শুক্রবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছিনতাই আতংক সর্বত্র ॥ দিনে রাতে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে

brahmanbaria picনিজস্ব প্রতিবেদক : ছিনতাইয়ের আতংক এখন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সর্বত্র। মে মাসের শুরুতেই বেশ কয়েকটি চাঞ্ছল্যকর ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা সদরে। দিনে রাতে শহরে ছিনতাইকারীদের অপতৎপরতার খবর পাওয়া যাচ্ছে। মুখোশপড়া ছিনতাইকারীরা ধাড়ালো অস্ত্রের মুখে জিম্মিকরে মানুষের কাছ থেকে সর্বস্ব নিয়ে যাচ্ছে। রাতের আঁধারেই নয় দিনের বেলায় ঘটছে দুঃসাহসী ছিনতাইয়ের ঘটনা। শহরের চিহ্নিত ছিনতাই স্পটগুলোতে উৎপেতে থেকে ট্রেন, বাসযাত্রীদের টার্গেট করে ছিনতাই ঘটনা তো আছেই গত ১ সপ্তাহে মুখোশ পড়ে মোটর সাইকেল যোগে ছিনতাই কারীরা শিকার ধরে মালামাল নিয়ে গেছে। সিএনজি অটোরিক্সায় যাত্রীবেশে উঠে গ্রাম থেকে আসা মানুষকে অস্ত্র ঠেকিয়ে মালামাল নিয়ে যাওয়ার ঘটনাও রয়েছে। ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে পশু জবাইয়ের বড় ছুড়ি, চাপাতি, রড সহ বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র। গত কয়েকদিনের ছিনতাইয়ের ঘটনাগুলোর মধ্যে গত ৬ মে শহরের রামকানাই স্কুল সড়কে সকাল সাড়ে ৮ টায় ইসলামপুর থেকে শহরে আসা ইয়ার মোঃ খালেদ রাসেল নামক এক ব্যক্তিকে মোটর সাইকেল নিয়ে আসা  ছিনতাইকারীরা আটক করে । পশু জবাইয়ের ছুড়ি ধরে তার কাছ থেকে মোবাইল সহ টাকা চায়। একপর্যায়ে রাসেল চিৎকার দিয়ে দৌড়ে পালিয়ে কোনভাবে প্রাণে রক্ষা পেয়েছে। ৪ মে  শহরের মধ্যপাড়া দিঘীর পাড়ে চিহ্নিত ছিনতাইস্পটে মুখোশপড়া ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে মধ্যপাড়ার (বসাক পাড়া) ওসমান (২৭) ও ধীমান (২৫) নামক ২ ব্যক্তি। তারা রাতে স্টেশন থেকে মধ্যপাড়ার বাড়িতে ফিরছিল। ৪ ছিনতাইকারী ধাড়ালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তাদের কাছ থেকে ২ টি মোবাইল ও নগদ ১১ শ টাকা নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে তারা শোর চিৎকার করে, এতে আশপাশের বাড়ি ঘরের মানুষ জেগে উঠলে ছিনতাইকাররীরা দিঘীর পাড়ের দক্ষিণ দিকের খাল পেরিয়ে চলে যায়। ২ মে অপূর্ব কুমার চন্দ নামক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এক আইনজীবি বিকেলে ছিনতাকারীর কবলে পড়ে। ছিনতাইকারীরা তার কাছ থেকে ৩ হাজার টাকা মোবাইল নিয়ে যায় । তিনি জানান, নাসিরনগর থেকে তিনি অটোরিক্সা দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে আসছিলেন। বিশ্ব^রোড মোড়ে  ৪ ছিনতাইকারী যাত্রীবেশে উঠে । সুহিল পুর এলাকায় পৌছলে ছিনতাইকারীরা অটোরিক্সার মধ্যে ধাড়ালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তার কাছ থেকে টাকা এবং মোবাইল সেট নিয়ে যায়। এ ছাড়া চলতি মাসেই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ২ সাংবাদিক সহ ৩ জন শহরের সরকার পাড়া এলাকায় ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে। মুখোশধারী ছিনতাইকারীরা পশু জবাইয়ের ছুড়ি দিয়ে তাদের আহত করে একটি ব্যাগ ল্যাপটপ মোবাইল নগদ টাকা  নিয়ে যায়। এদিকে সংঘটিত বিভিন্ন্  ঘটনায় ছিনতাই হওয়া মালামাল সহ আসল ছিনতাইকারীরা ধরা পড়ছে না। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের নিরিবিলি পড়া মহল্লায় দিনে রাতে ছিনতাই হচ্ছে। শহরের লোকনাথ দিঘীর আশপাশ এলাকায় ছিনতাইকারীদের অপতৎপরতা রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।  ধাড়ালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি হয়ে শহরের অনেকে ছিনতাই কারীদের হাতে মালামাল দিয়ে নিরাপত্তার জন্য তা প্রকাশ করছে না।  পুলিশ ছিনতাই রোধে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করলেও বন্ধ হচ্ছে না ছিনতাই। একের পর একর ছিনতাইয়ের ঘটনায় শহরের বিভিন্ন মহলে আতংক সৃস্টি হয়েছে। জেলা নাগরিক কমিটি সহ বিভিন্ন সংগঠন এ বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। সকল মহলেই ছিনতাই রোধে কার্যকরী বলিস।ঠ পদক্ষেপ এর দাবী উঠেছে।