শনিবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

আওয়ামী লীগ জামায়াতের সাথে হাত মিলিয়ে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা করেছে: শাহরিয়ার


Sahrierসম্প্রতি বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর সহিংসতার পর একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির পক্ষ থেকে চারটি টিম দেশের বিভিন্ন জেলার আক্রাšত্ম এলাকা পরিদর্শন করেছে। খুলনা, রাজশাহী, রংপুর এবং চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় এই টিমগুলো ঘুরে বেড়িয়ে সেখানকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেছেন। সেখানে তারা সাহায্য করা ছাড়াও হামলার কারণ অনুসন্ধান করেছেন এবং ক্ষয় ক্ষতির বিবরণও সংগ্রহ করেছেন।

এ নিয়ে কথা বলা হয়েছিল ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবিরের সাথে। আপনারা যেখানে যেখানে গিয়েছেন সেখানে কি দেখেছেন। এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এবারের হামলার জন্য প্রধানত দায়ী হচ্ছে জামায়াত বিএনপির জোট যারা সবসময় মনে করে ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা নৌকা সমর্থক। নির্বাচন এলেই এদের উপর এভাবে ঝাঁপিয়ে পরা হয়। এটা আমরা লক্ষ্য করেছি তাদের একটা তথাকথিত বড় অপরাধ হচ্ছে জামায়াত বিএনপির নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে এদের অনেকে ভোট দিতে গেছেন। বহু জায়গায় প্রাপ্ত বয়স্কদের আঙ্গুলে অমোচনীয় কালির দাগ দেখে তারা নিশ্চিত হয়ে হামলা করেছে এবং দোকান পাট জালিয়ে দিয়েছে, নারীদের উপর নির্যাতন করেছে, পুরুষদের মারধোর করেছে, মূল্যবান সম্পদ ও নগদ অর্থ লুট করেছে এবং হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এটা আমাদের খুব বিব্রত করেছে, ব্যথিত করেছে এবং আমরা সবাই খুব ক্ষুব্ধ হয়েছি।

হামলার কারণ মূলত নির্বাচন সংশ্লিষ্ট এবং এই কারণটিই আপনারা খুঁজে পেয়েছেন বলে মনে করেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, হ্যাঁ, প্রত্যেকবার নির্বাচন হলেই ধরে নেয়া হয় আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকুক বা না থাকুক হিন্দুদের উপর হামলা হবে। ঐ যে ধরে নেয়া হচ্ছে হিন্দুরা ভোট কেন্দ্রে যেতে না পারলে আওয়ামীলীগের ভোট কমবে। তাদেরকে বাড়ি ছাড়া গ্রাম ছাড়া করা হচ্ছে আবার কখনো হামলা করা হচ্ছে। এবারের নির্যাতনের এটাই কারণ তাদের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে কেন হিন্দুরা ভোট দিতে গেল।

অনেক স্থানে কিন্তু অভিযোগ পাওয়া গেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীরা এসব হামলার পিছনে ছিল বা আছে। এ অভিযোগ কতটা সত্যি আর যদি সত্যি হয় তবে তার কারণ কি? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরাও কোন কোন জায়গায় খবর পেয়েছি বিশেষ করে আমি বলতে পারি সাতক্ষীরা ও বগুড়ায় আমরা দেখেছি স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতৃত্ব জামায়াতের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে। তারা জামায়াতের অর্থের কাছে বশীভূত হয়েছে। যশোরে যেটা আমরা শুনেছি ভিকটিমদের কাছ থেকে যে আওয়ামীলীগের যে বিরোধী প্রার্থী ছিলেন তার লোকেরা এই হামলা করেছে। কারণ আওয়ামীলীগের যে অফিসিয়াল প্রার্থী তার ধর্মীয় পরিচয় হিন্দু বিদ্রোহী প্রার্থী যিনি তিনি সরকারের হুইপ ছিলেন। এ অভিযোগগুলো আমরা পেয়েছি যেকারণে আমরা সরকরকে বলেছি। প্রশাসনের মধ্যে আমরা দেখেছি অনেক জায়গায় এই জামায়াত বিএনপির লোকেরা বসে আছে এবং তারা এ হামলাকারীদেরকে সহায়তা করছে।

আপনারা শুনেছেন যে আওয়ামীলীগের কর্মীরা এর সাথে জড়িত আছে। কিন্তু এমন কোন প্রমাণ কি আপনারা সংগ্রহ করতে পেরেছেন পরিদর্শনকালে। তিনি এ প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমরা তো ভিকটিমদের সাথে সরাসরি কথা বলেছি। ভিকটিমরা যেটা বলেছে সেটি আমরা নথিবদ্ধ করেছি। একই সঙ্গে তো বগুড়ার ঘটনা কাগজেও অনেক বার এসেছে। সেখানকার যে আওয়ামীলীগের সভাপতি ছিলেন তিনি হামলার দিন যৌথ বাহিনী যে ৬৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল তাদের দশ জনকে ছাড়িয়ে নিয়ে গেছেন। এটা খবরের কাগজে এসেছে এবং ভিকটিমরাও আমাদেরকে বলেছে।

এই ধরনের পরিস্থিতি যা আপনারা বিভিন্ন জায়গায় পরিদর্শন কালে দেখে এসেছেন। এ ধরনের পরিস্থিতি আর যেন না ঘটে সেজন্যে কি কোন সুপারিশ আপনারা করবেন। আমরাতো সুপারিশ করছি। আর প্রথম কথা হচ্ছে দুর্গত এলাকায় প্রথমে ত্রাণ পৌঁছাতে হবে। সমস্যা হচ্ছে জামায়াত বিএনপির অবরোধ ছিল। আমাদের ৭ ডিসেম্বর যাওয়ার কথা ছিল আমরা যেতে পারিনি অবরোধের কারণে। অবরোধের কারণে সময়মত ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেয়া যাচ্ছে না এবং দুর্গত এলাকায় যাওয়া যাচ্ছে না। একটা কথা সরকারকে আমরা স্পষ্ট করে বলেছি আওয়ামীলীগেরও যাদের সম্পর্কে অভিযোগ উঠেছে তাদের বিরুদ্ধে তদšত্ম করে অবিলম্বে তাদেরকে দল থেকে বহিষ্কার করে তাদেরকে বিচারে সোপর্দ করতে হবে। হামলাকারীদেরকে দ্রুত বিচার আদালতে বিচার করতে হবে। প্রশাসনের মধ্যেও যারা হামলার সময় হামলা প্রতিহত করেননি এবং নিরব ছিলেন বা সহযোগিতা করেননি তাদেরকেও চিহ্নিত করে আইনের হাতে সোপর্দ করতে হবে। তাদের কাউকেই কোন ছাড় দেয়া যাবে না। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে জামায়াত শিবিরের সন্ত্রাসী রাজনীতি নিষিদ্ধ না হলে এই সাম্প্রদায়িকতা ও মৌলবাদী সন্ত্রাস বাংলাদেশে নির্মূল হবেনা। বিবিসি

এ জাতীয় আরও খবর

আহসান কবীরকে চাপা দেওয়া সিটি করপোরেশনের গাড়িচালক গ্রেপ্তার

নাসিরনগরে স্থায়ী মন্দিরের নিরাপত্তা বিষয়ক মতবিনিময় সভা

নাসিরনগরে ধান ক্ষেত থেকে অজ্ঞাত ব‍্যাক্তির লাশ উদ্ধার

নাসিরনগরে তৈরি হচ্ছে দেশীয় মাছের নানা জাতের শুটকি

বিয়ের আগেই মা হচ্ছেন স্বরা!

রাস্তা হওয়া উচিত ক্যাটরিনার গালের মতো মসৃণ: রাজস্থানের মন্ত্রী

ঢাকায় বিএনপির মশাল মিছিল

খালেদাকে স্লো পয়জনিং করলে বিএনপির লোকেরাই করতে পারে: কাদের

গণতন্ত্রের কথা বলে যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন দেশকে চাপে রাখতে চায়

লাইসেন্স ছাড়াই ডিএসসিসির গাড়ি চলাচ্ছিলেন হারুন-রাসেল: র‌্যাব

সেই লিটন, এই লিটন

ভোলায় মাঝনদীতে চেয়ারম্যান-মেম্বারদের লক্ষ্য করে গুলি, নিহত ১