মঙ্গলবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পাঁচ ভুলে পালাচ্ছে যৌবন

youngপ্রতিদিন আমরা কোনো না কোনো ভুল করেই থাকি। এটা স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু একই ভুল যদি প্রতিদিনই করি তাহলে তার প্রভাব হয় দীর্ঘস্থায়ী এবং তা ক্ষতিকর। সেটা পেশার ক্ষেত্রে যেমন সত্য তেমনি শরীরের ক্ষেত্রেও।

আমাদের শরীর নিয়ম ভালোবাসে। অনিয়মের চেষ্টা চললেই সে বেঁকে বসে। তাই সুস্থ শরীরের জন্য নিয়মের বিকল্প কিছু নেই। তাই বলে অনিয়মটাকেই নিয়ম ভাবলে চলবে না একেবারেই।

বেশিরভাগ মানুষই মোটা দাগে ৫টি ভুলের দুএকটি নিয়মিতই করে থাকে। আর এ কারণেই তাদের কাছ থেকে দ্রুত পালিয়ে যায় যৌবন।

আসুন জেনে নেয়া যাক ভুলগুলো-

কম ঘুমানো
ব্যস্ততা কিংবা কারণে-অকারণে অনেকেই পরিমিত (৬-৮ ঘণ্টা) ঘুমান না। আর পরিমিত না ঘুমানোর কারণে শরীরে বাসা বাঁধে রোগ, ত্বকেও দেখা দেয় বয়সের ছাপ।

বেশি মিষ্টি খাওয়া
অনেকেরই অভ্যাস আছে বেশি মিষ্টি খাওয়ার। এটা শুধু ওজনই বাড়ায় না, ত্বকেরও ক্ষতি করে। ওজন বাড়া মানে তাড়াতাড়ি বুড়ো হয়ে যাওয়া এবং শরীরের বিভিন্ন কার্যক্রমে ব্যাঘাত সৃষ্টি হওয়া। এছাড়া মুটিয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে যৌন সক্ষমতায়ও ভাটা পড়তে পারে।  

অতিরিক্ত ব্যায়াম
সুন্দ সুস্থ শরীরের জন্য ব্যায়াম খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কিন্তু সীমা লঙ্ঘন করা একেবারেই উচিত নয়। প্রয়োজনের চেয়ে বেশি ব্যায়াম করলে ভালোর চেয়ে মন্দই হবে বেশি। অতিরিক্ত কায়িক শ্রম যেমন ক্ষতিকর তেমনি অতিরিক্ত ব্যায়ামও ক্ষতিকর। যা আপনাকে বুড়ো বানিয়ে দেবে তাড়াতাড়ি।

সানস্ক্রিন ব্যবহার না করা
আমরা রোদে পুড়ি প্রতিদিনই। এতে কী পরিমাণ ক্ষতি হয় তা আসলে আমাদের চিন্তার মধ্যেই নেই। তাই বিষয়টিকে গুরুত্ব দেই না। কিন্তু যে যত বেশি রোদে পুড়বে, সে ততো তাড়াতাড়ি বুড়ো হবে। অর্থাৎ বয়সে বুড়ো না হরেও চেহারায় ছাপ পড়বে। বুঝলেন!

ধূমপান ও মদ্যপান
এই দুই বদ অভ্যাস আমাদের কতটুকু ক্ষতি করে তা নতুন করে বলার কিছু নেই। শরীরের পামাপাশি চেহারায় ছাপ ফেলতে দেরি করে না অভ্যাস দুটি। ধূমপান ও মদ্যপানে ত্বকের নিচের শিরা-উপশিরায় রক্ত সঞ্চালনের মাত্রা অতিরিক্ত পরিমাণে বেড়ে যায়। এতে ওইসব শিরা-উপশিরা স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ত্বকে দেখা দেয় বয়সজনিত বিভিন্ন দাগ।

এ জাতীয় আরও খবর

জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ

প্রকাশ্যে চিত্রনায়িকা বুবলীর বেবি বাম্পের ছবি

চোখ ওঠা রোগীদের যে নির্দেশনা দিলো বিমানবন্দর

সেই মরিয়ম ও পরিবারের সদস্যদের গ্রেপ্তার দাবি

টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে ৭ ধাপ উন্নতি ফারজানার

করতোয়ায় নৌকাডুবিতে মৃত্যু বেড়ে ৬৮, নিখোঁজ ৫

বাজিমাৎ করতে আসছে ‘পন্নিইন সেলভান’

ইরানে নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে বিক্ষোভে নিহত বেড়ে ৭৬

নিজের জন্য নয়, জনগণের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেন প্রধানমন্ত্রী: কাদের

ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ১০

বৈশ্বিক সংকট নিয়ে বিএনপি ফায়দা লুটতে চায়: কাদের

বাংলাদেশ বিপুল পর্যটন সম্ভাবনাময় দেশ: প্রধানমন্ত্রী