সোমবার, ৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শাকিবের উপর যে কারণে খেপলেন ঝন্টু

news-image

বিনোদন প্রতিবেদক : স্বপ্নের গ্রিন কার্ডের আশায় গত বছর নভেম্বরে দেশত্যাগ করে আমেরিকায় আছেন ঢাকাই সিনেমার সুপারস্টার শাকিব খান। অবশেষে কাঙ্ক্ষিত সেই কার্ডটি তিনি পেয়েছেন, যা খবরের শিরোনামে আসে গতকাল মঙ্গলবার। সংবাদটি প্রকাশ্যে আসার পর অনেক গণমাধ্যমকর্মী শাকিব খানের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

আজ বুধবার এক সাক্ষাৎকারে গ্রিন কার্ড পাওয়ার পাশাপাশি শাকিব খান কথা বলেছেন দেশের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির নানা বিষয় নিয়ে। কথার একপর্যায়ে এই অভিনেতা বলেন, ‘ইন্ডাস্ট্রিটাকে যদি বাঁচিয়ে রাখতে হয়, সরকারকে শক্ত ভূমিকা নিতে হবে। যত ধরনের সমিতি আছে সব এফডিসির বাইরে নিয়ে যেতে হবে। এটা কাজের জায়গা, এখানে কোনো সমিতি, পলিটিকস বা নির্বাচন থাকতে পারবে না। যারা এসব করতে চায় তারা এফডিসির বাইরে গিয়ে করবে।’

শিল্পীর সমিতির প্রসঙ্গ টেনে শাকিব বলেন, ‘‘আমি সবসময় নিজের জায়গা থেকে চেষ্টা করি কত বড় জায়গায় পৌঁছানো যায়। ওই ‘ভুয়া সংগঠনের’ (শিল্পী সমিতি) দুবারের সভাপতি তো আমিও ছিলাম। এখন আমার উপলব্ধি হয়েছে এসব করে আসলে চলচ্চিত্রের কোনো লাভ হয় না। শিল্পীরা কাজ করতে চান, তাদের কাজ করতে দিতে হবে, ব্যস।’’

শাকিবের এমন কথা শুনে খেপেছেন বরেণ্য নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। তার কথার তীব্র সমালোচনাও করেছেন তিনি। গুণী এই নির্মাতার ভাষ্য,‘ওর (শাকিব খান) সমস্যাটা কী? ওর হাত-পা গজায় গেছে, শিল্পী সমিতি ভুয়া সংগঠন! অল্প বিদ্যা ভয়ংকরী- একটা কথা আছে না…। এবার তা অভিনয় জীবনের হউক আর পুথিগত বিদ্যাই হউক। অভিনয় জগতটাও ও ভালো করে রপ্ত করে নাই আর এজন্যই এ সমস্ত সংগঠনগুলোকে নিয়ে কথা বলছে। এত বড় বড় শিল্পী আলমগীর সাহেব, ৯ বার জাতীয় পুরস্কার পেয়েছে। উনি তো কোনদিন এসব কথা বলে নাই। রাজ্জাক সাহেব, শাবানা, ববিতা, জসিম, ফারুক মান্না এত ছবির জনপ্রিয়তা পেয়েছে তারা তো কখনো এসব কথা বলে নাই।’

ক্ষোভ নিয়ে দেলোয়ার জাহান ঝন্টু আরও বলেন, ‘এ জন্যই বলেছি অল্প বিদ্যা ভয়ংকরী- অভিনয়ের অল্প বিদ্যা গ্রহণ করার পর এটা বিরাট মনে করে…। যে সমিতিতে রাজ্জাক, খলিল (খলিল উল্যাহ খান), আহমেদ শরীফে ছিল। তারা তো সব জাতীয় চলচ্চিত্র পাওয়া শিল্পী আর শিল্পী সমিতির বড় বড় পোস্টে ছিল। তাহলে তারা কি সবাই ভুয়া সমিতির সভাপতি ছিল। অনেক বড় বড় শিল্পীরা এই সমিতিতে ছিল, তাহলে…। ওর (শাকিব খান) সমস্যাটা কি? এটা বলুক না। সেকি বেশি বুঝে গেছে চলচ্চিত্রকে! ওর মতো অভিনেতা তো বহু আসছে… এখনো তো ও মান্না হতে পারে নাই। ইন্ডাস্ট্রিতে তো বড় বড় শিল্পীরাও এসব কথা বলে না। ও তো আজ আছে কাল নেই। এখন ওর কাছে ইন্ডাস্ট্রি ভুয়া হয়ে গেছে, এগুলো ঠিক না।’

সবশেষে গুণী এই নির্মাতা বলেন, ‘শিল্পীদের অনেক সম্মান। আর এই শিল্পীদের সমিতিকে ভুয়া বলার কারণে সকল শিল্পীদের কাছে ওর ক্ষমা চাওয়া উচিত।’

এ জাতীয় আরও খবর