সোমবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আমি বরাবরই যোদ্ধা, যুদ্ধ করেই জিতব : মাহিয়া মাহি

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে করা আপিলের শুনানি শেষে মনোনয়ন ফিরে পেয়েছেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। কমিশন তার প্রার্থিতা মঞ্জুর করায় নির্বাচনে অংশ নিতে আর কোনো বাধা থাকলো না। শুনানিতে অংশ নেওয়া শেষে মাহি বলেন, আমি বরাবরই যোদ্ধা, যুদ্ধ করেই জিতব আমি।

সোমবার (১১ডিসেম্বর) দুপুরে ইসির শুনানিতে অংশ নেন তিনি। এর আগে ১টা ৫৫ মিনিটে নির্বাচন ভবনে আসেন মাহি। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন স্বামী রকিব সরকার ও আইনজীবী। যদিও আপিল তথ্যে তার নাম উল্লেখ করা হয়েছে, শারমিন আক্তার নিপা মাহিয়া। তার আপিল নম্বর ১৭৯/২০২৩।

চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি বলেন, আমার এলাকার জনগণ আমাকে প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করিয়েছেন। আমি মনে করছি, রাজশাহী-১ আসনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হবে, ইনশাআল্লাহ আমি বিপুল ভোটে জয়লাভ করব। আমি বরাবরাই যোদ্ধা, যুদ্ধ করেই জিতব আমি।

জানা গেছে, রাজশাহী-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন মাহি। তবে গত ৩ ডিসেম্বর (রোববার) যাচাই-বাছাইয়ের সময় এক শতাংশ ভোটারের ভুয়া স্বাক্ষর পাওয়ার অভিযোগে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

তবে এর আগে নিজেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে পরিচয় দিতে কষ্ট পান বলে জানিয়েছিলেন তিনি। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার দিন মাহিয়া মাহি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, স্বতন্ত্র বললেই মনে কষ্ট লাগে। কারণ আমি মনেপ্রাণে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদর্শকে লালন করি। প্রধানমন্ত্রীর নৌকাকে নিজের নৌকা মনে করি।

সেসময় তিনি বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, কোনো এলাকায় যেন কেউ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত না হন। এ জায়গা থেকেই আমি রাজশাহীর তানোর-গোদাগাড়ী আসন থেকে নির্বাচন করতে চাই। কারণ আমার কাছে মনে হয়েছে এ আসনটিতে আওয়ামী লীগের যে প্রার্থী আছেন তিনি অনেকটাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে যেতে পারেন। তাই প্রথম থেকেো এখানে নির্বাচন করতে চাই।

প্রসঙ্গত, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চেয়েছিলেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। এজন্য মনোনয়ন ফরম তুলেছিলেন রাজশাহী-১ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের জন্য। তবে দলের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ড তাকে বিবেচনায় নেয়নি।