শুক্রবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নবীনগরের শিবপুরে কালাম বাহিনীর অত্যাচারের শিকার এলাকাবাসী

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার শিবপুর গ্রামের কালাম বাহিনী নানা অত্যাচারের শিকার হয়ে এই অত্যাচার থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। সাংবাদিক সম্মেলনে নবীনগর উপজেলার ৩ ইউপি চেয়ারম্যান সহ এলাকাবাসী জানান, নবীনগরে আইন শৃঙ্খলা  পরিস্থিতি পূর্বের চেয়ে ভাল, শিবপুরের আবুল কালাম সহ তার লোকজন এলাকার শান্তিপূর্ণ পরিবেশকে নষ্ট করছে, শুধু তাই না তারা নানা অপ্রচারও চালাচ্ছে। বৃহস্পতিবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনে নবীনগরের মানবাধিকার কর্মী জাফর আহমেদ সাদেক লিখিত বক্তব্যে জানান, আবুল কালাম বাহিনী নবীনগরের শিবপুর গ্রামে নানা অত্যাচার করছে, ২০১৩ সালে শিবপুর দক্ষিণপাড়ার ২৩ ফুট রাস্তা নিয়ে নিয়ে আবুল কালাম সাথে বিরোধ সৃস্টি হয়। আবুল কালাম রাস্তার উপর ঘর তুলে ফেলে, স্থানীয় এলাকাবাসী রাস্তায় চলাচলের জন্য ঘর অপসারণ করতে চাইলে নানাভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। এ নিয়ে ৫ টি মামলা হয়। উক্ত আবুল কালাম তার লোকজন নিয়ে গ্রামবাসীকে নানাভাবে হয়রাণী করছে। গত ৭ এপ্রিল বাবুল মিয়া নামক এক ব্যক্তির হাত পা ভেঙ্গে দিয়েছে কালাম বাহিনী। পুলিশ এ ঘটনায় দেশীয় অস্ত্র সহ ৪ জনকে আটক করে। এ ঘটনার পর থেকে কালাম সহ লোকজন গ্রামবাসীকে নানা হুমকী দিচ্ছে। ১৩ এপ্রিল বাবুল মিয়ার পুত্রবধূকে আবুল কালামের ভাতিজা সহ সহযোগিরা ধর্ষণের উদ্দেশ্যে অত্যাচার করে। এসব ঘটনার পর গত বুধবার সাংবাদিক সম্মেলন করে তারা মিথ্যা তথ্য দিয়ে নানা অপপ্রচার করেছে, এতে আমাদের মান মর্যাদার হানি হয়েছে। সাংবাদিক সম্মেলনে কালাম যে সব তথ্য দিয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। শুধু তাই নয় রাস্তা সংক্রান্ত বিরোধ নিস্পত্তির জন্য ২৩ আগস্ট বিভিন্ন  ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের সমন্ব^য়ে বৈঠক ডাকা হলেও আবুল কালাম তাতে উপস্থিত হয়নি। সাংবাদিক সম্মেলনে আবুল কালাম তার ভাই ভাতিজার বিভিন্ন অপকর্ম নিয়ে অভিযোগে বলা হয় শিবপুর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আবুল কালাম বিদ্যালয়ের কার্যক্রমে দূর্নীতি করেছে. মসজিদ পুকুরের ইজারার টাকা আত্মসাৎ, আটিয়ারা গ্রামের হুসেন জাীর জায়গা জোরপূর্বক দখর,গ্রামের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে বাধা দেয় সে। তার ভাই তোফাজ্জল হবি মিয়া নামক এক ব্যক্তির বিদেশী টাকা অত্মসাৎ, হারেজ মাঝি, তাবুদ্দি, মনসুর ডাক্তার, সুনীল মাস্টারের ছোটভাইকে অন্যায় ভাবে মারধোর করেছে। কালামের ভাতিজা জাকির শিবপুর বাজারে হাজী আবদুল হামিদের মিস্টির দোকার লুটসহ তারা নানা অপকর্মে জড়িত। সাংবাদিক সম্মেলনে শিবপুর ইউপি চেয়ারম্যান সামসুল হক, কাইতলা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান, বিদ্যাকুট ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রইফ জানান, নবীনগরের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি এখন মোটামুটি ভাল। স্থানীয় পুলিশ সহ প্রশাসনকে দোষারোপ করে যে সব তথ্য দিয়েছে তা সঠিক নয়। আবুল কালাম এলাকার শান্তিপূর্ণ পরিবেশকে ব্যাহত করছে। বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য আমরা একাধিকারবার তাকে বৈঠকে আহবান করেছি কিন্তু নানা অসুবিধা দেখিয়ে সে মিটিং এ আসেনি। সাংবাদিক সম্মেলনে কালাম বাহিনীর অত্যাচারে নির্যাতিত বাবুল মিয়া,সমাজসেবক ফারুক মিয়া, হাজী আব্দুস সহিদ,নাসিরউদ্দিন,স্কুল শিক্ষক আবুল হাশেম উপস্থিত ছিলেন।