কোয়াডের তল্লাশিও।  


এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) বেনজির আহমেদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিশেষ দিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া চট্টগ্রাম ও সিলেট মহানগর পুলিশের সঙ্গে কথা বলেও খেলার দিনগুলোতে স্টেডিয়াম এলাকায় যানবাহন নিয়স্ত্রণে তাদের পরিকল্পনার কথা জানা গেছে।


বেনজীর আহমেদ বলেছেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ও যান নিয়ন্ত্রণে বিশেষ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। খেলোয়াড়দের নিরাপত্তার পাশাপাশি ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণসহ জনগণ যেন উৎসবমুখর পরিবেশে খেলা উপভোগ করতে পারে সে জন্য ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।


সিলেট মহানগরের পুলিশ কমিশনার মো. মিজানুর রহমান বলেন, টি-টোয়েন্টে বিশ্বকাপ উপলক্ষে সিলেট স্টেডিয়াম, চারটি হোটেলসহ সর্বত্র কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। খেলা চলাকালীন সময়ে যাতে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেদিকে তাদের দৃষ্টি থাকবে। প্রয়োজনে সেনাবাহিনীর সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে র‌্যাব ও অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও সতর্ক রয়েছে।


চট্ট্রগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) বনজ কুমার মজুমদার বলেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগরীতে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। চট্টগ্রাম মহানগরীর সার্বিক যানবাহন নিয়ন্ত্রণে একটি আলাদা টিম গঠন করা হয়েছে। এর পাশাপাশি বিশ্বকাপের নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখে ভাসমান মানুষের ছবির পাশপাশি তাদের স্থায়ী ঠিকানা, জীবন বৃত্তান্ত, ব্যবসায়ী, হোটেল স্টাফ ও বস্তি গুলোর উপর নজরদারি চলছে। শহরের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রন করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, আগামী ১৬ মার্চ ঢাকায় উদ্বোধনী ম্যাচের দিনই চট্টগ্রামে জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে নেপাল ও হংকংয়ের মধ্যে একটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।


র‌্যাবের লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উইং পরিচালক (উইং কমাণ্ডার) এম হাবিবুর রহমান বলেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নিরাপত্তার জন্য র‌্যাবের একাধিক দল নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে। যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে। একই সঙ্গে র‌্যাবের ডগ স্কোয়াডসহ অধুনিক সরঞ্জাম নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ব্যবহার করা হবে।


শুক্রবার ডিএমপির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ডিএমপির ট্রাফিক পরিকল্পনা অনুযায়ী  খেলা চলাকালীন দিনগুলোতে স্টেডিয়াম ও আশপাশের এলাকায় সুষ্ঠুভাবে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণকল্পে বিসিবি’র স্টীকারযুক্ত গাড়ি, ম্যাচ অফিসিয়ালদের গাড়ি, খেলোয়াড় বহনকারী গাড়ি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গাড়ি, খেলা সংশ্লিষ্ট জরুরী সেবায় নিয়োজিত গাড়ি এবং খেলা দেখতে আসা টিকেটধারী দর্শকদের যানবাহন ব্যতীত অন্যান্য সকল প্রকার যানবাহন  খেলা শুরুর সাড়ে তিন ঘণ্টা আগে থেকে খেলা শেষ হওয়া পর্যন্ত বিকল্প সড়কে চলাচল করতে হবে। অর্থাৎ সকাল ১২ টা  থেকে রাত ১২ টা পর্যন্ত বিকল্প সড়কে যান চলাচলের জন্য পরামর্শ  দেয়া হলো। এ সময়ে মিরপুর ১০ নম্বর  গোলচত্ত্বর  থেকে মিরপুর সনি সিনেমা হল ক্রসিং পর্যন্ত,  মিরপুর টিএন্ডটি ক্রসিং হতে প্রশিকা ক্রসিং পর্যন্ত, আগারগাঁও লাইট ক্রসিং হতে মিরপুর ১০ নম্বর  গোলচত্ত্বর পর্যন্ত এবং মিরপুর প্রশিকা মোড় থেকে কোন প্রকার গাড়ি/রিক্সা ভ্যান মিরপুর স্টেডিয়ামের দিকে যাবে না।


বিকল্প সড়কঃ তেজগাঁওস্থ খেজুর বাগান হতে মিরপুর-১০, মিরপুর-১২ এর দিকে চলাচলরত যানবাহন সমূহ খেজুরবাগান থেকে ডাইভারশন করে মানিক মিয়া এভিনিউ ক্রসিং হয়ে মিরপুর রোড-টেকনিক্যাল ক্রসিং রাইট টার্ন-মিরপুর ১-সনি হল ক্রসিং, লেফ্ট টার্ন-চিড়িয়াখানা রোড-প্রশিকা ক্রসিং-ইয়াং থাই চাইনিজ ক্রসিং হয়ে মিরপুর ১২ নম্বর এর দিকে যাতায়ত করবে। কোন প্রকার বাণিজ্যিক যানবাহন আগারগাঁও লাইট ক্রসিং হতে রোকেয়া সারণীর উত্তর দিকে যাবে না। শ্যামলী ক্রসিং ব্যবহার করে মিরপুর রোডে যাতায়াত করা যাবে। মিরপুর হতে গুলিস্তান ও সায়েদাবাদগামী এবং সকল প্রকার বাণিজ্যিক যানবাহন মিরপুর ১২ নম্বর হতে ইয়াং থাই চাইনিজ রেষ্টুরেন্ট, রাইট টার্ন-প্রশিকা ক্রসিং রাইট টার্ন-রাইনখোলা লেফ্ট টার্ন- সনি সিনেমা হল রাইট টার্ন-মিরপুর ১ নম্বর হয়ে যাতায়ত করবে। মিরপুর ১২ নং হতে গুলশান-বনানী-উত্তরাগামী যানবাহন কালসী ফ্লাইওভার হয়ে গমনাগমন করবে। মিরপুর ১৪ নং কচুক্ষেত হতে মিরপুর-২ এ গমনাগমনের সময় মিরপুর সনি সিনেমা হল ক্রসিং-শিয়ালবাড়ি-রাইন খোলা ক্রসিং-প্রশিকা লেফ্ট টার্ণ-মিরপুর ৬ নং বাজার-রেড প্লাস ক্রসিং-বেনারসী পল্লী ১ নং গেইট -হোপ গ্লোরী স্কুল গ্যাপ-মিরপুর ১৪ হয়ে হয়ে গমনামন করবে।


পার্কিং ব্যবস্থাপনাঃ ডিএমপির নির্দেশনা অনুযায়ী, টিকেট ব্যতীত কোন দর্শনার্থী তার ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে স্টেডিয়াম এলাকায় খেলা চলাকালীন দিনগুলোতে প্রবেশ করতে পারবেন না। যাদের টিকেট আছে একমাত্র তাদের বহনকারী গাড়ি শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পশ্চিম পার্শ্বে ট্রাফিক পুলিশ কর্তৃক নির্দেশিত স্থানে মিরপুর বাংলা উচ্চ বিদ্যালয় ও মিরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বিসিবি কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নির্ধারিত পার্কিং স্থানে ফি-য়ের বিনিময়ে গাড়ি পার্ক করতে পারবেন। – See more at: http://www.jugantor.com/current-news/2014/03/15/77955#sthash.oBxz59Ro.dpuf