বৃহস্পতিবার, ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

অপহরণের ২৮ দিন পর রাকিবাকে উদ্ধার করেছে কসবা থানার পুলিশ

Rakibaব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় অপহরণের ২৮ দিন পর অপহরিতা রাকিবাকে উদ্ধার করেছে কসবা থানা পুলিশ ।
জেলার কসবা উপজেলার সৈয়দাবাদ গ্রামের বাছির মিয়ার কন্যা রাকিবা আক্তার(১৮)কে একই গ্রামের তাজু মিয়ার পুত্র মারুফ মিয়ার নেতৃত্বে ১১সদস্য একটি সংঘবদ্ধ দল গত ১জানুয়ারী রাকিবাবেকে অপহরণ করে। এই ব্যাপাওর অপহিতার ভাই মানিক মিয়া বাদি হয়ে কসবা থানায় মারুফ সহ ১২জনকে আসামী করে একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করে।
অপরগণকারীরা কুমিল্লা জেলার শশীদল ইউপির  বাংলাদেশ ভারত সীমান্ত দিয়ে রাকিবাকে নিয়ে ভারতে যায়। ১৮ দিন পর ভারতের ত্রিপুরা জেলার কমলচোরা থানা পুলিশ আটক করে তাকে আদালতে সোর্পদ করে। ভারতের আদালত ২৪ঘন্টার মধ্যে বাংলাদেশে প্রেরণ করার জন্য নির্দেশ দেন। সেই নির্দেশ মোতাবেক উক্ত থানার এস আই অমল চত্রবর্তী নেতৃত্বে থানার ওসি কসবা থানার ওসি মিজানুর রহমানকে মুঠোফোনে জানালে গত ২৯ জানুয়ারী বেলা ২ঘটিকায় ভারত বাংলাদেশ শশীদল সীমান্ত তেতা ভূমি নামক পিলার নং ২০৬০-৬এস দিয়ে বিএসএফ কর্তৃক শশীদল ও শংকুচাইল সীমান্ত ফাড়ীর বিজিবি যৌথ উদ্যোগে কসবা থানা পুলিশের কাছে অপহিতা রাকিবাকে বুঝিয়ে দেন।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে অপহিতা রাকিবাকে কসবা থানার ওসি মিজানুর রহমানের নির্দেশে এস আই মজিবুর রহমানের মাধ্যমে  মহিলা পুলিশ কর্তৃক আদালতের মাধ্যমে মেডিকেল করানোর জন্য প্রেরণ করেন।
অপহিতা রাকিবা আক্তার জানান প্রতিপক্ষ মারুফের পরিবারের সাথে তার পরিবারের ৪/৫টি জমি জাগা নিয়ে মামলা মোকাদ্দমার বিরোধের জের ধরেই অপহরণ করা হয় ।