শনিবার, ২৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

‘বেসবলের মতো হয়ে যাবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট’

52eded1fc199c-Twenty20-cricket_Imageদুর্দান্ত দাপট দেখিয়ে একসময় ক্রিকেটাঙ্গন শাসন করেছেন রিচার্ড হ্যাডলি, ডেনিস লিলি, কোর্টনি ওয়ালস, ওয়াসিম আকরাম, শেন ওয়ার্ন, মুত্তিয়া মুরালিধরনের মতো বিশ্বসেরা বোলাররা। ম্যাচের ভাগ্য নিয়ন্ত্রণে ব্যাটসম্যানদের পাশাপাশি বোলাররাও রাখতেন দাপুটে ভূমিকা। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে যেন ক্রমশই ধার হারাচ্ছেন বোলাররা। এখন ক্রিকেট মানেই যেন চার-ছয়ের ফুলঝুরি। বিশেষত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট অনেকাংশেই হয়ে পড়েছে ব্যাটসম্যানকেন্দ্রিক। আর পরিস্থিতি যদি এরকমই থাকে, ব্যাট-বলের লড়াইয়ের সামঞ্জস্যটা যদি রক্ষা করা না যায়, তাহলে খোদ ক্রিকেট খেলাটারই ক্ষতি হবে বলে মনে করছেন ইয়ান চ্যাপেল। এভাবে চলতে থাকলে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট একসময় বেসবলের পর্যায়ে চলে যাবে বলেও আশঙ্কা করছেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এই অধিনায়ক।



বোলারদের ভূমিকা কমে যাওয়ার পাশাপাশি ব্যাটসম্যানদের মনমানসিকতায়ও অনেক পরিবর্তন এনেছে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট। ব্যাটিংয়ের চিরাচরিত কৌশলগুলো বিসর্জন দিয়ে যেনতেন প্রকারে দ্রুত রান সংগ্রহের তাড়নাতেই উইকেটে আসেন এখনকার ব্যাটসম্যানরা। ঠিক যেভাবে শুধু সজোরে বলটাকে আঘাত করাই মূল উদ্দেশ্য থাকে বেসবলের হিটারদের। সংক্ষিপ্ত সংস্করণের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটও ব্যাটসম্যানদের ঠিক ওই পর্যায়েই নামিয়ে আনছে বলে মত দিয়েছেন চ্যাপেল। অস্ট্রেলিয়ার ডেইলি টেলিগ্রাফে প্রকাশিত এক কলামে তিনি লিখেছেন, ‘ব্যাটিংটা একটা শিল্প। কিন্তু মাঠের সীমানা ছোট করে, ক্রিকেট ব্যাটকে ক্রমাগত পরিবর্তিত করে, খেলোয়াড়দের উত্সাহিত করা হচ্ছে কৌশল অগ্রাহ্য করে শুধু পেশিশক্তির ওপর জোর দিতে। এই ধারা যদি চলতে থাকে, তাহলে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট পরিণত হবে বেসবলেরই একটা ভিন্নতর সংস্করণে। ভালো শট মারতে পারে—এমন খেলোয়াড়ের অবশ্যই দরকার আছে। কিন্তু ক্রিকেটকে আলাদাভাবে তুলে ধরার জন্য ব্যাটিংয়ের সব নান্দনিকতাও অবশ্যই টিকে থাকা দরকার।’

ব্যাটসম্যানদের মধ্যে যে ছয় মারার প্রবণতা ক্রমাগত বাড়ছে, সেটাও স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন চ্যাপেল, ‘চিয়ারলিডারদের মতো ছয় মারার প্রবণতাও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে খুব সাধারণ ব্যাপারে পরিণত হয়েছে। এখন ৩০ শতাংশেরও বেশি রান আসছে ছয় থেকে। আগের চেয়ে এই হার বেড়েছে ১০ শতাংশেরও বেশি। টি-টোয়েন্টিতে ছয়ের এই আধিক্য হয়তো এর পৃষ্ঠপোষকদের কাছে খুব উত্তেজনাকর মনে হতে পারে। কিন্তু প্রতিযোগিতা আর বিনোদনের মধ্যে সঠিক সামঞ্জস্য বজায় রাখার ব্যাপারটাও ক্রিকেট প্রশাসকদের বিবেচনা করা উচিত।’

এ জাতীয় আরও খবর

রংপুরে করোনা শনাক্তের হার বাড়ছে  : একদিনে সর্বোচ্চ  ৪৩৮ জন

রংপুর নগরীর প্রধান সড়কগুলো চার্জার ও অটো রিকশার দখলে

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি নির্বাচনের পূর্ণাঙ্গ ফল

ইতালিতে হাইপোথার্মিয়ায় আক্রান্ত হয়ে সাত বাংলাদেশির মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে : দূতাবাস

সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর পোশাক কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে

রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কিত বলেই ষড়যন্ত্র-অপপ্রচারে বিএনপি : তথ্যমন্ত্রী

কাদের টাকায় লবিষ্ট নিয়োগ, ফখরুলকে কাদের

শাবিপ্রবি উপাচার্য ক্যাম্পাস ত্যাগ না করা পর্যন্ত আন্দোলনের ঘোষণা

রাতে তাপমাত্রা কমতে পারে

ফল ঘোষণা হয়নি, বাইরে বিজয়ের গুজব

রাত ৮টার পর রাজশাহীতে বন্ধ থাকবে সব দোকান

জোড়া সেঞ্চুরির ম্যাচে ঢাকার মধুর প্রতিশোধ