মঙ্গলবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নিউজিল্যান্ড সফরে জয়হীন ভারত

5302fd4e7a72b-Newzealand_Imageনিউজিল্যান্ড সফরে এসে একটি ম্যাচেও জয়ের মুখ দেখতে পেল না ভারত। ওয়ানডের পর টেস্ট সিরিজেও হার নিয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে বিশ্ব ক্রিকেটের নতুন ‘মোড়ল’দের। ব্রেন্ডন ম্যাককালামের দুর্দান্ত অধিনায়কোচিত ব্যাটিংয়ে হারের শঙ্কায় পড়া নিউজিল্যান্ড দারুণভাবে ড্র করেছে ওয়েলিংটন টেস্ট। আর প্রথম টেস্টটি জেতার ফলে ১-০ ব্যবধানে সিরিজ জয়েরও স্বাদ পেয়েছে স্বাগতিকরা। ২০০২-০৩ মৌসুমের পর ভারতের বিপক্ষে এবারই প্রথম টেস্ট সিরিজ জিতল নিউজিল্যান্ড।

ওয়েলিংটন টেস্টে জয় দিয়ে সিরিজে সমতা ফেরানোর আপ্রাণ চেষ্টাই করেছিল ভারত। তৃতীয় দিনের মধ্যাহ্নবিরতি পর্যন্তও সবকিছু ঠিকঠাকই ছিল। কিন্তু তারপর শুধু এই ম্যাচের ভাগ্যই নয়, ক্রিকেট ইতিহাসেরই অনেক কিছু নতুন করে লিখলেন ম্যাককালাম। বিজে ওয়াটলিংকে সঙ্গে নিয়ে গড়লেন ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে সর্বোচ্চ রানের নতুন রেকর্ড। নিউজিল্যান্ডের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে করলেন ট্রিপল সেঞ্চুরি। দ্বিতীয় ইনিংসে ৯৪ রানেই পাঁচ উইকেট হারানো নিউজিল্যান্ড শেষ পর্যন্ত ইনিংস ঘোষণা করল ৬৮০ রান জমা করে। ভারতের সামনে জয়ের লক্ষ্য নির্ধারিত হলো ৪৩৫ রান।

ভারত যখন দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামল, তখন দিনের বাকি ছিল ৬৯ ওভার। ধোনি বাহিনীর জয়ের আশা কেউ হয়তো কল্পনাতেও করেননি; বরং প্রথম ২৩ ওভারের মধ্যে ভারতের তিনটি উইকেট তুলে নিয়ে চোখ রাঙাচ্ছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু দিনের বাকিটা সময় আর কোনো দুরবস্থার মধ্যে পড়তে হয়নি ভারতকে। বিরাট কোহলির চতুর্থ টেস্ট শতকের সুবাদে বাকি সময় নির্বিঘ্নেই পার করেছে ধোনি বাহিনী। ৯৭ বলে ৩১ রান করে অপরাজিত ছিলেন রোহিত শর্মা।

ওয়েলিংটনে ম্যাককালাম-বীরত্বে চাপা পড়ে গেছে অন্য সবকিছুই। ম্যাচসেরার পুরস্কারটাও অবধারিতভাবে উঠেছে কিউই অধিনায়কেরই হাতে। তার পরও অভিষেক টেস্টেই শতক হাঁকানো জিমি নিশামের কথাটা না বললে অন্যায়ই হবে। ১৫৪ বলে ১৩৭ রানের ঝকঝকে এক ইনিংস খেলে শেষ পর্যন্ত অপরাজিতই ছিলেন এই তরুণ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

এ জাতীয় আরও খবর