বুধবার, ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

চেতনায় বঙ্গবন্ধু’ শিরোনামে যুবলীগের স্মরণিকা

news-image

‘নিজস্ব প্রতিবেদক : মুজিব শতবর্ষে’ শোকাবহ আগস্ট, ২০২১ উপলক্ষ্যে ‘চেতনায় বঙ্গবন্ধু’ শিরোনামে একটি স্মরণিকা প্রকাশ করেছে আওয়ামী যুবলীগ। ১৭৫ পৃষ্ঠার এই স্মরণিকায় স্থান পেয়েছে দেশের বরেণ্য রাজনীতিবিদ, কবি, লেখক, গবেষক, অর্থনীতিবিদ, ইতিহাসবিদ এবং সাংবাদিকদের লেখা। স্মরণিকায় লিখেছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা, শেখ রেহানাও।

উনচল্লিশ বিশিষ্ট ব্যক্তির লেখায় একটি সমৃদ্ধ স্মরণিকায় পরিণত হয়েছে। এছাড়াও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের বেশকিছু দূর্লভ আলোকচিত্র স্থান পেয়েছে স্মরণিকায়।

যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশের সার্বিক নির্দেশনা ও পৃষ্ঠপোষকতা এবং সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন নিখিলের তত্ত্বাবধায়নে স্মরণিকাটি প্রকাশ করা হয়। এটি সম্পাদনা করেন যুবলীগের গ্রন্থ ও প্রকাশনা সম্পাদক জহুরুল ইসলাম মিল্টন। প্রচ্ছদ ডিজাইন করেছেন চারু পিন্টু।

স্মরণিকাটির বিষয়ে সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন নিখিল বলেন, ‘চেতনায় বঙ্গবন্ধু’ স্মরণিকার মাধ্যমে যুবকদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও জীবন দর্শনের সংযোগ স্থাপণ হোক, আমরা এই প্রত্যাশা রাখি।

স্মরণিকাটির বিষয়ে যুবলীগের প্রকাশনা সম্পাদক জহুরুল ইসলাম মিল্টন বলেন, আগস্টের শহিদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাস্বরুপ স্মরণিকাটি প্রকাশ করা হয়েছে। এটি বরাবরের ন্যায় যুবলীগের ১৫ আগস্টের শহিদ স্মৃতি স্মরণে একটি স্বপ্ন উদ্যোগ।

স্মরণিকায় যাদের যা লেখা রয়েছে

‘শেখ ফজিলাতুন নেছা, আমার মা- শেখ হাসিনা’, ‘শোক হোক আমাদের শক্তি- শেখ রেহানা’, ‘পৃথিবীর জঘন্যতম রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস’, ‘মুজিববাদ দর্শনে ও বাস্তবে- শেখ ফজলুল হক মণি’, ‘১৫ আগস্ট, কাল রাত্রির সেই দুঃসহ স্মৃতি- শেখ ফজলুল করিম সেলিম’, ‘নির্বাসনের দিনগুলি-শেখ ফজলে শামস্ পরশ’, ‘বঙ্গবন্ধুর চেতনা চলার পথের প্রেরণা- তোফায়েল আহমেদ’, ‘বঙ্গবন্ধুকে অবলোকন’, ‘বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিচারণ: ছোট ছোট ঘটনা- ড. একে আব্দুল মোমেন’, ‘মহামানব ও মহানায়ক বঙ্গবন্ধু- আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী’, ’১৫ আগস্ট ১৯৭৫- বেবি মওদুদ’।

‘সংগ্রাম ও স্বাধীনতার অপর নাম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান- অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক’, ‘প্রেরণাদায়িনী ফজিলাতুন নেছা মুজিব-এবিএম মুসা’, ‘কেন তিনি জাতির পিতা- কবীর চৌধুরী, ‘বঙ্গবন্ধুর অর্থনৈতিক ভাবনার কেন্দ্রে ছিলেন দুঃখী মানুষ- ড. আতিউর রহমান, ‘শেখ মুজিব কেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বাংলাদেশ রাষ্ট্রের স্রষ্টা এবং বাঙালি জাতির পিতা- শামসুজ্জামান খান’, ‘বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করাই ছিল যেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের অপরাধ!- ড. মুনতাসীর মামুন’, ‘ইতিহাসের বঙ্গদেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলা- সেলিমা হোসেন’।

‘এ বিচার অসমাপ্ত বিচার- সৈয়দ আনোয়ার হোসেন’, ’১৫ আগস্ট: শোক সাগরে সোনার বাংলার পথসন্ধান- ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন’, ‘বঙ্গবন্ধু ছিলেন আছেন থাকবেন- মাহবুব-উল আলম হানিফ’, ‘১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড: সত্যের সন্ধানে- প্রফেসর আব্দুল খালেক’, ‘বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক মানস ও বাংলাদেশ রাষ্ট্রের দার্শনিক ভিত্তি- ড. মীজানুর রহমান’, ‘বঙ্গবন্ধুর কারাজীবন: অন্ধকারে দীপশিখা- ড. রাশিদ আসকারী’, ‘তিনিই আমাদের শক্তি, তিনিই আমাদের প্রেরণা- আবেদ খান’, ‘পঞ্চাশের দশকে দেখা ‘মুজিব ভাই’- প্রফেসর মো. আসাদুজ্জামান’

‘সপরিবার বঙ্গবন্ধু হত্যা জাতির জন্য কলঙ্ক- আইভি রহমান’, ‘চেতনায় বঙ্গবন্ধু- সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম’, ‘বঙ্গমাতা ও বঙ্গবন্ধুকে যেমন দেখছি- অধ্যাপক একে আজাদ খান’, ‘বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্তজন শহিদ কর্ণেল জামিলের কথা- ড. জেবউননেছা’, ‘আমার দেখা, মহামতি বঙ্গবন্ধু- সৈয়দ আহমেদ মনসুর’, ‘গাছ, কফিন এবং নৌকা- শামসুর রাহমান’, ‘আমি কি বলতে পেরেছিলাম- মহাদেব সাহা’, ‘মুছে ফ্যালো মিছে অশ্রু তোমার- সৈয়দ শামসুল হক’, ‘আমি আজ কারো রক্ত চাইতে আসিনি- নির্মলেন্দু গুণ’, ‘বত্রিশ নম্বর- কামাল চৌধরী’, ‘রক্তের গম্বুজ- হাবীবুল্লাহ সিরাজী’, ‘ঘরে ঘরে শেখ মুজিব- জাফর ওয়াজেদ’ ও ‘মুজিবের থাকা না থাকা- লুৎফর রহমান রিটন’।