মঙ্গলবার, ২৮শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পুলিশি নিরাপত্তা পেলেন যশোদাবেন

ভারতের নতুন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্ত্রী যশোদাবেন চিমনলালকে পুলিশি নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার গুজরাটের মেহসেনা জেলার ব্রাহ্মণওয়াড়া গ্রামে তাঁর বাড়ির সামনে নিরাপত্তার জন্য একজন সশস্ত্র পুলিশসহ পাঁচ পুলিশ সদস্যকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

১৯৬৮ সালে যশোদাবেনকে বিয়ে করেন নরেন্দ্র মোদি। তখন যশোদাবেনের বয়স ছিল ১৭ বছর। মাত্র তিন বছর পর মোদি আরএসএসের একজন সক্রিয় কর্মী হিসেবে সংসার-ধর্ম ত্যাগ করেন। এরপর আর মোদি খোঁজ রাখেননি যশোদাবেনের। যশোদাবেনও গুজরাটের ব্রাহ্মণওয়াড়া গ্রামে ভাইদের কাছে চলে যান। এর দীর্ঘ ৪৫ বছর পর যশোদাবেনকে স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি দেন মোদি। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হওয়া লোকসভা নির্বাচনের আগে গুজরাটের ভাদোদরা আসনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় স্ত্রীর নামের জায়গায় যশোদাবেনের নাম লেখেন মোদি। পরে বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে তা আলোচনায় আসে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন যশোদাবেন। কিন্তু শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যাওয়ার আমন্ত্রণ না পেলেও এখন থেকে প্রধানমন্ত্রীর স্ত্রী হিসেবে পুলিশি নিরাপত্তায় থাকবেন তিনি।

মেহসেনা জেলার ডেপুটি পুলিশ সুপার এস বি ত্রিবেদী জানান, যশোদাবেনের নিরাপত্তার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তাঁর বাড়ির সামনে পুলিশ দেওয়া হয়েছে।

তবে নরেন্দ্র মোদির মা হীরাবেনকে এখনো পুলিশি নিরাপত্তা দেওয়া হয়নি। মোদির মা গুজরাটের রাজধানী গান্ধীনগরে ছোট ছেলে পংকজের সঙ্গে থাকেন। হীরাবেনকে পুলিশি নিরাপত্তা না দেওয়া প্রসঙ্গে গান্ধীনগরের একজন পুলিশ কর্মকর্তা জানান, তাঁর পুলিশি নিরাপত্তার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কোনো নির্দেশনা তাঁরা পাননি।