শনিবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

রাষ্ট্রপতির একটি ঘোষণার অপেক্ষায় দেশবাসি

Abdul Hamidদেশের সংকটময় রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে সমঝোতার সব প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর রাষ্ট্রপতির একটি উদ্যোগের অপেক্ষায় থাকা দেশবাসি বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বঙ্গভবনে গিয়ে রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করার খবর এরই মধ্যে জেনে গেছেন। বেগম জিয়া ১৮ দলীয় জোটের ২০ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের সাথে এক ঘন্টার বৈঠককালে বর্তমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে সংলাপ ও সমঝোতার উদ্যোগ নেয়ার অনুরোধ করেছেন।

বৈঠক শেষে বঙ্গভবন থেকে বেরিয়ে আসার সময় অপেক্ষমান সাংবাদিকদের বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা রাষ্ট্রপতির কাছে বর্তমান রাজনৈতিক সংকট তুলে ধরেছি। যেহেতু তিনি রাষ্ট্রের বড় অভিভাবক তাই একটি সংলাপ ও সমঝোতার উদ্যোগ নেয়ার জন্যে তাকে আমরা অনুরোধ করেছি। রাষ্ট্রপতি বলেছেন, তিনি তার সাংবিধানিক ক্ষমতার মধ্যে সরকারের কাছে বিরোধীদলের বক্তব্য পৌঁছে দেবেন এবং সংকট নিরসনে উদ্যোগ নেবেন।

হরতাল, জ্বালাও পোড়াও আর পুলিশী এ্যাকশনে বিপর্য¯ত্ম দেশবাসি রাষ্ট্রপতির সাথে বিরোধী দলীয় নেত্রীর বৈঠকের পর আশান্বিত হয়েছেন। হরতাল আর পুলিশী এ্যাকশনের মধ্যেও রাজনীতিক, সুশীল সমাজ, বুদ্ধিজীবী, ব্যবসায়ীসহ নানা মহল চেষ্টা চালিয়েছে একটি সমঝোতার। কিন্তু সেই সমঝোতা নির্বাচনের ঠিক আগ মুহূর্তেও হয়নি। প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী দলীয় নেত্রীর মধ্যে ফোনালাপের পর মানুষ আশাবাদী হলেও ওই ফোনালাপ কোন সমাধানের পথ খুঁজে পায়নি। বরং ফোনালাপ নিয়ে একে অন্যকে দোষারোপ করে পরিস্থিতি আরও ঘোলাটে করেছে। ব্যবসায়ীরাও উদ্যোগ নিয়েছিলেন মহাসচিব পর্যায়ে আলোচনার। কিন্তু সে উদ্যোগও সফল হয়নি। স্পীকারের হ¯ত্মক্ষেপও চেয়েছিলেন অনেকে। কিন্তু তাও হয়নি।

তবে এরই মধ্যে রাজনৈতিক অঙ্গনে কিছু ঘটনা ঘটে যায় যা কারো কারো মতে পরিস্থিতিকে আরও ঘোলাটে করেছে, আবার এসব ঘটনা সংলাপ বা সমঝোতার পথ সুগম করেছে বলে অনেকে বলছেন। সর্বদলীয় নামে মহাজোটের নতুন মন্ত্রীদের শপথের ঘটনা এর মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত। মহাজোটের অন্যতম শরীক জাতীয় পার্টি মহাজোট থেকে বেরিয়ে মন্ত্রিসভায় যোগ দিয়ে একে সর্বদলীয় নাম ধারণে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

নতুন মন্ত্রীদের শপথের দিনেই বেগম খালেদা জিয়া রাষ্ট্রপতির সাথে বৈঠক করার জন্য সময় চান এবং মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় বৈঠকের আয়োজন হয়। সে অনুযায়ীই বৈঠক হয়েছে এবং দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বিরোধী দল তাদের প্র¯ত্মাব দিয়েছেন এবং রাষ্ট্রপতিও তার সাংবিধানিক ক্ষমতায় একটি উদ্যোগ নেবেন বলে জানিয়েছেন।

এখন দেশবাসি তাকিয়ে আছেন রাষ্ট্রপতির দিকেই। রাষ্ট্রপতির উদ্যোগে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে একটি সমঝোতা হবে এবং একটি অবাধ নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা হ¯ত্মাšত্মর হবে বলে দেশবাসির প্রত্যাশা। কিন্তু রাষ্ট্রপতি কতটা করতে পারবেন?

এর আগেও আমাদের দেশে বহু সংকট এসেছে। কিন্তু সমাধান না হওয়ায় দীর্ঘদিন সংকট থেকে গেছে এবং রাজনৈতিক সহিংসতায় বহু লোকের প্রাণ গেছে। রাষ্ট্রপতির চেষ্টা থাকলেও শাসক দলের ইচ্ছার বাইরে কিছু করতে পারেননি। চার দলীয় জোটের পাঁচ বছরের শাসনের শেষ প্রাšেত্ম ক্ষমতা হ¯ত্মাšত্মর নিয়ে ২০০৬ সালে যে সংকট তৈরি হয়েছিল সেখানেও তৎকালীন রাষ্ট্রপতি ইয়াজ উদ্দিন আহমেদ যা করেছেন তাতে বিএনপি’র ইচ্ছারই প্রতিফলন ঘটেছিল। কিন্তু সংকট নিরসন হয়নি। রাজনৈতিক সহিংসতায় প্রাণ দিতে হয়েছে অনেক মানুষকে। সংকট চলে ২০০৭ পর্যšত্মই।

ওই সংকটের সুযোগ নিয়ে এক এগারোর জন্ম এবং সারাদেশে জরুরি অবস্থা ঘোষণা। তখনও রাষ্ট্রপতি ছিলেন ইয়াজ উদ্দিন আহমেদ। বিএনপি সমর্থিত ওই রাষ্ট্রপতি তখন বিএনপির কথা ভুলে যান এবং যত সিদ্ধাšত্ম নেন তাতে এক এগারো সরকারের ইচ্ছারই প্রতিফলন ঘটে।

ঠিক আজও সরকারের নির্বাহী প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ অভিভাবক। তিনি মহাজোট কিংবা আওয়ামী লীগের সিদ্ধাšেত্মর বাইরে কিছু করতে পারবেন কি? প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারের যে প্র¯ত্মাব দিয়েছেন তাতে তিনি নিজেই যে সরকারের প্রধান থাকবেন এমন ঘোষণা না দিলেও মন্ত্রী থেকে শুরু করে দলের নেতারা নানা জায়গায় বলছেন, শেখ হাসিনাই থাকবেন সরকারের প্রধান। আর বিএনপি নির্বাচনে না এলেও নির্বাচন হবে বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন অনেক মন্ত্রী।

মন্ত্রীদের এসব কথা দলের সিদ্ধাšত্ম কিনা সে ব্যাপারে দেশবাসি নিশ্চিত না হলেও তাদের কথাকে পুরোপুরি গ্রহণ করতে পারছেন না। আশাবাদী হয়ে অপেক্ষা করছেন প্রধানমন্ত্রীর শেষ ঘোষণার জন্য।

এরই মধ্যে রাষ্ট্রপতির সাথে বিরোধী দলীয় নেত্রীর বৈঠক। এই বৈঠককে ঘিরেই যত জল্পনা কল্পনা। রাষ্ট্রপতি কি করতে যাচ্ছেন, কতদিনের মধ্যে সিদ্ধাšত্ম দেবেন, কতটা নিরপেক্ষ থেকে ভূমিকা রাখবেন, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বচন হতে পারবে কিনা এমন নানা প্রশ্ন এখন জনমনে। তবুও রাষ্ট্রপতির কাছে দেশবাসীর প্রত্যাশা অনেক। তাই দেশের মানুষের শাšিত্ম, নিরাপত্তা, আর একটি স্থায়ী নির্বচন পদ্ধতির জন্য রাষ্ট্রপতির একটি ঘোষণার অপেক্ষায় দেশবাসি।

আবু সাইদ: সোমবার দেশের প্রশাসনের প্রাণকেন্দ্র সচিবালয়ের পরিবেশ ছিল অন্যান্য দিনের চেয়ে একেবারেই ভিন্ন। অনেক মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীকে শেষ মুহুর্তের কাজে ব্য¯ত্ম দেখা গেলেও পদমর্যাদা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে থাকায় অনেককে আবার স্বাভাবিক কাজকর্ম থেকে বিরত থাকতে দেখা গেছে। সোমবার নির্বাচনকালীন ‘সর্বদলীয় সরকারের’ মন্ত্রিসভার সদস্যরা যখন বঙ্গভবনে শপথ নিচ্ছিলেন, তখন সচিবালয়ে বেজে ওঠে বিদায়ের সুর। মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের অনেকেই তখন আনুষ্ঠানিক ও অনানুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিতে শুরু করেন। অনেকে দপ্তরেই আসেননি।

মন্ত্রী- প্রতিমন্ত্রীসহ সবার আগ্রহ ছিল বঙ্গভবনের দিকে। দুপুরের পর থেকেই নাম আসতে থাকে, কারা শপথ নিচ্ছেন নতুন সরকারের মন্ত্রী হিসেবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের দায়িত্বশীল দুই কর্মকর্তা বলেন, যেসব মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী নির্বাচনকালীন সরকারে থাকবেন না, তাঁদের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করে গেজেট প্রকাশ করা হতে পারে।

বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্বাস্থ্যমন্ত্রী আ ফ ম রুহুল হক ও পাবর্ত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার সোমবার নিজ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বিদায়ী অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দপ্তরের একজন কর্মকর্তা জানান, প্রতিমন্ত্রী তাঁদের জানিয়েছেন তিনি সোমবারের পর আর মন্ত্রণালয়ে আসবেন না।

পানিসম্পদ মন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেন, ভূমিমন্ত্রী রেজাউল করিম, সমাজকল্যাণমন্ত্রী এনামুল হক মো¯ত্মফা শহীদ, মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার, ভূমিপ্রতিমন্ত্রী মো¯ত্মাফিজুর রহমান, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী এ বি তাজুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী সোমবার অফিসেই আসেননি বলে জানিয়েছেন তাঁদের দপ্তরের কর্মকর্তারা। এঁদের মধ্যে কেউ কেউ নিজ নির্বাচনী এলাকায় গেছেন।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ এনামুল হক সোমবারই অনানুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তাঁর দপ্তরের একজন কর্মকর্তা।

এ জাতীয় আরও খবর

আহসান কবীরকে চাপা দেওয়া সিটি করপোরেশনের গাড়িচালক গ্রেপ্তার

নাসিরনগরে স্থায়ী মন্দিরের নিরাপত্তা বিষয়ক মতবিনিময় সভা

নাসিরনগরে ধান ক্ষেত থেকে অজ্ঞাত ব‍্যাক্তির লাশ উদ্ধার

নাসিরনগরে তৈরি হচ্ছে দেশীয় মাছের নানা জাতের শুটকি

বিয়ের আগেই মা হচ্ছেন স্বরা!

রাস্তা হওয়া উচিত ক্যাটরিনার গালের মতো মসৃণ: রাজস্থানের মন্ত্রী

ঢাকায় বিএনপির মশাল মিছিল

খালেদাকে স্লো পয়জনিং করলে বিএনপির লোকেরাই করতে পারে: কাদের

গণতন্ত্রের কথা বলে যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন দেশকে চাপে রাখতে চায়

লাইসেন্স ছাড়াই ডিএসসিসির গাড়ি চলাচ্ছিলেন হারুন-রাসেল: র‌্যাব

সেই লিটন, এই লিটন

ভোলায় মাঝনদীতে চেয়ারম্যান-মেম্বারদের লক্ষ্য করে গুলি, নিহত ১