মঙ্গলবার, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোটের হার জানে না কেউ!

Vottসময়ের হিসাবে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে ২০ ঘণ্টা আগে। ফলাফলও ঘোষণা হয়েছে ১০ ঘণ্টা আগে। ফলাফল ১৪৭ আসনে আওয়ামী লীগ ১২৭ এবং বাকীগুলো জাতীয় পার্টি ও স্বতন্ত্র দলের দখলে। কিন্তু কত ভোট পড়েছে তা জানে না কেউ। নির্বাচন কমিশনেরও অবস্থান এমন ‘ভোটের সব জানাবো কিন্তু এটা জানাবো না।’ রাতে ফলাফল ঘোষণার সময় ভোট প্রদানের হার প্রকাশে গড়িমসি করছিল নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বেশি ভোট পড়েছে এমন কয়েকটি আসনের ভোটের হার জানিয়ে মুখ লুকানোর চেষ্টা করেছে কমিশন। দেশি ও বিদেশি সংবাদমাধ্যমগুলো তাদের নিজস্ব পর্যবেক্ষণে ভোটার উপস্থিতির বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশ করেছে। কম ভোটার উপস্থিতি নিয়ে হতাশ বিজয়ী আওয়ামী লীগও। ভোটার উপস্থিতি বাড়াতে দলটিকে নেতা-কর্মীদের চাপ প্রয়োগ করতে দেখা গেছে। প্রথম আলো ঢাকার ৮টি আসনের ১৯টি কেন্দ্রের ফলাফল পর্যবেক্ষণ করে জানিয়েছে, ঢাকার ১৯টি কেন্দ্রে ভোট পড়েছে মাত্র ২৫ দশমিক ২৫ শতাংশ। তবে দৈনিক জনকণ্ঠ ‘ভোটের রায় গণতন্ত্রের পক্ষে’ শিরোনামে প্রধান খবরে দাবি করেছে এ নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৫০ শতাংশের বেশি। আর বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন জানিয়েছে, এ নির্বাচনে গড়ে ১০ ভাগ ভোট পড়েছে। কমিশন এক বিবৃতিতে জানায়, ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটার ছিলো খুবই স্বল্প সংখ্যক। বেশিরভাগ ভোটকেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি ছিল শতকরা শূন্য ভাগ থেকে ১০ ভাগ পর্যন্ত। কিছু কিছু কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন দলের মনোনিত প্রার্থী ও তাদের বিদ্রোহী প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও ওই সব আসনে সর্বোচ্চ ২০ থেকে ২৫ ভাগের বেশি ভোট পড়েনি। এদিকে বিবিসি বলেছে, রোববার সকালে ভোটকেন্দ্রে খুব স্বল্পসংখ্যক ভোটারের উপস্থিতি দেখা গেছে। সাড়ে তিনটা পর্যন্ত ঢাকার কয়েকটি কেন্দ্র পর্যবেক্ষণ করে সংবাদ মাধ্যমটি জানিয়েছে, ঢাকার আজিমপুরের ওয়েস্ট এন্ড হাইস্কুল কেন্দ্রে ১৯৭৪ জন ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছেন মাত্র ২৫০ জন। একই সময়ে সদরঘাটের মুসলিম হাইস্কুল কেন্দ্রের ২,৫০০ জন পুরুষ ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৫০০ জন এবং ২৩৪৫ জন নারী ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছেন ২৬০ জন। সিলেটের একটি কেন্দ্রে বিকেল ৩টা পর্যন্ত ভোট পড়েনি একটিও। চট্টগ্রাম, খুলনা আর বরিশালেও ভোটারদের উপস্থিতি ছিল অত্যন্ত কম। বিবিসি আরো জানায়, ১৯৯৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বর্তমান বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়ার অধীনে অনুষ্ঠিত এক তরফা নির্বাচনে মোট ভোটারদের মধ্যে ২৬ শতাংশের কিছু বেশি মানুষ ভোট দিয়েছিলেন। নির্বাচন কমিশনারের বরাত দিয়ে দৈনিক কালেরকণ্ঠ জানায়, ‘কী দরকার ছিল টার্ন-আউট দেখানো। এ তথ্য কেউ কি বিশ্বাস করবে?’ পত্রিকাটির প্রতিবেদনে বলা হয়, ঢাকার আসনগুলোতে ভোট প্রদানের যে হার দেখানো হয়েছে, তা যথার্থ এবং স্বাভাবিক। কিন্তু ঢাকার বাইরে কিছু জেলায় এ নিয়ে বাড়াবাড়ি হচ্ছে। আওয়ামী লীগের এক নেতার বরাত দিয়ে ‘ভোটার উপস্থিতি নিয়ে হতাশ আওয়ামী লীগ’ শিরোনামে পত্রিকাটি আরো জানিয়েছে, ‘সংগঠন হিসেবে আওয়ামী লীগ শক্তিশালী নেই। দলটি কোথাও ঐক্যবদ্ধও নেই। প্রশাসনিক সহযোগিতায়-ই নির্বাচনের বৈতরনী পাড়ি দিতে সক্ষম হয়েছে আওয়ামী লীগ।’ পত্রিকাটি আরো জানায়, তৃণমূলকে নির্দেশনা দিয়ে গেলেও তা কাজে না আসায় বিকেল ৩টার দিকে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির কার্যালয়ে বসে থাকা শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের হতাশ দেখা যায়। এ সময় সেখানে উপস্থিত তোফায়েল আহমেদ, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, মোহাম্মদ নাসিম, ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর, ওবায়দুল কাদেরসহ শীর্ষস্থানীয় নেতাদের চেহারায় হতাশার ছাপ দেখা গেছে। একপর্যায়ে ওবায়দুল কাদের ও জাহাঙ্গীর কবির নানক একের পর এক ফোন তৎপরতা বাড়িয়ে দেন। জেলার নেতাদের ফোন করে তারা ভোটার উপস্থিতি বাড়াতে ‘নন স্টপ’ তাগিদ দিতে থাকেন। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তুলতেও বলা হয়েছে কেন্দ্র থেকে। এ সময় শোনা যায় একজন কেন্দ্রীয় নেতা ফোনে বলছেন, ‘মহিলা ভোটারদের কেন্দ্রে নিয়ে যাও। একজন নেতা-কর্মী ও সমর্থক কেউ যাতে ভোট দেওয়া থেকে বিরত না থাকে তা নিশ্চিত করো।’ এ সময় তারা সাতক্ষীরা, ফেনী, লক্ষ্মীপুর, রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, খুলনা, দিনাজপুর, যশোর, গাইবান্ধা, পটুয়াখালী, লালমনিরহাট, বগুড়া ও ঢাকার বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের খবরদারি করতে দেখা গেছে। ভোটহার নিয়ে আগাম প্রচারণা : নির্বাচন কমিশনের ঘোষণার আগেই ‘সংবাদমাধ্যমের’ বরাত দিয়ে নির্বাচনে ৪০ ভাগ ভোট পড়েছে এবং তা বাড়ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে ও তার তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। রোববার দিবাগত রাত ১২টার দিক থেকে নিজের ফেসবুক ফ্যান পেইজে দেয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি বলেন, সংবাদমাধ্যমগুলো যে রিপোর্ট প্রকাশ করছে তাতে ভোটাদের ভোটদানের হার এখন পর্যন্ত প্রায় ৪০% বলছে, যা ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। ৪-৫ টি সংসদীয় আসন নিয়ে গঠিত পুরো দুটি জেলায়, ভোটাদের ভোটদানের হার ছিল ৫১%। শীর্ষ নিউজ ডটকম

এ জাতীয় আরও খবর

কাতারের আমিরকে লালগালিচা অভ্যর্থনা, সফরসূচিতে যা থাকছে

বাসের সঙ্গে মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে চুয়েটের দুই শিক্ষার্থী নিহত

নাসিরনগরে ১৯টি সেচ্ছাসেবী সংগঠনের মিলন মেলা

খরার ঝুঁকিতে পড়েছে রংপুর অঞ্চল : চাষাবাদে নেতিবাচক প্রভাব পড়ার শঙ্কা

চীনে ভয়াবহ বন্যা, সরিয়ে নেওয়া হলো হাজার হাজার মানুষকে

সুইমিংপুলে গোসলে নেমে ঢাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ঢাকায় পৌঁছেছেন কাতারের আমির

ইসরায়েলের সামরিক গোয়েন্দাপ্রধানের পদত্যাগ

গরমের সংবাদ পড়ার সময় গরমেই অজ্ঞান উপস্থাপিকা!

‘বাংলাদেশে আরও বেশি বিনিয়োগে আগ্রহী চীন’

৪ মে থে‌কে বাড়বে ট্রেনের ভাড়া

বাসাবাড়িতে মশার লার্ভা পেলে ২৭ এপ্রিলের পর জেল-জরিমানা: মেয়র আতিক