বুধবার, ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিমানবন্দরে বারবার হেনস্তার শিকার হয়েছি

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত সাত থেকে আট বছর ধরে বিদেশ যাওয়া ও আসার সময় হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বীভৎস হেনস্তার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা।

শনিবার জাতীয় সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে দেয়া বক্তব্য এই অভিযোগ করেন তিনি।

‘জনস্বার্থে আইনের দ্বারা আরোপিত যুক্তি সংগত বাধানিষেধ সাপেক্ষে বাংলাদেশের সর্বত্র অবাধ চলাফেরা, ইহার যেকোনো স্থানে বসবাস ও বসতি স্থাপন এবং বাংলাদেশ ত্যাগ ও বাংলাদেশে পুনঃপ্রবেশ করিবার অধিকার প্রত্যেক নাগরিকের থাকিবে’-সংবিধানের ৩৬ অনুচ্ছেদের এই কথা উল্লেখ করে রুমিন ফারহানা বলেন, তার এই অধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে।

বিদেশ যাওয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, গত সাত-আট বছর ধরে যতবারই আমি দেশের বাইরে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। কিন্তু আমার দুর্ভাগ্য- পাসপোর্ট, ভিসা এবং টিকিট থাকা সত্ত্বেও আমাকে বাইরে যেতে দেয়া হয়নি। যদিও দু–একবার সুযোগ পেয়েছি।

‘কিন্তু আমাকে তার আগে দুই থেকে আড়াই ঘণ্টা বিমানবন্দরে আটকে রাখা হয়েছে। আমার পাসপোর্ট নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। আড়াই-তিন ঘণ্টা বাদে ফিরে আসার পরে ফ্লাইটের সময় থাকলে যেতে পেরেছি। না হলে পারিনি। বাংলাদেশে আসার সময়ও একই ধরনের হেনস্তার শিকার সাত–আট বছর ধরে হচ্ছি।’

সাংসদ নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি একটি লাল পাসপোর্ট পেয়েছেন জানিয়ে রুমিন বলেন, পৃথিবীর বিভিন্ন বিমানবন্দরে তিনি যথেষ্ট সম্মান পেয়েছেন। শুধু নিজের দেশে আসা–যাওয়ার সময় হেনস্তার শিকার হতে হয়েছে।

বহু বড় বড় অপরাধী যখন খুশি তখন দেশ থেকে চলে যান অভিযোগ করে তিনি বলেন, তারা দেশে ফিরে আসেন। তাদের নামে মামলা হয়। তারা পালিয়ে যান। আদালত তাদের খুঁজে পান না। তারা কিন্তু ঠিকই বিদেশে চলে যান। তাদের ক্ষেত্রে তো কোনো বাধা দেখা যায় না। বিরোধী দলের একজন কর্মীর ক্ষেত্রে কেন এই ধরনের বাধার মুখোমুখি বারবার হতে হয়?