রবিবার, ৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৩শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফাইনালে জামালের সঙ্গী মুক্তিযোদ্ধা

Moktijodaটাইব্রেকারে যাওয়ার আগেই মুক্তিযোদ্ধা জেতে। সেটা বোধ হয় ঠিক পছন্দ হচ্ছিল না রেফারি জালাল উদ্দিনের। বিতর্কিত পেনাল্টি দিয়ে তিনি ম্যাচে ফিরিয়ে এনেছিলেন বিজেএমসিকে। কিন্তু শেষরক্ষা করতে পারেননি। ১২০ মিনিটে ১-১ গোলের সমতায় থাকা ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধা ন্যায্য পাওনা বুঝে নিয়েছে টাইব্রেকারে। ৫-৩ গোলে জিতে ফিরে পেয়েছে চুরি যাওয়া ফাইনাইলের টিকিট। শুক্রবার ওয়ালটন ফেডারেশন কাপের ফাইনালে তারা লড়বে শক্তিশালী শেখ জামাল ধানমণ্ডির সঙ্গে।

দীর্ঘ আট বছর মুক্তিযোদ্ধা কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলছে। তারা সর্বশেষ খেলেছে ২০০৫ ফেডারেশন কাপের ফাইনাল। এর পর থেকে মুক্তিযোদ্ধার জৌলুস কমেছে, বেড়েছে অনটন। মাঝে দু-একবার শক্তি বাড়িয়ে চেষ্টা করেও সফল হয়নি। ইদানীং কোনোরকমে একটি দল হয় আর সেই দল নিয়ে এবার শফিকুল ইসলাম মানিক পৌঁছে গেছেন ফাইনালে। এটার কৃতিত্ব দেশি কোচেরই, অনেক সীমাবদ্ধতাকে জয় করে শৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে দলটি একাট্টা রাখতে পারেন। জানেন খেলোয়াড়দের কাছ থেকে খেলাটা আদায় করে নিতে। তাই অনেক কম বেতনেও তাঁর বিদেশিরা জ্বলে ওঠেন। কাল যেমন বিজেএমসির ইকাঙ্গা-বাঙ্গুরাদের ছাপিয়ে তাঁরাই ছিলেন উজ্জ্বল। ১৪ মিনিটেই তার ফল মিলে যেত নাইজেরিয়ান দুই সহোদরের যুগলবন্দিতে, এলিটা বেঞ্জামিনের লম্বা থ্রোয়ে এলিটা কিংসলের হেড পোস্টে লেগে ফেরায় বেঁচে গেছে বিজেএমসি। মিনিট চারেক বাদে আবার এনকোচা কিংসলের শট কোনো রকমে সেভ করেছেন বিজেএমসি গোলরক্ষক আরিফুল ইসলাম। এসব বিফলে গেলেও এলিটা কিংসলের তোপে বারবার খেই হারিয়ে ফেলছে বিজেএমসি ডিফেন্সে। ৬০ মিনিটে ইকাঙ্গার পা থেকে বলটা কেড়ে নিয়ে পোস্টের সামনে স্কয়ার পাস বাড়িয়ে দারুণ সুযোগ তৈরি করে দিলেও এনকোচা না মেরেছে শট, না টোকা। দুই মিনিট বাদে আরেকটি সুন্দর বল বের করে দিয়েছিলেন মোহাম্মদ বিপ্লবের পায়ে। সামনে গোলপোস্ট উন্মুক্ত দেখেও তিনি যেন ভয়ে শট নেননি, পাস বাড়িয়ে নিজে দায়মুক্ত হয়েছেন। সতীর্থদের এমন কাণ্ড দেখে শেষ পর্যন্ত এলিটা কিংসলে নিজেই নিয়েছেন গোলের দায়িত্ব। ৭৬ মিনিটে জাহিদ পারভেজের কর্নার কিকে হেড করে এই নাইজেরিয়ান এগিয়ে নিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধাকে।

পিছিয়ে পড়ার পরই ইসমাইল বাঙ্গুরাকে একটু দেখা গেছে। তার আগে কোয়ার্টার ফাইনালের দুরন্তপনা নেই ইসমাইল বাঙ্গুরার মধ্যে। শেখ রাসেলের মতো দুয়ার খোলা ডিফেন্স পাননি যে অনায়াসে গোলের মুখে যাবেন। এখানে যেতে হলে আগে এলিটা বেঞ্জামিন-উত্তমের চ্যালেঞ্জ জিততে হবে। সেটা তিনি একবারের জন্যও পারেননি। দূর থেকে শট নিয়ে মুক্তিযোদ্ধার বদলি গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদকে দুইবার চ্যালেঞ্জ জানিয়েও জিততে পারেননি। ৮৬ মিনিটে পেরেছেন রেফারি জালাল উদ্দিনের সৌজন্যে। মুক্তিযোদ্ধা গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ দু-হাত বাড়িয়েছেন বল গ্রিপে নিতে। বলটি আয়ত্তে নিতে পা তোলেন ইসমাইল বাঙ্গুরাও, না পেরে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন হিমেলকে সঙ্গে নিয়ে। এটি হলে বাঙ্গুরার বিপক্ষে ফাউল হয় কিন্তু রেফারি অবিশ্বাস্যভাবে তাঁর পক্ষে পেনাল্টি দিয়ে সবাইকে হতভম্ব করে দেয়। ৯০ মিনিটে মুক্তিযোদ্ধার জেতা ম্যাচটিকে নিয়ে গেছেন টাইব্রেকারে। তাদের খেলোয়াড়রা একাট্টা হয়ে এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছেন, মাঠ ছেড়ে একবার বেরিয়ে এসেও লাভ হয়নি। শেষমেশ বিতর্কিত পেনাল্টি মেনে বাঙ্গুরার গোলে ম্যাচে সমতা ফেরে এবং আবার মুক্তিযোদ্ধার লড়াই শুরু হয়।

এই লড়াই শেষ হয় টাইব্রেকারে গিয়ে। ওই বদলি গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ বিজেএমসির খান মোহাম্মদ তারার শট ঠেকিয়ে দিয়ে মুক্তিযোদ্ধাকে নিয়ে গেছেন ফাইনালে। মুক্তিযোদ্ধার পাঁচটি শটেই গোল হয়েছে, করেছেন এনামুল হক, মোহাম্মদ বিপ্লব, চমরিন রখাইন, এনকোচা ও এলিটা কিংসলে। বিজেএমসির তিন বিদেশি স্যামসন ইলিয়াসু, বাঙ্গুরা ও ইকাঙ্গা গোল করলেও খান মোহাম্মদ তারাই শেষ পর্যন্ত ভিলেন। আসলে তিনি ভিলেন নয়, সত্য প্রতিষ্ঠার একটা উছিলা মাত্র! এভাবেই ব্যাখ্যা করতে চেয়েছেন মুক্তিযোদ্ধার কোচ শফিকুল ইসলাম মানিক, 'শেষ পর্যন্ত সত্যের জয় হয়েছে। পেনাল্টি দেওয়াটা রেফারির একটা প্রি-ডিসিশান ছিল। আমাদের জিততে দেওয়া যাবে না, ব্যাপারটা এমনই ছিল। নইলে ওই গোলের আগে আমাদের দারুণ সুযোগটিকে অফসাইডের জন্য বাতিল করে দেবে কেন। ওটা কোনোভাবেই অফসাইড ছিল না।' ৮৪ মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাকে মোহাম্মদ বিপ্লবের বাড়ানো বলটি পেছন থেকে দৌড়ে গিয়ে ধরেও এলিটা কিংসলে পড়েছিলেন অফসাইডের ফাঁদে।

বিজেএমসি শুধু আনুষ্ঠানিক প্রতিপক্ষ। তাদের পাশপাশি এমন একপেশে রেফারিংকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে আট বছর পর মুক্তিযোদ্ধা ফেডারেশন কাপের মহামঞ্চে।

মুক্তিযোদ্ধা : আমিনুল (রাসেল মাহমুদ), এলিটা বেঞ্জামিন, উত্তম, জাহেদ (রফিকুর), এনামুল, এলিটা কিংসলে, শাহেদ, বিপুল (চমরিন), বিপ্লব, জেরার্ড ও এনকোচা কিংসলে।

বিজেএমসি : রনি, খান মোহাম্মদ, আবদুল্লাহ পারভেজ, উচে ফেলিক্স, বাঙ্গুরা, তপু (আমিনুর রহমান), শাকিল, ইকাঙ্গা, আরিফুল (হিমেল), সাইফুল ও স্যামসন।

 

এ জাতীয় আরও খবর

বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে খুন

সরকারের উন্নয়নের ফানুস ফুটো হয়ে যাচ্ছে: সাকি

কিয়ারা আপনার প্যান্ট কোথায়, প্রশ্ন নেটিজেনদের

হাঁটুর অস্ত্রোপচারের পর দোয়া চাইলেন শোয়েব আখতার

চীন সীমান্তে সামরিক মহড়া চালাবে যুক্তরাষ্ট্র-ভারত

শিল্পাঞ্চলে আলাদা সাপ্তাহিক ছুটির ভাবনা

সরকার নিরুপায় হয়ে জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়েছে : কাদের

মিরাজের শিকারে জিম্বাবুয়ের তৃতীয় উইকেট

পুলিশের গাড়িতে বাসের ধাক্কা, কনস্টেবলের প্রাণ গেল

দারুণ ফিফটির পর তামিমের বিদায়

‘যাত্রী প্রতিনিধি ছাড়াই বাস ভাড়া নির্ধারণ করা হয়’

বাংলাদেশের ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা দেবে চীন